বৃষ্টি নিয়ে কবিতা | বৃষ্টির রোমান্টিক কবিতা | বৃষ্টির কবিতা রবীন্দ্রনাথ

বৃষ্টি নিয়ে কবিতা | বৃষ্টির রোমান্টিক কবিতা | বৃষ্টির কবিতা রবীন্দ্রনাথ

 

বৃষ্টির কবিতা, বৃষ্টি নিয়ে কবিতা, বৃষ্টির কবিতা রোমান্টিক , বৃষ্টির রোমান্টিক কবিতা , বৃষ্টির কবিতা রবীন্দ্রনাথ, বৃষ্টির দিনের কবিতা, বৃষ্টির গান ও কবিতা, বৃষ্টির প্রেমের কবিতা


    বৃষ্টির কবিতা 

     টাইম অফ বিডির পক্ষ থেকে আপনাদের সকলকে জানাই শুভেচ্ছা ও সালাম আসসালামু আলাইকুম।কেমন আছেন আপনারা সবাই? আশা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভাল আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি।আপনারা হয়তো অনেকেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় বৃষ্টি নিয়ে কবিতা খুঁজছেন কিন্তু অনেকে হয়তো পছন্দমত কবিতা খুঁজে পাচ্ছেন না।আর তাই আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টটি তৈরি করেছি বৃষ্টির অনেকগুলো কবিতা নিয়ে। আশা করছি আপনারা পুরো পোস্টটি ধৈর্য্য সহকারে পড়বেন এবং খুব সুন্দর সুন্দর বৃষ্টির কবিতা আমাদের এই পোস্টে পাবেন।বৃষ্টির কবিতা, বৃষ্টি নিয়ে কবিতা, বৃষ্টির কবিতা রোমান্টিক , বৃষ্টির রোমান্টিক কবিতা , বৃষ্টির কবিতা রবীন্দ্রনাথ, বৃষ্টির দিনের কবিতা, বৃষ্টির গান ও কবিতা, বৃষ্টির প্রেমের কবিতা । আশা করিি পোস্টটি আপনাদের অনেক ভালোো লাগবে।

    বৃষ্টি নিয়ে কবিতা 

    বৃষ্টি এলেই 

    সাদাত হােসাইন


    বৃষ্টি এলেই তােমার বুকে, মেঘের মতই কাঁদব দেখ, জমিয়ে রাখা সবটা প্রেমে, আমায় তবু জড়িয়ে রেখ। নীল শাড়ীটার আঁচল জুড়ে, তুমিই না হয় আকাশ হলে, বৃষ্টি এলেই এই আমি ঠিক, ভিড়েই যাব মেঘের দলে।


    বৃষ্টি এলেই ভাঙল ছাতা, নীল পলিথিন উড়েই গেল, মাতাল হাওয়ায় নিভল আলাে, মেঘের জলে জীবন এলাে। লুকিয়ে থাকা সকল কথা, এই এ বেলা কাব্য হলাে, বৃষ্টি এলেই সবটা তুমি, আর কি নিয়ে ভাববাে বলাে!

    বৃষ্টির কবিতা রোমান্টিক |  বৃষ্টির রোমান্টিক কবিতা

    একটি স্তব্ধতা চেয়েছ।

    -সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়


    একটি স্তব্ধতা চেয়েছিল আর এর এক নৈঃশব্দকে ছুঁতে

    তারা বিপরীত দিকে চলে গেল,

    এ জীবনে দেখাই হলাে না।

    জীবন রইলাে পড়ে বৃষ্টিতে রােদ্দুরে ভেজা ভূমি

    তার কিছু দূরে নদী

    জল নিতে এসে কোনাে সলাজ কুমারী দেখে এক গলা-মােচড়ানাে মারা হাঁস।

    চোখের বিস্ময় থেকে আঙুলের প্রতিটি ডগায় তার

    সে সসয় অকস্মাৎ ডঙ্কা বাজিয়ে জাগে জ্যোৎস্নার

    উৎসব

    কেন, তার কোনাে মানে নেই

    যেমন বৃষ্টির দিনে অরণ্য শখরে ওঠে

    সুপুরুষ আকাশের সপ্তরং ভুরু

    আর তার খুব কাছে মধুলােভী আচমকা নিশ্বাসে পায় বাঘের দুর্গন্ধ!

    একটি স্তব্ধতা চেয়েছিল

    আর এক নৈঃশব্দ্যকে ছুঁতে

    তারা বিপরীত দিকে চলে গেল, এ জীবনে দেখাই হলাে না!

     বৃষ্টির কবিতা রবীন্দ্রনাথ 

    কবিতার নাম-আষাঢ় 

    লিখেছেন: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


    নীল নবঘনে আষাঢ় গগনে তিল ঠাঁই আর নাহি রে।

    ওগাে, আজ তােরা যাস নে ঘরের বাহিরে।

    বাদলের ধারা ঝরে ঝরােঝরাে, আউষের ক্ষেত জলে ভরাে-ভরাে,

    কালিমাখা মেঘে ও পারে আঁধার ঘনিয়েছে দেখ চাহিরে৷

    ওই শােনাে শােনাে পারে যাবে ব'লে কে ডাকিছে বুঝি মাঝিরে।

    খেয়া-পারাপার বন্ধ হয়েছে আজি রে।

    পুবে হাওয়া বয়, কূলে নেই কেউ, দু কুল বাহিয়া উঠে পড়ে ঢেউ--

    দরাে-দরাে বেগে জলে পড়ি জল ছলাে-ছল উঠে বাজি রে।

    খেয়া-পারাপার বন্ধ হয়েছে আজি রে।।

    ওই ডাকে শােনাে ধেনু ঘন ঘন, ধবলীরে আনাে গােহালে

    এখনি আঁধার হবে বেলাটুকু পােহালে।

    ওগাে, আজ তােরা যাস নে গাে তােরা যাস নে ঘরের বাহিরে।

    আকাশ আঁধার, বেলা বেশি আর নাহি রে।

    ঝরােঝরাে ধারে ভিজিবে নিচোল, ঘাটে যেতে পথ হয়েছে পিছল--

    ওই বেণুবন দোলে ঘন ঘন পথপাশে দেখ চাহি রে।।

    বৃষ্টির দিনের কবিতা

    বৃষ্টি ভেজা বর্ষার দিনে

     Em, Adv Subarna Seema


    আরেক বার শুধু আরেক বার আমি তােমার প্রেমে পড়তে চাই ভােরের ঐ শিশিরে ভেজা সূর্যের আলােয় ঘুম ভাঙ্গা চোখে তােমায় শুধু দেখতে চাই।

    সূর্যের খট খটা রােদে হাজারাে কাজের ভিড়ে ক্লান্ত তােমাকে ভালােবাসতে চাই। বিন্দু বিন্দু ঘাম জমেছে তােমার কপালে, ঠিক তখনি আমার ভালােবাসার আচলে তা মুছতে চাই।

    তােমার মুখের একটু হাসির প্রেমে পড়তে চাই,

    আর একটি বার দেখা হবে তােমার আমার চায়ের কাপের স্পর্শ পেতে। কিছু কথা তােমার, কিছু কথা আমার,

    নতুন বর্ষার দিনের প্রেম ইচ্ছে করেই ভিজবাে সেদিন দু'জনে, হাতে হাত রেখে চিনা শহরে। লােকে দেখে দেখুক, কিবা হবে তাতে।

    কাঁপা ঠোটে চায়ের কাপে বর্ষার দিনে দিবাে দু'জনে চুমুক। ভালােবাসা থাকবে দু'জনের হৃদয়ে

     বৃষ্টির গান ও কবিতা 

      বৃষ্টির গান ও কবিতা

    একটাও পাখি গায়নি এখনাে গান একটা তারাও পড়েনি আকাশ থেকে, একটাও হাঁস করেনিতাে জলে স্নান

    সূর্যস্নাত হয়েছে যে রােদ মেখে,

    রামধনু এঁকে গেছে পাহাড়ের গায়ে রং গুলে সবুজ মখমলে পাওয়া হলাে জীবনের সবি, বৃথা হবে সব কিছু তুই আর ফিরে না এলে চাঁদের বুড়ি জানি আজন্মকালই স্থবির,

    মেঘেরা কি যাবে যাযাবর হয়ে ঘুরে বৃষ্টির জলে ভিজেছে পদ্মপাতা, ফোঁটা ফোঁটা জল অশ্রু হয়ে ঝরে ম্যানগ্রোভ সারি ধরেছে মাথায় ছাতা.

    তবু তাের ছবি থেকে জল নামে চুয়ে পাপড়ি ছড়িয়ে মেলে দেনা তুই ডানা, ভরা জ্যোৎস্নায় নিশিপদ্ম হয়ে আমার স্বপ্নে আসতে তাে নেই মানা.

    আমার আকাশে উড়ছে রঙিন ঘুড়ি রাতভর জেগে তাের অপেক্ষায়, আমার ঘরের পাশেই রয়েছে সিড়ি সেটা বেয়ে তুই মাটিতে নেমে আয়.

    এস্কিমােদের দেশেই আমি রই আমার স্বপ্ন বরফে রয়েছে ঢাকা, কাছের ইগ্লুটাতেই আছিস তুই পােশাকে পশম সারা গায়ে চাকা চাকা,

    বৃষ্টির প্রেমের কবিতা 

      বৃষ্টির প্রেমের কবিতা

    কত বসন্ত পেরিয়ে এসেছে আবার একুশ, একুশ জানে না ভয়, দুর্বার, দুর্জয়।

    একুশ জানে লড়াই করে জিততে,

    একুশ জানে শপথ পূরণ করতে।

    তাই আজ একুশে এসাে

    শপথ পূরণ করতে।

    আমরা আবার নতুন করে প্রেমে পড়তে চাই

    বাড়িয়ে দাও তােমার হাত

    আমি শুধু তােমার হাতেই হাত

    রাখতে চাই।

    পলাশ শিমুল কৃষ্ণচূড়ার ঘন ছায়ায়,

    কোন এক নির্জন নদীর ধারে

    আমি আবার তােমার মুখােমুখি

    বসতে চাই।

    স্রোতস্বিনী নদের জলের কলতান

    শুনতে চাই।

    নব দিনমণির হাসির ছটায়--

    ঢেউয়ে ভেজা সমুদ্র সৈকতে

    আমি আবার তােমার পাশেই

    হাঁটতে চাই।

    আবার আমি তােমার পাশে

    বসে বৃষ্টির জলধারা

    গুনতে চাই।

    মায়াময় চাঁদনী রাতের আলােয়

    আমি আবার তােমার প্রেমেই

    ভাসতে চাই।

    আবার আমি তােমার সাথেই

    বসন্তের আবীর খেলা

    খেলতে চাই।

    এই ভুবনে যে কটা দিন পাব

    আমি শুধু তােমার সাথেই রামধনু হাসি

    হাসতে চাই।

    শুধু একটিবার তােমার হাত

    বাড়িয়ে দাও, আমি আমার হাত তােমার হাতেই

    রাখতে চাই।

    Tag:বৃষ্টির কবিতা, বৃষ্টি নিয়ে কবিতা, বৃষ্টির কবিতা রোমান্টিক , বৃষ্টির রোমান্টিক কবিতা , বৃষ্টির কবিতা রবীন্দ্রনাথ, বৃষ্টির দিনের কবিতা, বৃষ্টির গান ও কবিতা, বৃষ্টির প্রেমের কবিতা 

    0/Post a Comment/Comments

    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন
    chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png