সূরা ইখলাসের আরবি বাংলা উচ্চারণ এবং ফজিলত

সূরা ইখলাসের আরবি বাংলা উচ্চারণ এবং ফজিলত

 

সূরা এখলাস, সূরা ইখলাস, সূরা ইখলাস আরবি সূরা ইখলাস বাংলা উচ্চারণ, সূরা ইখলাস এর ফজিলত


    সূরা এখলাস  |  সূরা ইখলাস

    প্রিয় পাঠকবৃন্দ টাইম অফ বিডি এর পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা এবং সালাম আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু । কেমন আছেন আপনারা সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। মহান আল্লাহ তা'আলা মানব জাতির পথপ্রদর্শক হিসাবে কুরআন মাজীদ নাযিল করেছেন। আর কুরআন মাজিদে 114 টি সূরার মধ্যে যার মধ্যে সুরা এখলাছ একটি। আপনারা হয়তো অনেকেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় সুরা এখলাছ আরবি বাংলা উচ্চারণ খুঁজছেন। আবার হয়তো অনেকে সূরা এখলাছ এর ফজিলত খুঁজছেন। আর তাই আজকে আপনাদের জন্য আমাদের এই পোস্টটি তৈরি করা হয়েছে। আশা করি আপনারা পুরোপুরি ধৈর্য সহকারে পড়বেন এবং সঠিক তথ্যটি পাবেন।

     সূরা ইখলাস আরবি 

    ৩ বার ছহিহ নিয়তে সূরা আল ইখলাস (একত্ব) পাঠ করলে ১খতম কোরআন শরিফের ছাওয়াব পাওয়া যায় সুবহানাল্লাহ।

    আরবি উচ্চারণঃ

    بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ

    قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ

    اللَّهُ الصَّمَد

    لَمْ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ

    وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ

    অর্থ

    বলুন, তিনি আল্লাহ, এক, আল্লাহ অমুখাপেক্ষী, তিনি কাউকে জন্ম দেননি এবং কেউ তাকে জন্ম দেয়নি এবং তার সমতুল্য কেউ নেই।

    সূরা ইখলাস বাংলা উচ্চারণ 

    বাংলা উচ্চারণঃ

    বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

    কুলহু আল্লাহু আহাদ। আল্লাহুস সামাদ। লাম ইয়ালিদ ওয়া লাম ইউলাদ। ওয়া লাম ইয়া কুল্লাহু কুফুওয়ান আহাদ।

    সূরা ইখলাস এর ফজিলত 

    সুরা ইখলাসের ফজিলত :-

    তিনবার সুরা ইখলাস পড়লে একবার ক্বুরআন খতম দেওয়ার সমান সওয়াবঃ

    রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সুরা ইখলাস সম্পর্কে বলেছেন,

    “নিঃসন্দেহে এটা ক্বুরআনের এক তৃতীয়াংশের সমান।”

    মুসলিমঃ ৮১২, তিরমিযীঃ ২৮৯৯।

     সুরা ইখলাস দশবার পড়ার ফযীলতঃ

    নবী সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, 

    “যে ব্যক্তি সুরা ইখলাস দশ বার পড়বে আল্লাহ তার জন্য জান্নাতে একটি প্রাসাদ তৈরী করবেন, যে বিশ বার পড়বে তার জন্য দুইটি প্রাসাদ তৈরী করবেন, যে ত্রিশ বার পড়বে তার জন্য আল্লাহ তিনটি প্রাসাদ তৈরী করবেন।”

    দারিমীঃ ৩৪৯২, সিলসিলাহ সহীহাহঃ ৫৮৯।

    রাতের বেলা সুরা ইখলাস পড়া মুস্তাহাবঃ

    রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম একবার সাহাবীদেরকে বললেন, “তোমরা কি রাতে এক তৃতীয়াংশ ক্বুরআন পড়তে পারনা”? প্রস্তাবটি সাহাবাদের জন্য কঠিন মনে হল। তাই তাঁরা বলে উঠলেন, “হে আল্লাহর রসুল! এই কাজ আমাদের মধ্যে কে করতে পারবে”? (অর্থাৎ কেউ পারবে না।)

    রাসুল সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম তখন বললেন, “ক্বুল হুওয়াল্লাহু আহাদ, আল্লাহুস স্বামাদ (সুরা ইখলাস) ক্বুরআনের এক তৃতীয়াংশের সমান।” (অর্থাৎ এই সুরা পড়লে এক তৃতীয়াংশ ক্বুরআন পড়ার সমান নেকী পাওয়া যাবে)।

    সহীহুল বুখারীঃ ৫০১৫, নাসায়ীঃ ৯৯৫, আবু দাউদ ১৪৬১, আহমাদ ১০৬৬৯।

    যে ব্যক্তি সুরা ইখলাসকে ভালোবাসবে, এই ভালোবাসা তাকে জান্নাতে নিয়ে যাবেঃ

    এক সাহাবী এসে বলল, “হে আল্লাহর রসূল! আমি এই (সুরা) ক্বুল হুওয়াল্লাহু আহাদকে ভালবাসি”। তিনি বললেন, “এর ভালবাসা তোমাকে জান্নাতে প্রবেশ করাবে।”

    (বুখারীর ৭৭৪নং হাদীসের পরবর্তী অধ্যায়, তিরমিযী ২৯০১, আহমাদ ১২০২৪)

    Tag:সূরা এখলাস, সূরা ইখলাস, সূরা ইখলাস আরবি সূরা ইখলাস বাংলা উচ্চারণ, সূরা ইখলাস এর ফজিলত 



    0/Post a Comment/Comments

    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন
    chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png