সূরাতুল কাফিরুন | সূরাতুল বুরুজ | সূরাতুল দোহা | সূরাতুল হাশর | সূরাতুল ফিল | সূরাতুল কদর | সূরাতুল ইয়াসিন | সূরাতুল নূর (বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ)

 

সূরাতুল কাফিরুন, সূরাতুল বুরুজ, সূরাতুল দোহা, সূরাতুল হাশর, সূরাতুল ফিল, সূরাতুল কদর, সূরাতুল ইয়াসিন, সূরাতুল নূর।

আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ। আমার দ্বীনী ভাই ও বোনেরা আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও আপনাদের দোয়া ও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। প্রিয়  ভাই ও বোনেরা আজ আমি আপনাদের মাঝে নিয়ে আসলাম:- সূরাতুল কাফিরুন, সূরাতুল বুরুজ, সূরাতুল দোহা, সূরাতুল হাশর, সূরাতুল ফিল, সূরাতুল কদর, সূরাতুল ইয়াসিন, সূরাতুল নূর।তো দেরি না করে আসুন আমরা পড়া শুরু করি।


সূরাতুল কাফিরুন


 بِسمِ اللَّهِ الرَّحمٰنِ الرَّحيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

 শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু


[1]  قُل يٰأَيُّهَا الكٰفِرونَ

[1] কুল্ ইয়া য় আইয়ুহাল্ কা-ফিরূনা ।

[1] বলুন, হে কাফেরকূল,


[2]  لا أَعبُدُ ما تَعبُدونَ

[2]  লা য় আ’বুদু মা তা’বুদূনা।

[2] আমি এবাদত করিনা, তোমরা যার এবাদত কর।


[3]  وَلا أَنتُم عٰبِدونَ ما أَعبُدُ

[3] অলা য় আন্তুম্ ‘আ-বিদূনা মা য় আ’বুদ্।

[3] এবং তোমরাও এবাদতকারী নও, যার এবাদত আমি করি


[4]  وَلا أَنا۠ عابِدٌ ما عَبَدتُم

[4] অলা য় আনা ‘আ-বিদুম্ মা-‘আবাততুম্।

[4] এবং আমি এবাদতকারী নই, যার এবাদত তোমরা কর।

 

[5]  وَلا أَنتُم عٰبِدونَ ما أَعبُدُ

[5] অলা য় আন্তুম্ ‘আ-বিদূনা মা য় আ’বুদ্।

[5] তোমরা এবাদতকারী নও, যার এবাদত আমি করি।

 

[6]  لَكُم دينُكُم وَلِىَ دينِ

[6] লাকুম্ দীনুকুম্ অলিয়াদীন্।

[6] তোমাদের কর্ম ও কর্মফল তোমাদের জন্যে এবং আমার কর্ম ও কর্মফল আমার জন্যে।


সূরাতুল বুরুজ 


بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


وَالسَّمَاءِ ذَاتِ الْبُرُوجِ 85.1

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১) অস্সামা-য়ি যা-তিল্ বুরূজ্বি

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১) কক্ষপথ বিশিষ্ট আসমানের কসম,


وَالْيَوْمِ الْمَوْعُودِ 85.2

আরবি উচ্চারণ

৮৫.২) অল্ইয়াওমিল্ মাও‘ঊদি।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.২) আর ওয়াদাকৃত দিনের কসম,


وَشَاهِدٍ وَمَشْهُودٍ 85.3

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৩) অশা-হিদিঁও অমাশ্হূদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৩) আর কসম সাক্ষ্যদাতার এবং যার ব্যাপারে সাক্ষ্য দেয়া হবে তার,


قُتِلَ أَصْحَابُ الْأُخْدُودِ 85.4

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৪) কুতিলা আছ্হা-বুল্ উখ্দূদি।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৪) ধ্বংস হয়েছে গর্তের অধিপতিরা,


النَّارِ ذَاتِ الْوَقُودِ 85.5

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৫) আন্না-রি যা-তিল্ অকুদি

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৫) যাতে ছিল ইন্ধনপূর্ণ আগুন।


إِذْ هُمْ عَلَيْهَا قُعُودٌ 85.6

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৬) ইয্হুম্ ‘আলাইহা-কুঊ’দুঁও।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৬) যখন তারা তার কিনারায় উপবিষ্ট ছিল।


وَهُمْ عَلَى مَا يَفْعَلُونَ بِالْمُؤْمِنِينَ شُهُودٌ 85.7

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৭) অহুম্ ‘আলা-মা-ইয়াফ্‘আলূনা বিল্মুমিনীনা শুহূদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৭) আর তারা মুমিনদের সাথে যা করছিল তার প্রত্যক্ষদর্শী।


وَمَا نَقَمُوا مِنْهُمْ إِلَّا أَنْ يُؤْمِنُوا بِاللَّهِ الْعَزِيزِ الْحَمِيدِ 85.8

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৮) অমা-নাক্বমূ মিন্হুম্ ইল্লা য় আইঁ ইয়ুমিনূ বিল্লা-হিল্ ‘আযীযিল্ হামীদি।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৮) আর তারা তাদেরকে নির্যাতন করেছিল শুধুমাত্র এ কারণে যে, তারা মহাপরাক্রমশালী প্রশংসিত আল্লাহর প্রতি ঈমান এনেছিল।


الَّذِي لَهُ مُلْكُ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ وَاللَّهُ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ شَهِيدٌ 85.9

আরবি উচ্চারণ

৮৫.৯) ল্লাযী লাহূ মুল্কুস্ সামা-ওয়া-তি অল্ র্আদ্ব; অল্লা-হু ‘আলা- কুল্লি শাইয়িন্ শাহীদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.৯) আসমানসমূহ ও যমীনের রাজত্ব যার। আর আল্লাহ প্রতিটি বিষয়ের প্রত্যক্ষদর্শী।


إِنَّ الَّذِينَ فَتَنُوا الْمُؤْمِنِينَ وَالْمُؤْمِنَاتِ ثُمَّ لَمْ يَتُوبُوا فَلَهُمْ عَذَابُ جَهَنَّمَ وَلَهُمْ عَذَابُ الْحَرِيقِ 85.10

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১০) ইন্নাল্লাযীনা ফাতানুল্ মুমিনীনা অল্মুমিনা-তি ছুম্মা লাম্ ইয়াতূবূ ফালাহুম্ ‘আযা-বু জ্বাহান্নামাঅলাহুম্ ‘আযা-বুল্ হারীক্ব্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১০) নিশ্চয় যারা মুমিন পুরুষ ও মুমিন নারীদেরকে আযাব দেয়, তারপর তাওবা করে না, তাদের জন্য রয়েছে জাহান্নামের আযাব। আর তাদের জন্য রয়েছে আগুনে দগ্ধ হওয়ার আযাব।


إِنَّ الَّذِينَ آمَنُوا وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ لَهُمْ جَنَّاتٌ تَجْرِي مِنْ تَحْتِهَا الْأَنْهَارُ ذَلِكَ الْفَوْزُ الْكَبِيرُ 85.11

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১১) ইন্নাল্লাযীনা আ-মানূ অ‘আমিলুছ্ ছোয়া-লিহা-তি লাহুম্ জ্বান্না-তুন্ তাজরী মিন্ তাহ্তিহাল্ আন্হার্-; যা-লিকাল্ ফাওযুল্ কার্বী।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১১) নিশ্চয় যারা ঈমান আনে এবং সৎকর্ম করে তাদের জন্য রয়েছে জান্নাত। যার তলদেশে প্রবাহিত হবে নহরসমূহ। এটাই বিরাট সফলতা।


إِنَّ بَطْشَ رَبِّكَ لَشَدِيدٌ 85.12

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১২) ইন্না বাতশা রব্বিকা লাশাদীদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১২) নিশ্চয় তোমার রবের পাকড়াও বড়ই কঠিন।


إِنَّهُ هُوَ يُبْدِئُ وَيُعِيدُ 85.13

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৩) ইন্নাহূ হুওয়া ইয়ুব্দিয়ু অইয়ু‘ঈদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৩) নিশ্চয় তিনি সৃষ্টির সূচনা করেন এবং তিনিই পুনরায় সৃষ্টি করবেন।


وَهُوَ الْغَفُورُ الْوَدُودُ 85.14

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৪) অহুওয়াল্ গফূরুল্ ওয়াদূদু

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৪) আর তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল, প্রেমময়।


ذُو الْعَرْشِ الْمَجِيدُ 85.15

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৫) যুল্ ‘র্আশিল্ মাজ্বীদু

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৫) আরশের অধিপতি, মহান।


فَعَّالٌ لِمَا يُرِيدُ 85.16

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৬) ফা’আ’লুল্ লিমা- ইয়ুরীদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৬) তিনি তা-ই করেন যা চান ।


هَلْ أَتَاكَ حَدِيثُ الْجُنُودِ 85.17

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৭) হাল্ আতা-কা হাদীছুল্ জুনূ দি

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৭) তোমার কাছে কি সৈন্যবাহিনীর খবর পৌঁছেছে?


فِرْعَوْنَ وَثَمُودَ 85.18

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৮) র্ফি‘আউনা অছামূদ্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৮) ফির‘আউন ও সামূদের।


بَلِ الَّذِينَ كَفَرُوا فِي تَكْذِيبٍ 85.19

আরবি উচ্চারণ

৮৫.১৯) বালিল্লাযীনা কাফারূ ফী তাক্যীবিঁও

বাংলা অনুবাদ

৮৫.১৯) বরং কাফিররা মিথ্যারোপে লিপ্ত।


وَاللَّهُ مِنْ وَرَائِهِمْ مُحِيطٌ 85.20

আরবি উচ্চারণ

৮৫.২০) অল্লা-হু মিওঁ অরা য় য়িহিম্ মুহীত্ব্।

বাংলা অনুবাদ

৮৫.২০) আর আল্লাহ তাদের অলক্ষ্যে তাদের পরিবেষ্টনকারী।


بَلْ هُوَ قُرْآنٌ مَجِيدٌ 85.21

আরবি উচ্চারণ

৮৫.২১) বাল্ হুওয়া কুরআ-নুম্ মাজ্বীদুন্

বাংলা অনুবাদ

৮৫.২১) বরং তা সম্মানিত কুরআন।


فِي لَوْحٍ مَحْفُوظٍ 85.22

আরবি উচ্চারণ

৮৫.২২) ফী লাওহিম্ মাহ্ফূজ্

বাংলা অনুবাদ

৮৫.২২) সুরক্ষিত ফলকে (লিপিবদ্ধ)।


সূরাতুল দোহা


 بِسمِ اللَّهِ الرَّحمٰنِ الرَّحيمِ


বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম


শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু

  

[1]  وَالضُّحىٰ

[1] অদ্ব্দ্বুহা-। 

[1] শপথ পূর্বাহ্নের,


[2]  وَالَّيلِ إِذا سَجىٰ

[2] অল্লাইলি ইযা- সাজ্বা-। 

[2] শপথ রাত্রির যখন তা গভীর হয়,

 

[3]  ما وَدَّعَكَ رَبُّكَ وَما قَلىٰ

[3] মা অদ্দা‘আকা রব্বুকা অমা- ক্বলা-। 

[3] আপনার পালনকর্তা আপনাকে ত্যাগ করেনি এবং আপনার প্রতি বিরূপও হননি।


[4]  وَلَلءاخِرَةُ خَيرٌ لَكَ مِنَ الأولىٰ

[4] অলাল্ আ-খিরাতু খাইরুল্লাকা মিনাল্ ঊলা-। 

[4] আপনার জন্যে পরকাল ইহকাল অপেক্ষা শ্রেয়।

 

[5]  وَلَسَوفَ يُعطيكَ رَبُّكَ فَتَرضىٰ

[5] অলাসাওফা ইয়ু’ত্বীকা রব্বুকা ফার্তাদ্বোয়া-। 

[5] আপনার পালনকর্তা সত্বরই আপনাকে দান করবেন, অতঃপর আপনি সন্তুষ্ট হবেন।

 

[6]  أَلَم يَجِدكَ يَتيمًا فَـٔاوىٰ

[6] আলাম্ ইয়াজ্বিদ্কা ইয়াতীমান্ ফাআ-ওয়া-। 

[6] তিনি কি আপনাকে এতীমরূপে পাননি? অতঃপর তিনি আশ্রয় দিয়েছেন।

 

[7]  وَوَجَدَكَ ضالًّا فَهَدىٰ

[7] অওয়াজ্বাদাকা দ্বোয়া-ল্লান্ ফাহাদা-। 

[7] তিনি আপনাকে পেয়েছেন পথহারা, অতঃপর পথপ্রদর্শন করেছেন 

 

[8]  وَوَجَدَكَ عائِلًا فَأَغنىٰ

[8] অওয়াজ্বাদাকা ‘আ-য়িলান্ ফাআগ্না-। 

[8] তিনি আপনাকে পেয়েছেন নিঃস্ব, অতঃপর অভাবমুক্ত করেছেন।


[9] فَأَمَّا اليَتيمَ فَلا تَقهَر

[9] ফাআম্মাল্ ইয়াতীমা ফালা-তাক্বর্হা।

[9] সুতরাং আপনি এতীমের প্রতি কঠোর হবেন না;

 

[10] وَأَمَّا السّائِلَ فَلا تَنهَر

[10] অআম্মাস্ সা-য়িলা ফালা-তার্ন্হা।

[10] সওয়ালকারীকে ধমক দেবেন না।


[11] وَأَمّا بِنِعمَةِ رَبِّكَ فَحَدِّث

[11] অ আম্মা-বিনি’মাতি রব্বিকা ফাহাদ্দিছ্।

[11] এবং আপনার পালনকর্তার নেয়ামতের কথা প্রকাশ করুন।


সূরাতুল হাশর


بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


سَبَّحَ لِلَّهِ مَا فِي السَّمَاوَاتِ وَمَا فِي الْأَرْضِ وَهُوَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ 59.1


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১) সাব্বাহা-লিল্লা-হি মা-ফিস্ সামা-ওয়া-তি অমা-ফিল্ র্আদ্বি অহুওয়াল্ ‘আযীযুল্ হাকীম্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১) আসমানসমূহে ও যমীনে যা কিছু আছে সবই আল্লাহর তাসবীহ পাঠ করছে এবং তিনি মহা পরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়।


هُوَ الَّذِي أَخْرَجَ الَّذِينَ كَفَرُوا مِنْ أَهْلِ الْكِتَابِ مِنْ دِيَارِهِمْ لِأَوَّلِ الْحَشْرِ مَا ظَنَنْتُمْ أَنْ يَخْرُجُوا وَظَنُّوا أَنَّهُمْ مَانِعَتُهُمْ حُصُونُهُمْ مِنَ اللَّهِ فَأَتَاهُمُ اللَّهُ مِنْ حَيْثُ لَمْ يَحْتَسِبُوا وَقَذَفَ فِي قُلُوبِهِمُ الرُّعْبَ يُخْرِبُونَ بُيُوتَهُمْ بِأَيْدِيهِمْ وَأَيْدِي الْمُؤْمِنِينَ فَاعْتَبِرُوا يَا أُولِي الْأَبْصَارِ 59.2


আরবি উচ্চারণ

৫৯.২) হুওয়াল্ লাযী য় আখ্ রজ্বাল্লাযীনা কাফারূ মিন্ আহ্লিল্ কিতা-বি মিন্ দিয়া-রিহিম্ লিআওয়্যালিল্ হাশ্র; মা-জোয়ানান্তুম্ আইঁ ইয়াখ্রুজ্ব ক্র অজোয়ান্ন ক্র য় আন্নাহুম্ মা-নি‘আতুহুম্ হূছূনুহুম্ মিনাল্লা-হি ফাআতা-হুমুল্লা-হু মিন্ হাইছু লাম্ ইয়াহ্তাসিবূ অক্বযাফা ফী কুলূ বিহির্মু রু’বা ইয়ুখ্রিবূনা বুইয়ূতাহুম্ বিআইদীহিম্ অ আইদিল্ মু”মিনীনা ফা’তাবিরূ ইয়া য় উলিল্ আব্ছোয়ার্-।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.২) আহলে কিতাবদের মধ্যে যারা কুফরি করেছিল তিনিই তাদেরকে তাদের ঘর-বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছিলেন প্রথমবারের মত। তোমরা ধারণাও করনি যে, তারা বেরিয়ে যাবে। আর তারা ধারণা করেছিল যে, তাদের দগু র্গু লো তাদেরকে আল্লাহর আযাব থেকে রক্ষা করবে। কিন্তু আল্লাহর আযাব এমন এক দিক থেকে আসল যা তারা কল্পনাও করতে পারেনি এবং তিনি তাদের অন্তরসমূহে ত্রাসের সঞ্চার করলেন, ফলে তারা তাদের বাড়ী-ঘর আপন হাতে ও মুমিনদের হাতে ধ্বংস করতে শুরু করল। অতএব হে দৃষ্টিমান লোকেরা তোমরা উপদেশ গ্রহণ কর।’


وَلَوْلَا أَنْ كَتَبَ اللَّهُ عَلَيْهِمُ الْجَلَاءَ لَعَذَّبَهُمْ فِي الدُّنْيَا وَلَهُمْ فِي الْآخِرَةِ عَذَابُ النَّارِ 59.3


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৩) অলাওলা য় আন্ কাতাবা ল্লা-হু ‘আলাইহিমুল্ জ্বালা-য়া লা‘আয্ যাবাহুম্ ফিদ্দুন্ইয়া-; অলাহুম্ ফিল্ ‘আ-খিরতি ‘আযা-বুন্ নার্-।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৩) আর আল্লাহ যদি তাদের জন্য নির্বাসন লিপিবদ্ধ না করতেন, তবে তিনি তাদেরকে দুনিয়াতে শাস্তি দিতেন এবং তাদের জন্য আখিরাতে রয়েছে আগুনের শাস্তি।


ذَلِكَ بِأَنَّهُمْ شَاقُّوا اللَّهَ وَرَسُولَهُ وَمَنْ يُشَاقِّ اللَّهَ فَإِنَّ اللَّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ 59.4


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৪) যা-লিকা বিআন্নাহুম্ শা-কক্ব ক্রল্লা-হা অরসূলাহূ অমাইঁ ইয়ুশা-কক্বি ল্লা-হা ফাইন্নাল্লা-হা শাদীদুল্ ই’ক্বা-ব্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৪) এটি এ জন্য যে, তারা সত্যিই আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের বিরুদ্ধাচরণ করেছিল। আর যে আল্লাহর বিরুদ্ধাচরণ করে, তবে নিশ্চয় আল্লাহ আযাব প্রদানে কঠোর।


مَا قَطَعْتُمْ مِنْ لِينَةٍ أَوْ تَرَكْتُمُوهَا قَائِمَةً عَلَى أُصُولِهَا فَبِإِذْنِ اللَّهِ وَلِيُخْزِيَ الْفَاسِقِينَ 59.5


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৫) মা-ক্বাত্বোয়া’তুম্ মিল্লীনাতিন্ আওতারক্তুমূহা-ক্ব-য়িমাতান্ ‘আলা য় উছূ লিহা-ফাবিইয্ নিল্লা-হি অ লিইয়ুখ্যিয়াল্ ফা-সিক্বীন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৫) তোমরা যে সব নতুন খেজুর গাছ কেটে ফেলছ অথবা সেগুলোকে তাদের মূলের ওপর দাঁড়িয়ে থাকতে দিয়েছ। তা তো ছিল আল্লাহর অনুমতিক্রমে এবং যাতে তিনি ফাসিকদের লাঞ্ছিত করতে পারেন।


وَمَا أَفَاءَ اللَّهُ عَلَى رَسُولِهِ مِنْهُمْ فَمَا أَوْجَفْتُمْ عَلَيْهِ فَمَا أَوْجَفْتُمْ عَلَيْهِ مِنْ خَيْلٍ وَلَا رِكَابٍ وَلَكِنَّ اللَّهَ يُسَلِّطُ رُسُلَهُ عَلَى مَنْ يَشَاءُ وَاللَّهُ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ 59.6


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৬) অমা য় আফা-য়াল্লা-হু ‘আলা-রসূলিহী মিন্হুম্ ফামা য় আওজ্বাফ্তুম্ ‘আলাইহি মিন্ খাইলিঁও অলা-রিকা-বিঁও অলা-কিন্নাল্লা-হা ইয়ুসাল্লিতু রুসুলাহূ ‘আলা-মাইঁ ইয়াশা-য়্; অল্লা-হু ‘আলা-কুল্লি শাইয়িন্ ক্বর্দী।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৬) আল্লাহ ইয়াহুদিদের নিকট থেকে তাঁর রাসূলকে ‌‌‌‌‌ফায় হিসেবে যা দিয়েছেন তোমরা তার জন্য কোন ঘোড়া বা উটে আরোহণ করে অভিযান পরিচালনা করনি। বরং আল্লাহ তাঁর রাসূলগণকে যাদের ওপর ইচ্ছা কতৃর্ত প্রদান করেন। আল্লাহ সকল কিছুর ওপর সর্বশক্তিমান।


مَا أَفَاءَ اللَّهُ عَلَى رَسُولِهِ مِنْ أَهْلِ الْقُرَى فَلِلَّهِ وَلِلرَّسُولِ وَلِذِي الْقُرْبَى وَالْيَتَامَى وَالْمَسَاكِينِ وَابْنِ السَّبِيلِ كَيْ لَا يَكُونَ دُولَةً بَيْنَ الْأَغْنِيَاءِ مِنْكُمْ وَمَا آتَاكُمُ الرَّسُولُ فَخُذُوهُ وَمَا نَهَاكُمْ عَنْهُ فَانْتَهُوا وَاتَّقُوا اللَّهَ إِنَّ اللَّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ 59.7


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৭) মা য় আফা-য়াল্লা-হু ‘আলা- রসূলিহী মিন্ আহ্লিল্ কুরা-ফালিল্লা-হি অর্লিরসূলি অলিযিল্ কুরবা- অল্ ইয়াতা-মা-অল্ মাসা-কীনি অব্নিস্ সাবীলি কাই লা-ইয়াকূনা দূলাতাম্ বাইনাল্ আগ্নিয়া-য়ি মিন্কুম্; অমা য় আ-তা-কুর্মু রসূলু ফাখুযূহু অমা-নাহা-কুম্ ‘আন্হু ফান্তাহূ অত্তাকুল্লা-হ্; ইন্না ল্লা-হা শাদী দুল্ ‘ইক্ব-ব্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৭) আল্লাহ জনপদবাসীদের নিকট থেকে তাঁর রাসূলকে ফায় হিসেবে যা দিয়েছেন তা আল্লাহর, রাসূলের, আত্মীয়-স্বজনদের, ইয়াতীমদের, মিসকীন ও মুসাফিরদের এটি এ জন্য যে, যাতে ধন-সম্পদ তোমাদের মধ্যকার বিত্তশালীদের মাঝেই কেবল আবর্তিত না থাকে। রাসূল তোমাদের যা দেয় তা গ্রহণ কর, আর যা থেকে সে তোমাদের নিষেধ করে তা থেকে বিরত হও এবং আল্লাহকেই ভয় কর, নিশ্চয় আল্লাহ শাস্তি প্রদানে কঠোর।


لِلْفُقَرَاءِ الْمُهَاجِرِينَ الَّذِينَ أُخْرِجُوا مِنْ دِيارِهِمْ وَأَمْوَالِهِمْ يَبْتَغُونَ فَضْلًا مِنَ اللَّهِ وَرِضْوَانًا وَيَنْصُرُونَ اللَّهَ وَرَسُولَهُ أُولَئِكَ هُمُ الصَّادِقُونَ 59.8


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৮) লিল্ ফুক্বারা-য়িল্ মুহাজ্বিরীনাল্ লাযীনা উখ্রিজ্ব ক্রমিন্ দিয়া- রিহিম্ অ আম্ওয়া-লিহিম্ ইয়াব্তাগূনা ফাদ্বলাম্ মিনাল্লা-হি অ রিদ্বওয়া-নাওঁ অ ইয়ান্ ছুরূনা ল্লা-হা অ রসূলাহ্; উলা-য়িকা হুমুছ্ ছোয়া-দিক্ব ক্রন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৮) এই সম্পদ নিঃশর্ত মুহাজিরগণের জন্য ও যাদেরকে নিজেদের ঘর-বাড়ী ও ধন-সম্পত্তি থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল। অথচ এরা আল্লাহর অনুগ্রহ ও সন্তুষ্টির অন্বেষণ করে এবং আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে সাহায্য করেন। এরাই তো সত্যবাদী।


وَالَّذِينَ تَبَوَّءُوا الدَّارَ وَالْإِيمَانَ مِنْ قَبْلِهِمْ يُحِبُّونَ مَنْ هَاجَرَ إِلَيْهِمْ وَلَا يَجِدُونَ فِي صُدُورِهِمْ حَاجَةً مِمَّا أُوتُوا وَيُؤْثِرُونَ عَلَى أَنْفُسِهِمْ وَلَوْ كَانَ بِهِمْ خَصَاصَةٌ وَمَنْ يُوقَ شُحَّ نَفْسِهِ فَأُولَئِكَ هُمُ الْمُفْلِحُونَ 59.9


আরবি উচ্চারণ

৫৯.৯) অল্লাযীনা তাবাওয়্যায়ুদ্ দা-রা অল্ঈমা-না মিন্ ক্বব্লিহিম্ ইয়ুহিব্বূনা মান্ হা-জ্বারা ইলাইহিম্ অলা-ইয়াজ্বিদূনা ফী ছুদূরিহিম্ হা-জ্বাতাম্ মিম্মা য় উতূ অইয়ু”ছিরূনা ‘আলা য় আন্ফুসিহিম্ অ লাও কা-না বিহিম্ খাছোয়া-ছোয়াহ্; অমাইঁইয়ূক্বা শুহ্হা নাফসিহী ফাউলা-য়িকা হুমুল্ মুফ্লিহূন্ ।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.৯) আর মুহাজিরদের আগমনের পূর্বে যারা মদীনাকে নিবাস হিসেবে গ্রহণ করেছিল এবং ঈমান এনেছিল (তাদের জন্যও এ সম্পদে অংশ রয়েছে), আর যারা তাদের কাছে হিজরত করে এসেছে তাদেরকে ভালবাসে। আর মুহাজরিদেরকে যা প্রদান করা হয়েছে তার জন্য এরা তাদের অন্তরে কোন ঈর্ষা অনুভব করে না এবং নিজেদের অভাব থাকা সত্ত্বেও নিজেদের ওপর তাদেরকে অগ্রাধিকার দেয়। যাদের মনের কাপর্ণ্য থেকে রক্ষা করা হয়েছে, তারাই সফলকাম।


وَالَّذِينَ جَاءُوا مِنْ بَعْدِهِمْ يَقُولُونَ رَبَّنَا اغْفِرْ لَنَا وَلِإِخْوَانِنَا الَّذِينَ سَبَقُونَا بِالْإِيمَانِ وَلَا تَجْعَلْ فِي قُلُوبِنَا غِلًّا لِلَّذِينَ آمَنُوا رَبَّنَا إِنَّكَ رَءُوفٌ رَحِيمٌ 59.10


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১০) অল্লাযীনা জ্বা-ঊ মিম্ বা’দিহিম্ ইয়াক্ব ক্রলূনা রব্বানাগ্ ফিরলানা-অলিইখ্ওয়া-নিনাল লাযীনা সাবাক্ব ক্রনা বিল্ ঈমা-নি অলা- তাজ্ব ‘আল্ ফী কুলূবিনা-গিল্লাল্লিল্লাযীনা আ-মানূ রব্বানা য় ইন্নাকা রায়ূফুর রহীম্


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১০) যারা তাদের পরে এসেছে তারা বলে: ‘হে আমাদের রব, আমাদেরকে ও আমাদের ভাই যারা ঈমান নিয়ে আমাদের পূর্বে অতিক্রান্ত হয়েছে তাদেরকে ক্ষমা করুন; এবং যারা ঈমান এনেছিল তাদের জন্য আমাদের অন্তরে কোন বিদ্বেষ রাখবেন না; হে আমাদের রব, নিশ্চয় আপনি দয়াবান, পরম দয়ালু।


أَلَمْ تَرَ إِلَى الَّذِينَ نَافَقُوا يَقُولُونَ لِإِخْوَانِهِمُ الَّذِينَ كَفَرُوا مِنْ أَهْلِ الْكِتَابِ لَئِنْ أُخْرِجْتُمْ لَنَخْرُجَنَّ مَعَكُمْ وَلَا نُطِيعُ فِيكُمْ أَحَدًا أَبَدًا وَإِنْ قُوتِلْتُمْ لَنَنْصُرَنَّكُمْ وَاللَّهُ يَشْهَدُ إِنَّهُمْ لَكَاذِبُونَ 59.11


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১১) আলাম্ তারা ইলাল্লাযীনা না-ফাক্ব ক্র ইয়াক্ব ক্রলূনা লিইখ্ওয়া-নিহিমুল্লাযীনা কাফারূ মিন্ আহ্লিল্ কিতা-বি লায়িন্ উখ্রিজ্ব তুম্ লানাখ্রুজ্বান্না মা‘আকুম্ অলা-নুত্বী‘ঊ ফীকুম্ আহাদান্ আবাদাঁও অইন্ ক্ব ক্র তিল্তুম্ লানান্ ছুরন্নাকুম্; অল্লা-হু ইয়াশ্হাদু ইন্নাহুম্ লাকা-যিবূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১১) তুমি কি মুনাফিকদেরকে দেখনি যারা আহলে কিতাবের মধ্য হতে তাদের কাফির ভাইদেরকে বলে, ‘তোমাদেরকে বের করে দেয়া হলে আমরাও তোমাদের সাথে অবশ্য বেরিয়ে যাব এবং তোমাদের ব্যাপারে আমরা কখনোই কারো আনুগত্য করব না। আর তোমাদের সাথে যুদ্ধ করা হলে আমরা অবশ্যই তোমাদেরকে সাহায্য করব।’ আর আল্লাহ সাক্ষ্য দিচ্ছেন যে, তারা মিথ্যাবাদী।


لَئِنْ أُخْرِجُوا لَا يَخْرُجُونَ مَعَهُمْ وَلَئِنْ قُوتِلُوا لَا يَنْصُرُونَهُمْ وَلَئِنْ نَصَرُوهُمْ لَيُوَلُّنَّ الْأَدْبَارَ ثُمَّ لَا يُنْصَرُونَ 59.12


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১২) লায়িন্ উখ্রিজ্ব ক্রলা-ইয়াখ্রুজ্ব ক্রনা মা‘আহুম্ অলায়িন্ ক্ব ক্রতিলূ লা-ইয়ান্ ছুরূনাহুম্ অলায়িন্ নাছোয়ারূ হুম্ লাইয়ুওয়াল্লুন্নাল্ আদ্বা-রা ছুম্মা লা-ইয়ুন্ছোয়ারূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১২) তারা (ইহুদিরা) যদি বহিষ্কৃত হয় তবে এরা (মুনাফিকরা) কখনো তাদের সাথে বেরিয়ে যাবে না আর তাদের (ইয়াহুদিদের) সাথে যদি যুদ্ধ করা হয় এরা (মুনাফিকরা) কখনো তাদেরকে সাহায্য করবে না। আর যদি তাদেরকে সাহায্য করে তবে তারা অবশ্যই পিঠ দেখিয়ে পালাবে; এরপর তারা কোন সাহায্যই পাবে না।


لَأَنْتُمْ أَشَدُّ رَهْبَةً فِي صُدُورِهِمْ مِنَ اللَّهِ ذَلِكَ بِأَنَّهُمْ قَوْمٌ لَا يَفْقَهُونَ 59.13


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৩) লা আন্তুম্ আশাদ্দু রহ্বাতান্ ফী ছুদূরিহিম্ মিনা ল্লা-হ্; যা-লিকা বিআন্নাহুম্ ক্বওমুল্ লা-ইয়াফ্ক্বহূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৩) প্রকৃতপক্ষে তাদের অন্তরে আল্লাহর চাইতে তোমাদের ভয় বেশী; এটা এ কারণে যে, তারা অবুঝ সম্প্রদায়।


لَا يُقَاتِلُونَكُمْ جَمِيعًا إِلَّا فِي قُرًى مُحَصَّنَةٍ أَوْ مِنْ وَرَاءِ جُدُرٍ بَأْسُهُمْ بَيْنَهُمْ شَدِيدٌ تَحْسَبُهُمْ جَمِيعًا وَقُلُوبُهُمْ شَتَّى ذَلِكَ بِأَنَّهُمْ قَوْمٌ لَا يَعْقِلُونَ 59.14


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৪) লা-ইয়ুক্ব-তিলূনাকুম্ জ্বামী‘আন্ ইল্লা-ফী কুরম্ মুহাছ্ ছনাতিন্ আও মিওঁ অর-য়ি জ্ব ুর্দু; বা”সুহুম্ বাইনাহুম্ শাদীদ্; তাহ্সাবুহুম্ জ্বামীয়াঁও অ কুলূবুহুম্ শাত্তা-; যা-লিকা বিআন্নাহুম্ ক্বওমুল্লা-ইয়া’ক্বিলূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৪) তারা সম্মিলিতিভাবে তোমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে না তবে সুরক্ষিত জনপদের মধ্যে অবস্থান করে বা দেয়ালের পেছন হতে; তারা নিজেরা নিজেদেরকে প্রবল শক্তিধর মনে করে; তুমি তাদেরকে ঐক্যবদ্ধ মনে করছ অথচ তাদের অন্তরসমূহ বিচ্ছিন। এটি এজন্য যে, তারা নির্বোধ সম্প্রদায়।


كَمَثَلِ الَّذِينَ مِنْ قَبْلِهِمْ قَرِيبًا ذَاقُوا وَبَالَ أَمْرِهِمْ وَلَهُمْ عَذَابٌ أَلِيمٌ 59.15


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৫) কামাছালিল্ লাযীনা মিন্ ক্বব্লিহিম্ ক্বরীবান্ যা-ক্ব ক্র অবা- লা আম্রিহিম্ অলাহুম্ ‘আযা-বুন্ আলীম্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৫) তাদের অব্যবহিত পূর্বসূরিদের ন্যায়, যারা নিজেদের কৃতকর্মের কুফল আস্বাদন করেছে; আর তাদের জন্য রয়েছে যন্ত্রনাদায়ক আযাব।


كَمَثَلِ الشَّيْطَانِ إِذْ قَالَ لِلْإِنْسَانِ اكْفُرْ فَلَمَّا كَفَرَ قَالَ إِنِّي بَرِيءٌ مِنْكَ إِنِّي أَخَافُ اللَّهَ رَبَّ الْعَالَمِينَ 59.16


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৬) কামাছালিশ্ শাইত্বোয়া-নি ইয্ ক্ব-লা লিল্ইন্সা-নিক্ র্ফু ফালাম্মা-কাফারা ক্ব-লা ইন্নী বারী-য়ুম্ মিন্কা ইন্নী য় আখ-ফুল্লা-হা রব্বাল্ ‘আ-লামীন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৬) এরা শয়তান-এর ন্যায়, সে মানুষকে বলেছিল, ‘কুফরি কর’, অতঃপর যখন সে কুফরি করল তখন সে বলল, আমি তোমার থেকে মুক্ত; নিশ্চয় আমি সকল সৃষ্টির রব আল্লাহকে ভয় করি।


فَكَانَ عَاقِبَتَهُمَا أَنَّهُمَا فِي النَّارِ خَالِدَيْنِ فِيهَا وَذَلِكَ جَزَاءُ الظَّالِمِينَ 59.17


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৭) ফাকা-না ‘আক্বিবাতাহুমা য় আন্নাহুমা-ফিন্না-রি খা-লিদাইনি ফীহা-; অযা-লিকা জ্বাযা-য়ুজ্ জোয়া-লিমীন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৭) তাদের দু জনের পরিণতি ছিল এই যে, তারা দু জনেই জাহান্নামী হবে, সেখানে তারা স্থায়ী হবে; আর এটাই যালিমদের প্রতিদান।


يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا اتَّقُوا اللَّهَ وَلْتَنْظُرْ نَفْسٌ مَا قَدَّمَتْ لِغَدٍ وَاتَّقُوا اللَّهَ إِنَّ اللَّهَ خَبِيرٌ بِمَا تَعْمَلُونَ 59.18


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৮) ইয়া য় আইয়্যুহাল্ লাযীনা আ-মানুত্তাকুল্লা-হা অল্ তার্ন্জু নাফ্সুম্ মা-ক্বাদ্দামাত্ লিগাদিন্ অত্তা কুল্লা-হ্; ইন্নাল্লা-হা খাবীরুম্ বিমা-তা’মালূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৮) হে ঈমানদারগণ, তোমরা আল্লাহকে ভয় কর; আর প্রত্যেকের উচিত চিন্তা করে দেখা সে আগামীকালের জন্য কি প্রেরণ করেছে; তোমরা আল্লাহকে ভয় কর। তোমরা যা কর নিশ্চয় আল্লাহ সে বিষয়ে সম্যক অবহিত।


وَلَا تَكُونُوا كَالَّذِينَ نَسُوا اللَّهَ فَأَنْسَاهُمْ أَنْفُسَهُمْ أُولَئِكَ هُمُ الْفَاسِقُونَ 59.19


আরবি উচ্চারণ

৫৯.১৯) অলা-তাকূনূ কাল্লাযীনা নাসুল্লা-হা ফাআন্সা-হুম্ আন্ফুসাহুম্; উলা-য়িকা হুমুল্ ফা-সিক্ব ক্রন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.১৯) তোমরা তাদের মত হইও না, যারা আল্লাহকে ভুলে গিয়েছিল ফলে আল্লাহও তাদেরকে আত্মবিস্মৃত করে দিয়েছিলেন; আর তারাই হল ফাসিক।


لَا يَسْتَوِي أَصْحَابُ النَّارِ وَأَصْحَابُ الْجَنَّةِ أَصْحَابُ الْجَنَّةِ هُمُ الْفَائِزُونَ 59.20


আরবি উচ্চারণ

৫৯.২০) লা-ইয়াস্তাওয়ী য় আছ্হা-বুন্না-রি অ আছ্হা-বুল্ জ্বান্নাহ্; আছহা-বুল্ জ্বান্না-তি হুমুল্ ফা-য়িযূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.২০) জাহান্নামবাসী ও জান্নাতবাসীরা সমান নয়; জান্নাতবাসীরাই সফলকাম।


لَوْ أَنْزَلْنَا هَذَا الْقُرْآنَ عَلَى جَبَلٍ لَرَأَيْتَهُ خَاشِعًا مُتَصَدِّعًا مِنْ خَشْيَةِ اللَّهِ وَتِلْكَ الْأَمْثَالُ نَضْرِبُهَا لِلنَّاسِ لَعَلَّهُمْ يَتَفَكَّرُونَ 59.21


আরবি উচ্চারণ

৫৯.২১) লাও আন্যালনা- হা-যাল্ কুরআ-না ‘আলা- জ্বাবালিল্ লারয়াইতাহূ খ-শি‘আম্ মুতাছোয়াদ্দি‘আম্ মিন্ খশ্ইয়াতি ল্লা-হ্; অতিল্কাল্ আম্ছা-লু নাদ্ব্রিবুহা-লিন্না-সি লা‘আল্লাহুম্ ইয়াতাফাক্কারূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.২১) এ কুরআনকে যদি আমি পাহাড়ের ওপর নাযিল করতাম তবে তুমি অবশ্যই তাকে দেখতে, আল্লাহর ভয়ে বিনীত ও বিদীর্ণ। মানুষের জন্য আমি এ উদাহরণগুলি পেশ করি; হয়ত তারা চিন্তাভাবনা করবে।


هُوَ اللَّهُ الَّذِي لَا إِلَهَ إِلَّا هُوَ عَالِمُ الْغَيْبِ وَالشَّهَادَةِ هُوَ الرَّحْمَنُ الرَّحِيمُ 59.22


আরবি উচ্চারণ

৫৯.২২) হুওয়াল্লা-হু ল্লাযী লা য় ইলা-হা ইল্লা হুওয়া ‘আ-লিমুল্ গইবি অশ্শাহা-দাতি হুওর্য়া রহ্মা-র্নু রহীম্ ।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.২২) তিনিই আল্লাহ, যিনি ছাড়া কোন ইলাহ নেই; দৃশ্য- অদৃশ্যের জ্ঞাতা; তিনিই পরম করুণাময়, দয়ালু।


هُوَ اللَّهُ الَّذِي لَا إِلَهَ إِلَّا هُوَ الْمَلِكُ الْقُدُّوسُ السَّلَامُ الْمُؤْمِنُ الْمُهَيْمِنُ الْعَزِيزُ الْجَبَّارُ الْمُتَكَبِّرُ سُبْحَانَ اللَّهِ عَمَّا يُشْرِكُونَ 59.23


আরবি উচ্চারণ

৫৯.২৩) হুওয়াল্লা-হুল্ লাযী লা য় ইলা-হা ইল্লা-হুওয়া আল্ মালিকুল্ কুদ্দূসুস্ সালা-মুল্ মুমিনুল্ মুহাইমিনুল্ ‘আযীযুল্ জ্বাব্বা-রুল্ মুতাকার্ব্বি; সুবহা-নাল্লা-হি ‘আম্মা- ইয়ুশ্রিকূন্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.২৩) তিনিই আল্লাহ; যিনি ছাড়া কোন ইলাহ নেই, তিনিই বাদশাহ, মহাপবিত্র, ত্রুটিমুক্ত, নিরাপত্তাদানকারী, রক্ষক, মহাপরাক্রমশালী, মহাপ্রতাপশালী, অতীব মহিমান্বিত, তারা যা শরীক করে তা হতে পবিত্র মহান।


هُوَ اللَّهُ الْخَالِقُ الْبَارِئُ الْمُصَوِّرُ لَهُ الْأَسْمَاءُ الْحُسْنَى يُسَبِّحُ لَهُ مَا فِي السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ وَهُوَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ 59.24


আরবি উচ্চারণ

৫৯.২৪) হুওয়া ল্লা-হুল্ খ-লিকুল্ বা-রিয়ুল্ মুছোয়াওয়্যিরু লাহুল্ আস্মা-য়ুল হুস্না-; ইয়ুসাব্বিহু লাহূ মা-ফিস্ সামা-ওয়া-তি অল্ র্আদ্বি অহুওয়াল্ ‘আযীযুল্ হাকীম্।


বাংলা অনুবাদ

৫৯.২৪) তিনিই আল্লাহ, স্রষ্টা, উদ্ভাবনকর্তা, আকৃতিদানকারী; তাঁর রয়েছে সুন্দর নামসমূহ; আসমান ও যমীনে যা আছে সবই তার মহিমা ঘোষণা করে। তিনি মহাপরাক্রমশারী, প্রজ্ঞাময়।


সূরাতুল ফিল


بِسمِ اللَّهِ الرَّحمٰنِ الرَّحيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

 শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু


[1]  أَلَم تَرَ كَيفَ فَعَلَ رَبُّكَ بِأَصحٰبِ الفيلِ

[1] আলাম্ তার কাইফা ফা‘আলা রব্বুকা বিআছ্হা-বিল্ ফীল্।

[1] আপনি কি দেখেননি আপনার পালনকর্তা হস্তীবাহিনীর সাথে কিরূপ ব্যবহার করেছেন?

 

[2]  أَلَم يَجعَل كَيدَهُم فى تَضليلٍ

[2] আলাম্ ইয়াজ‘আল্ কাইদাহুম্ ফী তাদ্ব্লীলিঁও

[2] তিনি কি তাদের চক্রান্ত নস্যাৎ করে দেননি?

 

[3]  وَأَرسَلَ عَلَيهِم طَيرًا أَبابيلَ

[3] অ র্আসালা ‘আলাইহিম্ ত্বোয়াইরন্ আবা-বীলা-

[3] তিনি তাদের উপর প্রেরণ করেছেন ঝাঁকে ঝাঁকে পাখী,

[4]  تَرميهِم بِحِجارَةٍ مِن سِجّيلٍ

[4] তারমীহিম্ বিহিজ্বা-রতিম্ মিন্ সিজ্জ্বীলিন্

[4] যারা তাদের উপর পাথরের কংকর নিক্ষেপ করছিল।

 

[5]  فَجَعَلَهُم كَعَصفٍ مَأكولٍ

[5] ফাজ্বা‘আলাহুম্ কা‘আছ্ফিম্ মাকূল্।

[5] অতঃপর তিনি তাদেরকে ভক্ষিত তৃণসদৃশ করে দেন।


সূরাতুল কদর


بِسمِ اللَّهِ الرَّحمٰنِ الرَّحيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

 শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু


[1]  إِنّا أَنزَلنٰهُ فى لَيلَةِ القَدرِ

[1] ইন্না য় আন্যাল্না-হু ফী লাইলাতিল্ ক্বদ্র্।

[1] আমি একে নাযিল করেছি শবে-কদরে।


[2]  وَما أَدرىٰكَ ما لَيلَةُ القَدرِ

[2] অমা য় আদ্র-কা মা-লাইলাতুল্ ক্বদ্র্।

[2] শবে-কদর সমন্ধে আপনি কি জানেন?

 

[3]  لَيلَةُ القَدرِ خَيرٌ مِن أَلفِ شَهرٍ

[3]  লাইলাতুল্ ক্বদ্রি খাইরুম্ মিন্ আল্ফি শাহ্র্ ।

[3] শবে-কদর হল এক হাজার মাস অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ।



[4]  تَنَزَّلُ المَلٰئِكَةُ وَالرّوحُ فيها بِإِذنِ رَبِّهِم مِن كُلِّ أَمرٍ

[4] তানায্যালুল্ মালা-য়িকাতু র্অরূহু ফীহা- বিইয্নি রব্বিহিম্ মিন্ কুল্লি আম্র্।

[4] এতে প্রত্যেক কাজের জন্যে ফেরেশতাগণ ও রূহ অবতীর্ণ হয় তাদের পালনকর্তার নির্দেশক্রমে।

 

[5]  سَلٰمٌ هِىَ حَتّىٰ مَطلَعِ الفَجرِ

[5]  সালা-মুন্ হিয়া হাত্তা- মাতলাই’ল্ ফাজর্।

[5] এটা নিরাপত্তা, যা ফজরের উদয় পর্যন্ত অব্যাহত থাকে।


সূরাতুল ইয়াসিন 



بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ

আরবি উচ্চারণ
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

বাংলা অনুবাদ
পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।

يس 36.1

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১। ইয়া-সী-ন্

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১ ইয়া-সীন।

وَالْقُرْآنِ الْحَكِيمِ 36.2

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২। অল্ ক্বর্ আ-নিল্ হাকীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২ বিজ্ঞানময় কুরআনের শপথ।

إِنَّكَ لَمِنَ الْمُرْسَلِينَ 36.3

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩। ইন্নাকা লামিনাল্ র্মুসালীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩ নিশ্চয় তুমি রাসূলদের অন্তর্ভুক্ত।

عَلَى صِرَاطٍ مُسْتَقِيمٍ 36.4

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪। ‘আলা-ছির-ত্বিম্ মুস্তাক্বীম্ ।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪ সরল পথের উপর প্রতিষ্ঠিত।

تَنْزِيلَ الْعَزِيزِ الرَّحِيمِ 36.5

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫। তান্যীলাল্ ‘আযীর্যি রহীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫ (এ কুরআন) মহাপরাক্রমশালী, পরম দয়াময় (আল্লাহ) কর্তৃক নাযিলকৃত।

لِتُنْذِرَ قَوْمًا مَا أُنْذِرَ آبَاؤُهُمْ فَهُمْ غَافِلُونَ 36.6

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬। লিতুন্যিরা ক্বওমাম্ মা য়উন্যিরা আ-বা-য়ুহুম্ ফাহুম্ গ-ফিলূন্ ।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬ যাতে তুমি এমন এক কওমকে সতর্ক কর, যাদের পিতৃপুরুষদেরকে সতর্ক করা হয়নি, কাজেই তারা উদাসীন।

لَقَدْ حَقَّ الْقَوْلُ عَلَى أَكْثَرِهِمْ فَهُمْ لَا يُؤْمِنُونَ 36.7

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭। লাক্বাদ্ হাকক্বল্ ক্বওলু ‘আলা য় আক্ছারিহিম্ ফাহুম্ লা-ইয়ুমিনূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭ অবশ্যই তাদের অধিকাংশের উপর (আল্লাহর) বাণী অবধারিত হয়েছে, ফলে তারা ঈমান আনবে না।

إِنَّا جَعَلْنَا فِي أَعْنَاقِهِمْ أَغْلَالًا فَهِيَ إِلَى الْأَذْقَانِ فَهُمْ مُقْمَحُونَ 36.8

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৮। ইন্না-জ্বা‘আল্না-ফী য় আ’না-ক্বিহিম্ আগ্লা-লান্ ফাহিয়া ইলাল্ আয্ক্বা-নি ফাহুম্ মুকমাহূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৮ নিশ্চয় আমি তাদের গলায় বেড়ি পরিয়ে দিয়েছি এবং তা চিবুক পর্যন্ত। ফলে তারা ঊর্ধ্বমুখী হয়ে আছে।

وَجَعَلْنَا مِنْ بَيْنِ أَيْدِيهِمْ سَدًّا وَمِنْ خَلْفِهِمْ سَدًّا فَأَغْشَيْنَاهُمْ فَهُمْ لَا يُبْصِرُونَ 36.9

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৯। অজ্বা‘আল্না-মিম্ বাইনি আইদী হিম্ সাদ্দাঁও মিন্ খল্ফিহিম্ সাদ্দান্ ফায়াগ্শাইনা-হুম ফাহুম্ লা-ইয়ুব্ছিরূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৯ আর আমি তাদের সামনে একটি প্রাচীর ও তাদের পিছনে একটি প্রাচীর স্থাপন করেছি, অতঃপর আমি তাদেরকে ঢেকে দিয়েছি, ফলে তারা দেখতে পায় না।

وَسَوَاءٌ عَلَيْهِمْ أَأَنْذَرْتَهُمْ أَمْ لَمْ تُنْذِرْهُمْ لَا يُؤْمِنُونَ 36.10

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১০। অসাওয়া-য়ুন্ ‘আলাইহিম্ আ আর্ন্যাতাহুম্ আম্ লাম্ তুর্ন্যিহুম্ লা-ইয়ুমিনূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১০ আর তুমি তাদেরকে সতর্ক কর অথবা না কর তাদের কাছে দু’টোই সমান, তারা ঈমান আনবে না।

إِنَّمَا تُنْذِرُ مَنِ اتَّبَعَ الذِّكْرَ وَخَشِيَ الرَّحْمَنَ بِالْغَيْبِ فَبَشِّرْهُ بِمَغْفِرَةٍ وَأَجْرٍ كَرِيمٍ 36.11

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১১। ইন্নামা-তুন্যিরু মানিত্তাবা‘আয্ যিকর অখশির্য়া রাহ্মা-না বিল্গাইবি ফাবার্শ্শিহু বিমাগ্ফিরতিঁও অআজরিন্ কারীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১১ তুমি তো কেবল তাকেই সতর্ক করবে যে উপদেশ মেনে চলে এবং না দেখেও পরম করুণাময় আল্লাহকে ভয় করে। অতএব তাকে তুমি ক্ষমা ও সম্মানজনক পুরস্কারের সুসংবাদ দাও।

إِنَّا نَحْنُ نُحْيِي الْمَوْتَى وَنَكْتُبُ مَا قَدَّمُوا وَآثَارَهُمْ وَكُلَّ شَيْءٍ أحْصَيْنَاهُ فِي إِمَامٍ مُبِينٍ 36.12

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১২। ইন্না-নাহ্নু নুহ্য়িল্ মাওতা- অনাক্তুবু মা-ক্বাদ্দামূ অআ-ছা-রহুম্; অকুল্লা শাইয়িন্ আহ্ছোয়াইনা-হু ফী য় ইমা-মিম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১২ আমিই তো মৃতকে জীবিত করি আর লিখে রাখি যা তারা অগ্রে প্রেরণ করে এবং যা পিছনে রেখে যায়। আর প্রতিটি বস্তুকেই আমি সুস্পষ্ট কিতাবে সংরক্ষণ করে রেখেছি।

وَاضْرِبْ لَهُمْ مَثَلًا أَصْحَابَ الْقَرْيَةِ إِذْ جَاءَهَا الْمُرْسَلُونَ 36.13

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৩। অদ্ব্রিব্ লাহুম্ মাছালান্ আছ্হা-বাল্ র্ক্বইয়াহ্; ইয্ জ্বা-য়াহাল্ র্মুসালূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৩ আর এক জনপদের অধিবাসীদের উপমা তাদের কাছে বর্ণনা কর, যখন তাদের কাছে রাসূলগণ এসেছিল।

إِذْ أَرْسَلْنَا إِلَيْهِمُ اثْنَيْنِ فَكَذَّبُوهُمَا فَعَزَّزْنَا بِثَالِثٍ فَقَالُوا إِنَّا إِلَيْكُمْ مُرْسَلُونَ 36.14

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৪। ইয্ র্আসালনা য় ইলাইহিমুছ্ নাইনি ফাকায্যাবূহুমা- ফা‘আয্যায্না-বিছা-লিছিন্ ফাক্ব-লূ য় ইন্না য় ইলাইকুম্ র্মুসালূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৪ যখন আমি তাদের কাছে দু’জন রাসূল পাঠিয়েছিলাম, তখন তারা তাদেরকে মিথ্যাবাদী বলেছিল। তারপর আমি তাদেরকে তৃতীয় একজনের মাধ্যমে শক্তিশালী করেছিলাম। অতঃপর তারা বলেছিল, ‘নিশ্চয় আমরা তোমাদের প্রতি প্রেরিত রাসূল’।

قَالُوا مَا أَنْتُمْ إِلَّا بَشَرٌ مِثْلُنَا وَمَا أَنْزَلَ الرَّحْمَنُ مِنْ شَيْءٍ إِنْ أَنْتُمْ إِلَّا تَكْذِبُونَ 36.15

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৫। ক্বা-লূ মা য় আন্তুম ইল্লা-বাশারুম্ মিছ্লুনা- অমা য় আন্যার্লা রহ্মা-নু মিন্ শাইয়িন্ ইন্ আন্তুম ইল্লা-তাক্যিবূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৫ তারা বলল, ‘তোমরা তো আমাদের মতই মানুষ। আর পরম করুণাময় তো কিছুই নাযিল করেননি। তোমরা শুধু মিথ্যাই বলছ।

قَالُوا رَبُّنَا يَعْلَمُ إِنَّا إِلَيْكُمْ لَمُرْسَلُونَ 36.16

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৬। ক্ব-লূ রব্বুনা-ইয়া’লামু ইন্না য় ইলাইকুম্ লার্মুসালূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৬ তারা বলল, ‘আমাদের রব জানেন, অবশ্যই আমরা তোমাদের কাছে প্রেরিত রাসূল’।

وَمَا عَلَيْنَا إِلَّا الْبَلَاغُ الْمُبِينُ 36.17

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৭। অমা- ‘আলাইনা য় ইল্লাল্ বালা-গুল্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৭ ‘আর সুস্পষ্টভাবে পৌঁছিয়ে দেয়াই আমাদের দায়িত্ব’।

قَالُوا إِنَّا تَطَيَّرْنَا بِكُمْ لَئِنْ لَمْ تَنْتَهُوا لَنَرْجُمَنَّكُمْ وَلَيَمَسَّنَّكُمْ مِنَّا عَذَابٌ أَلِيمٌ 36.18

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৮। ক্ব-লূ য় ইন্না-তাত্বোয়াইর্য়্যানা-বিকুম্, লায়িল্লাম্ তান্তাহূ লার্না জুমান্নাকুম্ অলা-ইয়ামাস্ সান্নাকুম্ মিন্না-‘আযা- বুন্ আলীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৮ তারা বলল, ‘আমরা তো তোমাদেরকে অমঙ্গলের কারণ মনে করি। তোমরা যদি বিরত না হও তাহলে আমরা অবশ্যই তোমাদেরকে পাথর মেরে হত্যা করব এবং আমাদের পক্ষ থেকে তোমাদেরকে যন্ত্রণাদায়ক আযাব স্পর্শ করবে’।

قَالُوا طَائِرُكُمْ مَعَكُمْ أَئِنْ ذُكِّرْتُمْ بَلْ أَنْتُمْ قَوْمٌ مُسْرِفُونَ 36.19

আরবি উচ্চারণ
৩৬.১৯। ক্ব-লূ ত্বোয়া-য়িরুকুম্ মা‘আকুম্ আয়িন্ যুর্ক্কিতুম্; বাল্ আন্তুম্ ক্বওমুম্ মুস্রিফূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.১৯ তারা বলল, তোমাদের অমঙ্গলের কারণ তোমাদের সাথেই। তোমাদেরকে উপদেশ দেয়া হয়েছে বলেই কি এরূপ বলছ? বরং তোমরা সীমালঙ্ঘনকারী কওম’।

وَجَاءَ مِنْ أَقْصَى الْمَدِينَةِ رَجُلٌ يَسْعَى قَالَ يَا قَوْمِ اتَّبِعُوا الْمُرْسَلِينَ 36.20

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২০। অজ্বা-য়া মিন্ আকছোয়াল্ মাদীনাতি রাজুলুঁই ইয়াস্‘আ-ক্ব-লা ইয়া-ক্বওমিত তাবি‘উল্ মুরসালীন্

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২০ আর শহরের দূরপ্রান্ত থেকে এক ব্যক্তি দৌড়ে এসে বলল, ‘হে আমার কওম! তোমরা রাসূলদের অনুসরণ কর।

اتَّبِعُوا مَنْ لَا يَسْأَلُكُمْ أَجْرًا وَهُمْ مُهْتَدُونَ 36.21

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২১। ইত্তাবি‘ঊ মাল্লা-ইয়াস্য়ালুকুম্ আজরঁও অহুম্ মুহ্তাদূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২১ ‘তোমরা তাদের অনুসরণ কর যারা তোমাদের কাছে কোন প্রতিদান চায় না আর তারা সৎপথপ্রাপ্ত’।

وَمَا لِيَ لَا أَعْبُدُ الَّذِي فَطَرَنِي وَإِلَيْهِ تُرْجَعُونَ 36.22

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২২। অমা-লিয়া লা য় আ’বুদুল্লাযী ফাত্বোয়ারানী অ ইলাইহি র্তুজ্বা‘ঊন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২২ ‘আর আমি কেন তাঁর ইবাদাত করব না যিনি আমাকে সৃষ্টি করেছেন? আর তাঁর কাছেই তোমাদেরকে ফিরিয়ে নেয়া হবে’।

أَأَتَّخِذُ مِنْ دُونِهِ آلِهَةً إِنْ يُرِدْنِ الرَّحْمَنُ بِضُرٍّ لَا تُغْنِ عَنِّي شَفَاعَتُهُمْ شَيْئًا وَلَا يُنْقِذُونِ 36.23

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৩। আ আত্তাখিযু মিন্ দূনিহী য় আ- লিহাতান্ ইঁইয়্যুরির্দ্নি রহমা-নু বির্দ্বুরিল্ লা-তুগ্নি ‘আন্নী শাফা-‘আতুহুম্ শাইয়াঁও অলা-ইয়ুন্ক্বিযূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৩ আমি কি তাঁর পরিবর্তে অন্য ইলাহ গ্রহণ করব? যদি পরম করুণাময় আমার কোন ক্ষতি করার ইচ্ছা করেন, তাহলে তাদের সুপারিশ আমার কোন কাজে আসবে না এবং তারা আমাকে উদ্ধারও করতে পারবে না’।

إِنِّي إِذًا لَفِي ضَلَالٍ مُبِينٍ 36.24

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৪। ইন্নী য় ইযাল্লাফী দ্বলা-লিম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৪ ‘এরূপ করলে নিশ্চয় আমি স্পষ্ট বিভ্রান্তিতে পতিত হব’।

إِنِّي آمَنْتُ بِرَبِّكُمْ فَاسْمَعُونِ 36.25

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৫। ইন্নী য় আ-মান্তু বিরব্বিকুম্ ফাস্মা‘ঊন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৫ ‘নিশ্চয় আমি তোমাদের রবের প্রতি ঈমান এনেছি, অতএব তোমরা আমার কথা শোন’।

قِيلَ ادْخُلِ الْجَنَّةَ قَالَ يَا لَيْتَ قَوْمِي يَعْلَمُونَ 36.26

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৬। ক্বীলাদ্ খুলিল্ জ্বান্নাহ্; ক্ব-লা ইয়ালাইতা ক্বওমী ইয়া’লামূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৬ তাকে বলা হল, ‘জান্নাতে প্রবেশ কর’। সে বলল, ‘হায়! আমার কওম যদি জানতে পারত’,

بِمَا غَفَرَ لِي رَبِّي وَجَعَلَنِي مِنَ الْمُكْرَمِينَ 36.27

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৭। বিমা-গফারলী রব্বী অ জ্বা‘আলানী মিনাল্ মুক্রমীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৭ ‘আমার রব আমাকে কিসের বিনিময়ে ক্ষমা করে দিয়েছেন এবং আমাকে সম্মানিতদের অন্তর্ভুক্ত করেছেন’।

وَمَا أَنْزَلْنَا عَلَى قَوْمِهِ مِنْ بَعْدِهِ مِنْ جُنْدٍ مِنَ السَّمَاءِ وَمَا كُنَّا مُنْزِلِينَ 36.28

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৮। অমা য় আন্যাল্না ‘আলা- ক্বওমিহী মিম্ বা’দিহী মিন্ জুন্দিম্ মিনাস্ সামা-য়ি অমা- কুন্না-মুন্যিলীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৮ আর আমি তার (মৃত্যুর) পর তার কওমের বিরুদ্ধে আসমান থেকে কোন সৈন্য পাঠাইনি। আর তা পাঠানোর কোন দরকারও আমার ছিল না।

إِنْ كَانَتْ إِلَّا صَيْحَةً وَاحِدَةً فَإِذَا هُمْ خَامِدُونَ 36.29

আরবি উচ্চারণ
৩৬.২৯। ইন্ কা-নাত্ ইল্লা-ছোয়াইহাতাঁও ওয়া-হিদাতান্ ফাইযা-হুম্ খ-মিদূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.২৯ তা ছিল শুধুই একটি বিকট আওয়াজ, ফলে তারা নিথর-নিস্তব্ধ হয়ে পড়ল।

يَا حَسْرَةً عَلَى الْعِبَادِ مَا يَأْتِيهِمْ مِنْ رَسُولٍ إِلَّا كَانُوا بِهِ يَسْتَهْزِئُونَ 36.30

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩০। ইয়া-হাস্রতান্ ‘আলাল্ ‘ইবা-দি মা-ইয়াতীহিম্ র্মি রসূলিন্ ইল্লা-কা-নূ বিহী ইয়াস্তাহ্যিয়ূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩০ আফসোস, বান্দাদের জন্য! যখনই তাদের কাছে কোন রাসূল এসেছে তখনই তারা তাকে নিয়ে ঠাট্টা-বিদ্রুপ করেছে।

أَلَمْ يَرَوْا كَمْ أَهْلَكْنَا قَبْلَهُمْ مِنَ الْقُرُونِ أَنَّهُمْ إِلَيْهِمْ لَا يَرْجِعُونَ 36.31

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩১। আলাম্ ইয়ারও কাম্ আহ্লাক্না-ক্বব্লাহুম্ মিনাল্ কুরূনি আন্নাহুম্ ইলাইহিম্ লা-ইর্য়াজ্বি‘ঊন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩১ তারা কি লক্ষ্য করেনি যে, আমি তাদের পূর্বে কত প্রজন্মকে ধ্বংস করেছি, নিশ্চয় যাঁরা তাদের কাছে ফিরে আসবে না।

وَإِنْ كُلٌّ لَمَّا جَمِيعٌ لَدَيْنَا مُحْضَرُونَ 36.32

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩২। অইন্ কুল্লুল্লাম্মা-জ্বামী‘উল্লাদাইনা-মুহ্দ্বোয়ারূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩২ আর তাদের সকলকে একত্রে আমার কাছে হাযির করা হবে।

وَآيَةٌ لَهُمُ الْأَرْضُ الْمَيْتَةُ أَحْيَيْنَاهَا وَأَخْرَجْنَا مِنْهَا حَبًّا فَمِنْهُ يَأْكُلُونَ 36.33

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৩। অ আ-ইয়াতু ল্লাহুমুল্ র্আদুল্ মাইতাতু আহ্ইয়াইনা-হা অ আখ্রজনা-মিন্হা-হাব্বান্ ফামিন্হু ইয়াকুলূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৩ আর মৃত যমীন তাদের জন্য একটি নিদর্শন, আমি তাকে জীবিত করেছি এবং তা থেকে শস্যদানা উৎপন্ন করেছি। অতঃপর তা থেকেই তারা খায়।

وَجَعَلْنَا فِيهَا جَنَّاتٍ مِنْ نَخِيلٍ وَأَعْنَابٍ وَفَجَّرْنَا فِيهَا مِنَ الْعُيُونِ 36.34

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৪। অজ্বা‘আল্না- ফীহা-জ্বান্না-তিম্ মিন্ নাখীলিঁও অআ’না বিঁও অফার্জ্জ্বানা-ফীহা-মিনাল্ ‘উইয়ূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৪ আর আমি তাতে খেজুর ও আঙ্গুরের বাগান তৈরী করেছি এবং তাতে কিছু ঝর্নাধারা প্রবাহিত করি।

لِيَأْكُلُوا مِنْ ثَمَرِهِ وَمَا عَمِلَتْهُ أَيْدِيهِمْ أَفَلَا يَشْكُرُونَ 36.35

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৫। লিয়াকুলূ মিন্ ছামারিহী অমা ‘আমিলাত্হু আইদীহিম্; আফালা-ইয়াশ্কুরূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৫ যাতে তারা তার ফল খেতে পারে, অথচ তাদের হাত তা বানায়নি। তবুও কি তারা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবে না?

سُبْحَانَ الَّذِي خَلَقَ الْأَزْوَاجَ كُلَّهَا مِمَّا تُنْبِتُ الْأَرْضُ وَمِنْ أَنْفُسِهِمْ وَمِمَّا لَا يَعْلَمُونَ 36.36

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৬। সুব্হা-নাল্লাযী খলাক্বল্ আয্ওয়াজ্বা কুল্লাহা-মিম্মা-তুম্বিতুল্ র্আদু অমিন্ আন্ফুসিহিম্ অমিম্মা-লা-ইয়া’লামূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৬ পবিত্র ও মহান সে সত্তা যিনি সকল জোড়া জোড়া সৃষ্টি করেছেন, যমীন যা উৎপন্ন করেছে তা থেকে, মানুষের নিজদের মধ্য থেকে এবং সে সব কিছু থেকেও যা তারা জানে না ।

وَآيَةٌ لَهُمُ اللَّيْلُ نَسْلَخُ مِنْهُ النَّهَارَ فَإِذَا هُمْ مُظْلِمُونَ 36.37

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৭। অআ-ইয়াতুল্লা হুমুল্ লাইলু নাস্লাখু মিন্ হুন্নাহা-র ফাইযা-হুম্ মুজ্লিমূন্

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৭ আর রাত তাদের জন্য একটি নিদর্শন; আমি তা থেকে দিনকে সরিয়ে নেই, ফলে তখনই তারা অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে যায়।

وَالشَّمْسُ تَجْرِي لِمُسْتَقَرٍّ لَهَا ذَلِكَ تَقْدِيرُ الْعَزِيزِ الْعَلِيمِ 36.38

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৮। অশ্শাম্সু তাজ্ব্রী লিমুস্তার্ক্বরিল্লাহা-; যা-লিকা তাকদীরুল্ ‘আযীযিল্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৮ আর সূর্য ভ্রমণ করে তার নির্দিষ্ট পথে, এটা মহাপরাক্রমশালী সর্বজ্ঞ (আল্লাহ)-র নির্ধারণ।

وَالْقَمَرَ قَدَّرْنَاهُ مَنَازِلَ حَتَّى عَادَ كَالْعُرْجُونِ الْقَدِيمِ 36.39

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৩৯। অল্ ক্বমার ক্বর্দ্দানা-হু মানা-যিলা হাত্তা- ‘আ-দা কাল্ ‘র্উজুনিল্ ক্বদীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৩৯ আর চাঁদের জন্য আমি নির্ধারণ করেছি মানযিলসমূহ, অবশেষে সেটি খেজুরের শুষ্ক পুরাতন শাখার মত হয়ে যায়।

لَا الشَّمْسُ يَنْبَغِي لَهَا أَنْ تُدْرِكَ الْقَمَرَ وَلَا اللَّيْلُ سَابِقُ النَّهَارِ وَكُلٌّ فِي فَلَكٍ يَسْبَحُونَ 36.40

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪০। লাশ্ শাম্সু ইয়াম্বাগী লাহা য় আন্ তুদ্রিকাল্ ক্বমার অলাল্লাইলু সা-বিকুন্ নাহার্-; অ কুল্লুন্ ফী ফালাকিইঁ ইয়াস্বাহূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪০ সূর্যের জন্য সম্ভব নয় চাঁদের নাগাল পাওয়া, আর রাতের জন্য সম্ভব নয় দিনকে অতিক্রম করা, আর প্রত্যেকেই কক্ষ পথে ভেসে বেড়ায়।

وَآيَةٌ لَهُمْ أَنَّا حَمَلْنَا ذُرِّيَّتَهُمْ فِي الْفُلْكِ الْمَشْحُونِ 36.41

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪১। অ আ-ইয়াতুল্লাহুম্ আন্না-হামাল্না র্যুরিয়্যাতাহুম্ ফিল্ ফুল্কিল্ মাশ্হূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪১ আর তাদের জন্য একটি নিদর্শন হল, অবশ্যই আমি তাদের বংশধরদেরকে ভরা নৌকায় আরোহণ করিয়েছিলাম।

وَخَلَقْنَا لَهُمْ مِنْ مِثْلِهِ مَا يَرْكَبُونَ 36.42

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪২। অখলাক্ব্না-লাহুম্ মিম্ মিছ্লিহী মা-ইর্য়াকাবূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪২ আর তাদের জন্য তার অনুরূপ (যানবাহন) সৃষ্টি করেছি, যাতে তারা আরোহণ করে।

وَإِنْ نَشَأْ نُغْرِقْهُمْ فَلَا صَرِيخَ لَهُمْ وَلَا هُمْ يُنْقَذُونَ 36.43

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৩। অইন্ নাশানুগ্রিক হুম্ ফালা-ছোয়ারীখ লাহুম্ অলা-হুম্ ইয়ুন্ক্বযূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৩ আর যদি আমি চাই তাদেরকে নিমজ্জিত করে দেই, তখন তাদের জন্য কোন সাহায্যকারী থাকে না এবং তাদেরকে উদ্ধারও করা হয় না।

إِلَّا رَحْمَةً مِنَّا وَمَتَاعًا إِلَى حِينٍ 36.44

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৪। ইল্লা-রহ্মাতাম্ মিন্না- অমাতা-‘আন্ ইলা-হীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৪ যদি না আমার পক্ষ থেকে রহমত হয় এবং কিছু সময়ের জন্য উপভোগের সুযোগ দেয়া হয়।

وَإِذَا قِيلَ لَهُمُ اتَّقُوا مَا بَيْنَ أَيْدِيكُمْ وَمَا خَلْفَكُمْ لَعَلَّكُمْ تُرْحَمُونَ 36.45

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৫। অইযা-ক্বীলা লাহুমুত্তাকু মা-বাইনা আইদীকুম্ অমা-খল্ফাকুম্ লা‘আল্লাকুম্ র্তুহামূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৫ আর যখন তাদেরকে বলা হয়, যা তোমাদের সামনে আছে এবং যা তোমাদের পিছনে আছে সে বিষয়ে সতর্ক হও, যাতে তোমাদের প্রতি অনুগ্রহ করা যায়।

وَمَا تَأْتِيهِمْ مِنْ آيَةٍ مِنْ آيَاتِ رَبِّهِمْ إِلَّا كَانُوا عَنْهَا مُعْرِضِينَ 36.46

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৬। অমা-তাতীহিম্ মিন্ আ-ইয়া-তীম্ মিন্ আ-ইয়া-তি রব্বিহিম্ ইল্লা-কা-নূ ‘আন্হা-মু’রিদ্বীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৬ আর তাদের রবের নিদর্শনসমূহ থেকে তাদের কাছে কোন নিদর্শন আসলেই তারা তা থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়।

وَإِذَا قِيلَ لَهُمْ أَنْفِقُوا مِمَّا رَزَقَكُمُ اللَّهُ قَالَ الَّذِينَ كَفَرُوا لِلَّذِينَ آمَنُوا أَنُطْعِمُ مَنْ لَوْ يَشَاءُ اللَّهُ أَطْعَمَهُ إِنْ أَنْتُمْ إِلَّا فِي ضَلَالٍ مُبِينٍ 36.47

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৭। অ ইযা- ক্বীলা লাহুম্ আনফিকু মিম্মা-রযাক্ব কুমুল্লা-হু ক্ব-লাল্লাযীনা কাফারূ লিল্লাযীনা আ-মানূ য় আনুত্ব‘ইমু মাল্লাও ইয়াশা-য়ুল্লা-হু আত্ব্‘আমাহূ য় ইন্ আন্তুম্ ইল্লা-ফী দ্বোয়ালা-লিম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৭ আর যখন তাদেরকে বলা হয়, ‘আল্লাহ তোমাদেরকে যে রিয্ক দিয়েছেন তা থেকে তোমরা ব্যয় কর’, তখন কাফিররা মুমিনদেরকে বলে, ‘আমরা কি তাকে খাদ্য দান করব, আল্লাহ চাইলে যাকে খাদ্য দান করতেন? তোমরা তো স্পষ্ট পথভ্রষ্টতায় রয়েছ’।

وَيَقُولُونَ مَتَى هَذَا الْوَعْدُ إِنْ كُنْتُمْ صَادِقِينَ 36.48

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৮। অ ইয়াকুলূনা মাতা-হা-যাল্ ওয়া’দু ইন্ কুন্তুম্ ছোয়া-দিক্বীন্

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৮ আর তারা বলে, ‘এ ওয়াদা কখন বাস্তবায়িত হবে’? (তা বল) ‘যদি তোমরা সত্যবাদী হও’।

مَا يَنْظُرُونَ إِلَّا صَيْحَةً وَاحِدَةً تَأْخُذُهُمْ وَهُمْ يَخِصِّمُونَ 36.49

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৪৯। মা-ইয়ান্জুরূনা ইল্লা-ছোয়াইঁহাতাওঁ ওয়া-হিদাতান্ তাখুযুহুম্ অহুম্ ইয়াখিছ্ছিমূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৪৯ তারা তো কেবল এক বিকট আওয়াজের অপেক্ষা করছে যা তাদেরকে বাক-বিতণ্ডায় লিপ্ত অবস্থায় পাকড়াও করবে।

فَلَا يَسْتَطِيعُونَ تَوْصِيَةً وَلَا إِلَى أَهْلِهِمْ يَرْجِعُونَ 36.50

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫০। ফালা-ইয়াস্তাত্বী‘ঊনা তাওছিয়াতাঁও অলা য় ইলা য় আহ্লিহিম্ ইর্য়াজ্বি‘ঊন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫০ সুতরাং না পারবে তারা ওসিয়াত করতে এবং না পারবে তাদের পরিবার-পরিজনের কাছে ফিরে যেতে।

وَنُفِخَ فِي الصُّورِ فَإِذَا هُمْ مِنَ الْأَجْدَاثِ إِلَى رَبِّهِمْ يَنْسِلُونَ 36.51

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫১। অনুফিখ ফিছ্ ছূরি ফাইযা-হুম্ মিনাল্ আজদা-ছি ইলা-রব্বিহিম্ ইয়ান্সিলূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫১ আর শিঙ্গায় ফুঁক দেয়া হবে, তৎক্ষণাৎ তারা কবর থেকে তাদের রবের দিকে ছুটে আসবে।

قَالُوا يَا وَيْلَنَا مَنْ بَعَثَنَا مِنْ مَرْقَدِنَا هَذَا مَا وَعَدَ الرَّحْمَنُ وَصَدَقَ الْمُرْسَلُونَ 36.52

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫২। ক্ব-লূ ইয়া-অইলানা-মাম্ বা‘আছানা-মিম্ র্মাক্বদিনা-,হা-যা-মা-অ‘আর্দা রহ্মা-নু অ ছদাক্বাল্ র্মুসালূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫২ তারা বলবে, ‘হায় আমাদের দুর্ভোগ! কে আমাদেরকে আমাদের নিদ্রাস্থল থেকে উঠালো’? (তাদেরকে বলা হবে) ‘এটা তো তা যার ওয়াদা পরম করুনাময় করেছিলেন এবং রাসূলগণ সত্য বলেছিলেন’।

إِنْ كَانَتْ إِلَّا صَيْحَةً وَاحِدَةً فَإِذَا هُمْ جَمِيعٌ لَدَيْنَا مُحْضَرُونَ 36.53

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৩। ইন্ কা- নাত্ ইল্লা- ছোয়াইহাতাঁও ওয়া-দাহিদাতান্ ফাইযা-হুম্ জ্বামী‘উল্ লাদাইনা-মুহ্দ্বোয়ারূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৩ তা ছিল শুধুই একটি বিকট আওয়াজ, ফলে তৎক্ষণাৎ তাদের সকলকে আমার সামনে উপস্থিত করা হবে।

فَالْيَوْمَ لَا تُظْلَمُ نَفْسٌ شَيْئًا وَلَا تُجْزَوْنَ إِلَّا مَا كُنْتُمْ تَعْمَلُونَ 36.54

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৪। ফাল্ ইয়াওমা লা-তুজ্লামু নাফ্সুন্ শাইয়াঁও অলা-তুজযাওনা ইল্লা-মা-কুন্তুম্ তা’মালূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৪ সুতরাং আজ কাউকেই কোন যুলম করা হবে না এবং তোমরা যা আমল করছিলে শুধু তারই প্রতিদান তোমাদের দেয়া হবে।

إِنَّ أَصْحَابَ الْجَنَّةِ الْيَوْمَ فِي شُغُلٍ فَاكِهُونَ 36.55

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৫। ইন্না আছ্হা-বাল্ জ্বান্নাতিল্ ইয়াওমা ফী শুগুলিন্ ফাকিহূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৫ নিশ্চয় জান্নাতবাসীরা আজ আনন্দে মশগুল থাকবে।

هُمْ وَأَزْوَاجُهُمْ فِي ظِلَالٍ عَلَى الْأَرَائِكِ مُتَّكِئُونَ 36.56

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৬। হুম্ অআয্ওয়া-জুহুম্ ফী জিলা-লিন্ ‘আলাল্ আর-য়িকি মুত্তাকিয়ূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৬ তারা ও তাদের স্ত্রীরা ছায়ার মধ্যে সুসজ্জিত আসনে হেলান দিয়ে উপবিষ্ট থাকবে।

لَهُمْ فِيهَا فَاكِهَةٌ وَلَهُمْ مَا يَدَّعُونَ 36.57

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৭। লাহুম্ ফীহা-ফা-কিহাতুঁও অলাহুম্ মা- ইয়াদ্দা‘ঊন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৭ সেখানে তাদের জন্য থাকবে ফল-ফলাদি এবং থাকবে তারা যা চাইবে তাও।

سَلَامٌ قَوْلًا مِنْ رَبٍّ رَحِيمٍ 36.58

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৮। সালা-মুন্ ক্বওলাম্ র্মি রর্ব্বি রহীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৮ অসীম দয়ালু রবের পক্ষ থেকে বলা হবে, ‘সালাম’।

وَامْتَازُوا الْيَوْمَ أَيُّهَا الْمُجْرِمُونَ 36.59

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৫৯। ওয়াম্তা-যুল্ ইয়াওমা আইয়ুহাল্ মুজরিমূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৫৯ আর [বলা হবে] ‘হে অপরাধীরা, আজ তোমরা পৃথক হয়ে যাও’।

أَلَمْ أَعْهَدْ إِلَيْكُمْ يَا بَنِي آدَمَ أَنْ لَا تَعْبُدُوا الشَّيْطَانَ إِنَّهُ لَكُمْ عَدُوٌّ مُبِينٌ 36.60

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬০। আলাম্ আ’হাদ্ ইলাইকুম্ ইয়া-বানী য় আ-দামা আল্লা-তা’বুদুশ্ শাইত্বোয়া-না ইন্নাহূ লাকুম্ ‘আদুওয়্যুম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬০ হে বনী আদম, আমি কি তোমাদেরকে এ মর্মে নির্দেশ দেইনি যে, ‘তোমরা শয়তানের উপাসনা করো না। নিঃসন্দেহে সে তোমাদের প্রকাশ্য শত্র“’?

وَأَنِ اعْبُدُونِي هَذَا صِرَاطٌ مُسْتَقِيمٌ 36.61

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬১। অআ নি’বুদূনী হা-যা-ছির- তুম্ মুস্তাক্বীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬১ আর আমারই ইবাদাত কর। এটিই সরল পথ।

وَلَقَدْ أَضَلَّ مِنْكُمْ جِبِلًّا كَثِيرًا أَفَلَمْ تَكُونُوا تَعْقِلُونَ 36.62

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬২। অলাক্বদ্ আদ্বোয়াল্লা মিন্কুম্ জ্বিবিল্লান্ কাছীর-; আফালাম্ তাকূনূ তা’ক্বিলূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬২ আর অবশ্যই শয়তান তোমাদের বহু দলকে পথভ্রষ্ট করেছে। তবুও কি তোমরা অনুধাবন করনি?

هَذِهِ جَهَنَّمُ الَّتِي كُنْتُمْ تُوعَدُونَ 36.63

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৩। হা-যিহী জ্বাহান্নামুল্লাতী কুন্তুম্ তূ‘আদূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৩ এটি সেই জাহান্নাম যার সম্পর্কে তোমরা ওয়াদাপ্রাপ্ত হয়েছিলে।

اصْلَوْهَا الْيَوْمَ بِمَا كُنْتُمْ تَكْفُرُونَ 36.64

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৪। ইছ্লাওহাল্ ইয়াওমা বিমা-কুন্তুম্ তাক্ফুরূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৪ তোমরা যে কুফরী করতে সে কারণে আজ তোমরা এতে প্রবেশ কর।

الْيَوْمَ نَخْتِمُ عَلَى أَفْوَاهِهِمْ وَتُكَلِّمُنَا أَيْدِيهِمْ وَتُكَلِّمُنَا أَيْدِيهِمْ وَتَشْهَدُ أَرْجُلُهُمْ بِمَا كَانُوا يَكْسِبُونَ 36.65

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৫। আল্ইয়াওমা নাখ্তিমু ‘আলা য় আফ্ওয়া-হিহিম্ অ তুকাল্লিমুনা য় আইদীহিম্ অতাশ্হাদু র্আজুলুহুম্ বিমা-কা-নূ ইয়াক্সিবূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৫ আজ আমি তাদের মুখে মোহর মেরে দেব এবং তাদের হাত আমার সাথে কথা বলবে ও তাদের পা সে সম্পর্কে সাক্ষ্য দেবে যা তারা অর্জন করত।

وَلَوْ نَشَاءُ لَطَمَسْنَا عَلَى أَعْيُنِهِمْ فَاسْتَبَقُوا الصِّرَاطَ فَأَنَّى يُبْصِرُونَ 36.66

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৬। অলাও নাশা-য়ু লাত্বোয়ামাস্না-‘আলা য় আ’ ইয়ুনিহিম্ ফাস্তাবাক্বছ্ ছির-ত্বোয়া ফাআন্না-ইয়ুব্ছিরূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৬ আর যদি আমি চাইতাম তবে তাদের চোখসমূহ অন্ধ করে দিতাম। তখন এরা পথের অন্বেষণে দৌড়ালে কী করে দেখতে পেত?

وَلَوْ نَشَاءُ لَمَسَخْنَاهُمْ عَلَى مَكَانَتِهِمْ فَمَا اسْتَطَاعُوا مُضِيًّا وَلَا يَرْجِعُونَ 36.67

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৭। অলাও নাশা-য়ু লামাসাখ্না-হুম্ ‘আলা-মাকা-নাতিহিম্ ফামাস্ তাত্বোয়া-‘ঊ মুদ্বিয়্যাওঁ অলা- ইর্য়াজ্বি‘ঊন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৭ আর আমি যদি চাইতাম তবে তাদের স্ব স্ব স্থানে তাদেরকে বিকৃত করে দিতাম। ফলে তারা সামনেও এগিয়ে যেতে পারত না এবং পিছনেও ফিরে আসতে পারত না।

وَمَنْ نُعَمِّرْهُ نُنَكِّسْهُ فِي الْخَلْقِ أَفَلَا يَعْقِلُونَ 36.68

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৮। অ মান্ নু‘আ র্ম্মিহু নুনাক্কিস্হু ফিল্ খল্ক্ব ; আফালা-ইয়া’ক্বিলূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৮ আর আমি যাকে দীর্ঘ জীবন দান করি, সৃষ্টি-অবয়বে আমি তার পরিবর্তন ঘটাই। তবুও কি তারা বুঝবে না

وَمَا عَلَّمْنَاهُ الشِّعْرَ وَمَا يَنْبَغِي لَهُ إِنْ هُوَ إِلَّا ذِكْرٌ وَقُرْآنٌ مُبِينٌ 36.69

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৬৯। অমা-‘আল্লাম্না-হুশ্ শি’রা অমা-ইয়াম্বাগী লাহ্; ইন্ হুওয়া ইল্লা-যিক্রুঁও অক্বর্ আ-নুম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৬৯ আমি রাসূলকে কাব্য শিখাইনি এবং এটি তার জন্য শোভনীয়ও নয়। এ তো কেবল এক উপদেশ ও স্পষ্ট কুরআন মাত্র।

لِيُنْذِرَ مَنْ كَانَ حَيًّا وَيَحِقَّ الْقَوْلُ عَلَى الْكَافِرِينَ 36.70

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭০। লিইয়ুন্যির মান্ কা-না হাইয়্যাঁও অ ইয়াহিকক্বল্ ক্বওলু ‘আলাল্ কা-ফিরীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭০ যাতে তা সতর্ক করতে পারে ঐ ব্যক্তিকে যে জীবিত এবং যাতে কাফিরদের বিরুদ্ধে অভিযোগবাণী প্রমাণিত হয়।

أَوَلَمْ يَرَوْا أَنَّا خَلَقْنَا لَهُمْ مِمَّا عَمِلَتْ أَيْدِينَا أَنْعَامًا فَهُمْ لَهَا مَالِكُونَ 36.71

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭১। আওয়া লাম্ ইয়ারাও আন্না-খলাক্না-লাহুম্ মিম্মা-‘আমিলাত্ আইদীনা য় আন্‘আ-মান্ ফাহুম্ লাহা-মা-লিকূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭১ তারা কি দেখেনি, আমার হাতের তৈরী বস্তুসমূহের মধ্যে আমি তাদের জন্য চতুষ্পদ জন্তু সৃষ্টি করেছি। অতঃপর তারা হল এগুলোর মালিক।

وَذَلَّلْنَاهَا لَهُمْ فَمِنْهَا رَكُوبُهُمْ وَمِنْهَا يَأْكُلُونَ 36.72

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭২। অ যাল্লাল্না-হা লাহুম্ ফামিন্হা- রকূবুহুম্ অ মিন্হা-ইয়াকুলূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭২ আর আমি এগুলোকে তাদের বশীভূত করে দিয়েছি। ফলে এদের কতক তাদের বাহন এবং কতক তারা ভক্ষণ করে।

وَلَهُمْ فِيهَا مَنَافِعُ وَمَشَارِبُ أَفَلَا يَشْكُرُونَ 36.73

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৩। অলাহুম্ ফীহা-মানা-ফি‘ঊ অমাশা-রিব্; আফালা- ইয়াশ্কুরূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৩ আর তাদের জন্য এগুলোতে রয়েছে আরও বহু উপকারিতা ও পানীয় উপাদান। তবুও কি তারা শোকর আদায় করবে না?

وَاتَّخَذُوا مِنْ دُونِ اللَّهِ آلِهَةً لَعَلَّهُمْ يُنْصَرُونَ 36.74

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৪। অত্তাখযূ মিন্ দূনিল্লা-হি আ-লিহাতাল্ লা‘আল্লাহুম্ ইয়ুন্ছোয়ারূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৪ অথচ তারা আল্লাহর পরিবর্তে অন্য সব ইলাহ গ্রহণ করেছে, এই প্রত্যাশায় যে, তারা সাহায্যপ্রাপ্ত হবে।

لَا يَسْتَطِيعُونَ نَصْرَهُمْ وَهُمْ لَهُمْ جُنْدٌ مُحْضَرُونَ36.75

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৫। লা-ইয়াস্তাত্বী‘ঊনা নাছ্রহুম্ অহুম্ লাহুম্ জ্বুন্দুম্ মুহ্দ্বোয়ারূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৫ এরা তাদের কোন সাহায্য করতে সক্ষম হবে না, বরং এগুলোকে তাদের বিরুদ্ধে বাহিনীরূপে হাযির করা হবে।

فَلَا يَحْزُنْكَ قَوْلُهُمْ إِنَّا نَعْلَمُ مَا يُسِرُّونَ وَمَا يُعْلِنُونَ 36.76

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৬। ফালা- ইয়াহ্যুন্কা ক্বওলুহুম্; ইন্না-না’লামু মা-ইয়ুর্সিরূনা অমা-ইয়ু’লিনূন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৬ সুতরাং তাদের কথা তোমাকে যেন চিন্তিত না করে, নিশ্চয় আমি জানি তারা যা গোপন করে এবং যা প্রকাশ করে।

أَوَلَمْ يَرَ الْإِنْسَانُ أَنَّا خَلَقْنَاهُ مِنْ نُطْفَةٍ فَإِذَا هُوَ خَصِيمٌ مُبِينٌ 36.77

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৭। আওয়ালাম্ ইয়ারল্ ইন্সা-নু আন্না-খলাক্ব্ না-হু মিন্ নুত্ব্ ফাত্ব্ন্ ফাইযা-হুঅ খছীমুম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৭ মানুষ কি দেখেনি যে, আমি তাকে সৃষ্টি করেছি শুক্রবিন্দু থেকে? অথচ সে (বনে যায়) একজন প্রকাশ্য কুটতর্ককারী।

وَضَرَبَ لَنَا مَثَلًا وَنَسِيَ خَلْقَهُ قَالَ مَنْ يُحْيِي الْعِظَامَ وَهِيَ رَمِيمٌ 36.78

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৮। অ দ্বোয়ারাবা লানা-মাছালাঁও অ নাসিয়া খল্ক্বাহ্; ক্ব-লা মাইঁ ইয়ুহ্য়িল্ ‘ইজোয়া-মা অহিয়া রমীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৮ আর সে আমার উদ্দেশ্যে উপমা পেশ করে, অথচ সে তার নিজের সৃষ্টি ভুলে যায়। সে বলে, ‘হাড়গুলো জরাজীর্ণ হওয়া অবস্থায় কে সেগুলো জীবিত করবে’?

قُلْ يُحْيِيهَا الَّذِي أَنْشَأَهَا أَوَّلَ مَرَّةٍ وَهُوَ بِكُلِّ خَلْقٍ عَلِيمٌ 36.79

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৭৯। কুল্ ইয়ুহ্য়ীহাল্লাযী য় আন্শায়াহা য় আও অলা র্মারাহ্; অহুওয়া বিকুল্লি খল্ক্বিন্ ‘আলীমুনি।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৭৯ বল, ‘যিনি প্রথমবার এগুলোকে সৃষ্টি করেছেন তিনিই সেগুলো পুনরায় জীবিত করবেন। আর তিনি সকল সৃষ্টি সম্পর্কেই সর্বজ্ঞাতা।

الَّذِي جَعَلَ لَكُمْ مِنَ الشَّجَرِ الْأَخْضَرِ نَارًا فَإِذَا أَنْتُمْ مِنْهُ تُوقِدُونَ 36.80

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৮০। ল্লাযী জ্বা‘আলা লাকুম্ মিনাশ্ শাজ্বারিল্ আখ্দ্বোয়ারি না-রন্ ফাইযা য় আন্তুম্ মিন্হু তূক্বিদূ ন্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৮০ যিনি সবুজ বৃক্ষ থেকে তোমাদের জন্য আগুন তৈরী করেছেন। ফলে তা থেকে তোমরা আগুন জ্বালাও।

أَوَلَيْسَ الَّذِي خَلَقَ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضَ بِقَادِرٍ عَلَى أَنْ يَخْلُقَ مِثْلَهُمْ بَلَى وَهُوَ الْخَلَّاقُ الْعَلِيمُ 36.81

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৮১। আওয়া লাইসাল্লাযী খলাক্বস্ সামা-ওয়া-তি অল্ র্আদ্বোয়া বিক্ব-দিরিন্ ‘আলা য় আইঁ ইয়াখ্লুক্ব মিছ্লাহুম্; বালা-অহুওয়াল্ খল্লাকুল্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৮১ যিনি আসমানসমূহ ও যমীন সৃষ্টি করেছেন তিনি কি তাদের অনুরূপ সৃষ্টি করতে সক্ষম নন? হ্যাঁ, তিনিই মহাস্রষ্টা, সর্বজ্ঞানী।

إِنَّمَا أَمْرُهُ إِذَا أَرَادَ شَيْئًا أَنْ يَقُولَ لَهُ كُنْ فَيَكُونُ 36.82

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৮২। ইন্নামা য় আম্রুহূ য় ইযা য় আর-দা শাইয়ান্ আইঁ ইয়াকুলা লাহূ কুন্ ফাইয়াকূন্

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৮২ তাঁর ব্যাপার শুধু এই যে, কোন কিছুকে তিনি যদি ‘হও’ বলতে চান, তখনই তা হয়ে যায়।

فَسُبْحَانَ الَّذِي بِيَدِهِ مَلَكُوتُ كُلِّ شَيْءٍ وَإِلَيْهِ تُرْجَعُونَ 36.83

আরবি উচ্চারণ
৩৬.৮৩। ফাসুব্হা-নাল্ লাযী বিয়াদিহী মালাকূতু কুল্লি শাইয়িঁও অ ইলাইহি র্তুজ্বাঊ’ন্

বাংলা অনুবাদ
৩৬.৮৩ অতএব পবিত্র মহান তিনি, যার হাতে রয়েছে সকল কিছুর রাজত্ব এবং তাঁরই দিকে তোমরা প্রত্যাবর্তিত হবে।

সূরাতুল নূর 


بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

পরম করুণাময় অতি দয়ালু আল্লাহর নামে (শুরু করছি)।


سُورَةٌ أَنزَلۡنَـٰهَا وَفَرَضۡنَـٰهَا وَأَنزَلۡنَا فِيہَآ ءَايَـٰتِۭ بَيِّنَـٰتٍ۬ لَّعَلَّكُمۡ تَذَكَّرُونَ ২৪.১

আরবি উচ্চারণ

২৪.১) সূরাতুন্ আন্যাল্না-হা-অ ফারদ্ব্না-হা-অ আন্যাল্না-ফীহা য়আ-ইয়া-তিম্ বাইয়্যিনা-তিল্ লা‘আল্লাকুম্ তাযাক্কারূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১) এটি একটি সূরা, যা আমি নাযিল করেছি এবং এটাকে অবশ্য পালনীয় করেছি। আর আমি এতে সুস্পষ্ট আয়াতসমূহ নাযিল করেছি, যাতে তোমরা উপদেশ গ্রহণ কর।


ٱلزَّانِيَةُ وَٱلزَّانِى فَٱجۡلِدُواْ كُلَّ وَٲحِدٍ۬ مِّنۡہُمَا مِاْئَةَ جَلۡدَةٍ۬‌ۖ وَلَا تَأۡخُذۡكُم بِہِمَا رَأۡفَةٌ۬ فِى دِينِ ٱللَّهِ إِن كُنتُمۡ تُؤۡمِنُونَ بِٱللَّهِ وَٱلۡيَوۡمِ ٱلۡأَخِرِ‌ۖ وَلۡيَشۡہَدۡ عَذَابَہُمَا طَآٮِٕفَةٌ۬ مِّنَ ٱلۡمُؤۡمِنِينَ ২৪.২

আরবি উচ্চারণ

২৪.২) আয্যা-নিয়াতু অয্যা-নী ফাজুলিদূ কুল্লা অ-হিদিম্ মিন্হুমা-মিয়াতা জ্বাল্দাতিঁও অলা-তাখুয্কুম্ বিহিমা-রফাতুন্ ফীদীনিল্লা-হি ইন্ কুন্তুম্ তুমিনূনা বিল্লা-হি অল্ইয়াওমিল্ আ-খিরি অল্ ইয়াশ্হাদ্ ‘আযা-বা হুমা-ত্বোয়া-য়িফাতুম্ মিনাল্ মুমিনীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২) ব্যভিচারিণী ও ব্যভিচারী তাদের প্রত্যেককে একশ’টি করে বেত্রাঘাত কর। আর যদি তোমরা আল্লাহ ও শেষ দিবসের প্রতি ঈমান এনে থাক তবে আল্লাহর দীনের ব্যাপারে তাদের প্রতি দয়া যেন তোমাদেরকে পেয়ে না বসে। আর মুমিনদের একটি দল যেন তাদের আযাব প্রত্যক্ষ করে।


ٱلزَّانِى لَا يَنكِحُ إِلَّا زَانِيَةً أَوۡ مُشۡرِكَةً۬ وَٱلزَّانِيَةُ لَا يَنكِحُهَآ إِلَّا زَانٍ أَوۡ مُشۡرِكٌ۬‌ۚ وَحُرِّمَ ذَٲلِكَ عَلَى ٱلۡمُؤۡمِنِينَ ২৪.৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩) আয্যা-নী লা-ইয়ান্কিহুহা য় ইল্লা-যা-নিয়াতান্ আও মুশ্রিকাতাঁও অয্যা-নিয়াতু লা-ইয়ান্কিহুহা য় ইল্লা-যা-নিন্ আওমুশ্রিকূন্ অর্হুরিমা যা-লিকা ‘আলাল্ মুমিনীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩) ব্যভিচারী কেবল ব্যভিচারিণী অথবা মুশরিক নারীকে ছাড়া বিয়ে করবে না এবং ব্যভিচারিণীকে কেবল ব্যভিচারী অথবা মুশরিক ছাড়া বিয়ে করবে না। আর মুমিনদের উপর এটা হারাম করা হয়েছে।


وَٱلَّذِينَ يَرۡمُونَ ٱلۡمُحۡصَنَـٰتِ ثُمَّ لَمۡ يَأۡتُواْ بِأَرۡبَعَةِ شُہَدَآءَ فَٱجۡلِدُوهُمۡ ثَمَـٰنِينَ جَلۡدَةً۬ وَلَا تَقۡبَلُواْ لَهُمۡ شَہَـٰدَةً أَبَدً۬ا‌ۚ وَأُوْلَـٰٓٮِٕكَ هُمُ ٱلۡفَـٰسِقُونَ ২৪.৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪) অল্লাযীনা ইর্য়ামূনাল্ মুহ্ছোয়ানা-তি ছুম্মা লাম্ ইয়া’তূ বির্আবা‘আতি শুহাদা-য়া ফাজলিদূহুম্ ছামা-নীনা জ্বাল্দাতাঁও অলা তাকবালূ লাহুম্ শাহা-দাতান্ আবাদান্ অ উলা-য়িকা হুমুল্ ফা- সিকুন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪) আর যারা সচ্চরিত্র নারীর প্রতি অপবাদ আরোপ করে, তারপর তারা চারজন সাক্ষী নিয়ে আসে না, তবে তাদেরকে আশিটি বেত্রাঘাত কর এবং তোমরা কখনই তাদের সাক্ষ্য গ্রহণ করো না। আর এরাই হলো ফাসিক।


إِلَّا ٱلَّذِينَ تَابُواْ مِنۢ بَعۡدِ ذَٲلِكَ وَأَصۡلَحُواْ فَإِنَّ ٱللَّهَ غَفُورٌ۬ رَّحِيمٌ۬ ২৪.৫

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫) ইল্লাল লাযীনা তা-বূ মিম্ বা’দি যা-লিকা অআছ্লাহূ ফা ইন্নাল্লা-হা গফূর্রু রহীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫) তবে যারা এরপরে তাওবা করে এবং নিজদের সংশোধন করে, তাহলে নিশ্চয় আল্লাহ বড়ই ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।


وَٱلَّذِينَ يَرۡمُونَ أَزۡوَٲجَهُمۡ وَلَمۡ يَكُن لَّهُمۡ شُہَدَآءُ إِلَّآ أَنفُسُهُمۡ فَشَهَـٰدَةُ أَحَدِهِمۡ أَرۡبَعُ شَہَـٰدَٲتِۭ بِٱللَّهِ‌ۙ إِنَّهُ ۥ لَمِنَ ٱلصَّـٰدِقِينَ ২৪.৬

আরবি উচ্চারণ

২৪.৬) অল্লাযীনা ইর্য়ামূনা আয্ওয়া-জ্বাহুম্ অলাম্ ইয়াকুল্লাহুম্ শুহাদা-য়ু ইল্লা য় আন্ফুসুহুম্ ফাশাহা-দাতু আহাদিহিম্ র্আবা‘উ শাহা-দা-তিম্ বিল্লা-হি ইন্নাহূ লামিনাছ্ ছোয়া-দ্বিকীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৬) আর যারা নিজদের স্ত্রীর প্রতি অপবাদ আরোপ করে, অথচ নিজেরা ছাড়া তাদের আর কোন সাক্ষী নেই, তাহলে তাদের প্রত্যেকের সাক্ষ্য হবে আল্লাহর নামে চারবার সাক্ষ্য দেবে যে, সে নিশ্চয়ই সত্যবাদীদের অন্তর্ভুক্ত।


وَٱلۡخَـٰمِسَةُ أَنَّ لَعۡنَتَ ٱللَّهِ عَلَيۡهِ إِن كَانَ مِنَ ٱلۡكَـٰذِبِينَ ২৪.৭

আরবি উচ্চারণ

২৪.৭) অল্খ-মিসাতু আন্না লা’নাত ল্লা-হি ‘আলাইহি ইন্ কা-না মিনাল্ কা-যিবীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৭) আর পঞ্চমবারে সাক্ষ্য দেবে যে, সে যদি মিথ্যাবাদী হয়, তবে নিশ্চয় তার উপর আল্লাহর লা‘নত।


وَيَدۡرَؤُاْ عَنۡہَا ٱلۡعَذَابَ أَن تَشۡہَدَ أَرۡبَعَ شَہَـٰدَٲتِۭ بِٱللَّهِ‌ۙ إِنَّهُ ۥ لَمِنَ ٱلۡكَـٰذِبِينَ ২৪.৮

আরবি উচ্চারণ

২৪.৮) অ ইয়াদ্রায়ু ‘আন্হাল্ ‘আযা-বা আন্ তাশ্হাদা র্আবা‘আ শাহা-দা-তিম্ বিল্লা-হি ইন্নাহূ লামিনাল্ কা-যিবীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৮) আর তারা স্ত্রীলোকটি থেকে শাস্তি রহিত করবে, যদি সে আল্লাহর নামে চারবার সাক্ষ্য দেয় যে, নিশ্চয় তার স্বামী মিথ্যাবাদীদের অন্তর্ভুক্ত।


وَٱلۡخَـٰمِسَةَ أَنَّ غَضَبَ ٱللَّهِ عَلَيۡہَآ إِن كَانَ مِنَ ٱلصَّـٰدِقِينَ ২৪.৯

আরবি উচ্চারণ

২৪.৯) অল্ খ-মিসাতা আন্না গদ্বোয়াবাল্লা-হি ‘আলাইহা য় ইন্ কা-না মিনাছ্ ছোয়া-দিক্বীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৯) আর পঞ্চমবারে সাক্ষ্য দেবে যে, যদি তার স্বামী সত্যবাদী হয়, তবে নিশ্চয় তার উপর আল্লাহর গযব।


وَلَوۡلَا فَضۡلُ ٱللَّهِ عَلَيۡكُمۡ وَرَحۡمَتُهُ ۥ وَأَنَّ ٱللَّهَ تَوَّابٌ حَڪِيمٌ ২৪.১০

আরবি উচ্চারণ

২৪.১০) অলাওলা- ফাদ্ব্লুল্লা-হি ‘আলাইকুম্ অরহ্মাতুহূ অআন্নাল্লা-হা তাউওয়া-বুন্ হাকীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১০) যদি তোমাদের উপর আল্লাহর অনুগ্রহ ও তাঁর দয়া না থাকত, (তাহলে তোমরা ধ্বংস হয়ে যেতে) আর নিশ্চয় আল্লাহ অধিক তাওবা গ্রহণকারী, প্রজ্ঞাময়।


إِنَّ ٱلَّذِينَ جَآءُو بِٱلۡإِفۡكِ عُصۡبَةٌ۬ مِّنكُمۡ‌ۚ لَا تَحۡسَبُوهُ شَرًّ۬ا لَّكُم‌ۖ بَلۡ هُوَ خَيۡرٌ۬ لَّكُمۡ‌ۚ لِكُلِّ ٱمۡرِىٍٕ۬ مِّنۡہُم مَّا ٱكۡتَسَبَ مِنَ ٱلۡإِثۡمِ‌ۚ وَٱلَّذِى تَوَلَّىٰ كِبۡرَهُ ۥ مِنۡہُمۡ لَهُ ۥ عَذَابٌ عَظِيمٌ۬ ২৪.১১

আরবি উচ্চারণ

২৪.১১) ইন্না ল্লাযীনা জ্বা-য়ূ বিল্ইফ্কি উছ্বাতুম্ মিন্কুম্; লা-তাহ্সাবূহু র্শারাল্লাকুম্; বাল্ হুঅ খইরুল্লাকুম্; লিকুল্ লিম্ রিয়িম্ মিন্হুম্ মাক্তাসাবা মিনাল্ ইছ্মি অল্লাযী তাওয়াল্লা-কিব্রাহূ মিন্হুম্ লাহূ ‘আযা-বুন্ ‘আজীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১১) নিশ্চয় যারা এ অপবাদ রটনা করেছে, তারা তোমাদেরই একটি দল। এটাকে তোমরা তোমাদের জন্য অকল্যাণকর মনে করো না, বরং এটা তোমাদের জন্য কল্যাণকর। তাদের থেকে প্রত্যেক ব্যক্তির জন্য রয়েছে, যতটুকু পাপ সে অর্জন করেছে। আর তাদের থেকে যে ব্যক্তি এ ব্যাপারে প্রধান ভূমিকা পালন করেছে, তার জন্য রয়েছে মহাআযাব।


لَّوۡلَآ إِذۡ سَمِعۡتُمُوهُ ظَنَّ ٱلۡمُؤۡمِنُونَ وَٱلۡمُؤۡمِنَـٰتُ بِأَنفُسِہِمۡ خَيۡرً۬ا وَقَالُواْ هَـٰذَآ إِفۡكٌ۬ مُّبِينٌ۬ ২৪.১২

আরবি উচ্চারণ

২৪.১২) লাওলা য় ইয্ সামি’তুমূহু জোয়ান্নাল্ মুমিনূনা অল্ মুমিনা-তু বি আন্ফুসিহিম্ খইরঁও অ ক্ব-লূ হা-যা য় ইফ্কুম্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১২) যখন তোমরা এটা শুনলে, তখন কেন মুমিন পুরুষ ও মুমিন নারীরা তাদের নিজদের সম্পর্কে ভাল ধারণা পোষণ করল না এবং বলল না যে, ‘এটাতো সুস্পষ্ট অপবাদ’?


لَّوۡلَا جَآءُو عَلَيۡهِ بِأَرۡبَعَةِ شُہَدَآءَ‌ۚ فَإِذۡ لَمۡ يَأۡتُواْ بِٱلشُّہَدَآءِ فَأُوْلَـٰٓٮِٕكَ عِندَ ٱللَّهِ هُمُ ٱلۡكَـٰذِبُونَ ২৪.১৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৩) লাওলা জ্বা-য়ূ ‘আলাইহি বির্আবা‘আতি শুহাদা-য়া ফাইয্ লাম্ ইয়াতূ বিশ্শুহাদা-য়ি ফাউলা-য়িকা ‘ইন্দাল্লা-হি হুমুল্ কা-যিবূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৩) তারা কেন এ ব্যাপারে চারজন সাক্ষী নিয়ে আসল না? সুতরাং যখন তারা সাক্ষী নিয়ে আসেনি, তখন তারাই আল্লাহর কাছে মিথ্যাবাদী।


وَلَوۡلَا فَضۡلُ ٱللَّهِ عَلَيۡكُمۡ وَرَحۡمَتُهُ ۥ فِى ٱلدُّنۡيَا وَٱلۡأَخِرَةِ لَمَسَّكُمۡ فِى مَآ أَفَضۡتُمۡ فِيهِ عَذَابٌ عَظِيمٌ ২৪.১৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৪) অলাওলা-ফাদ্ব্লুল্লা-হি ‘আলাইকুম্ অ রহ্মাতুহূ ফিদ্দুন্ইয়া-অল্ আ-খিরাতি লামাস্সাকুম্ ফীমা য় আফাদ্ব্তুম্ ফীহি ‘আযা-বুন্ ‘আজীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৪) আর যদি দুনিয়া ও আখেরাতে তোমাদের উপর আল্লাহর দয়া ও তাঁর অনুগ্রহ না থাকত, তবে তোমরা যাতে লিপ্ত ছিলে, তার জন্য তোমাদেরকে অবশ্যই কঠিন আযাব স্পর্শ করত।


إِذۡ تَلَقَّوۡنَهُ ۥ بِأَلۡسِنَتِكُمۡ وَتَقُولُونَ بِأَفۡوَاهِكُم مَّا لَيۡسَ لَكُم بِهِۦ عِلۡمٌ۬ وَتَحۡسَبُونَهُ ۥ هَيِّنً۬ا وَهُوَ عِندَ ٱللَّهِ عَظِيمٌ۬ ২৪.১৫

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৫) ইয্ তালাকক্বও নাহূ বিআল্সিনাতিকুম্ অতাকু লূনা বিআফ্ওয়া-হিকুম্ মা-লাইসা লাকুম্ বিহী ই’ল্মুঁও অ তাহ্সাবূনাহূ হাইয়িনাঁও অহুওয়া ‘ইন্দাল্লা-হি ‘আজীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৫) যখন এটা তোমরা তোমাদের মুখে মুখে ছড়াচ্ছিলে এবং তোমরা তোমাদের মুখ দিয়ে এমন কথা বলছিলে, যাতে তোমাদের কোন জ্ঞান ছিল না; আর তোমরা এটাকে খুবই তুচ্ছ মনে করছিলে, অথচ এটা আল্লাহর নিকট খুবই গুরুতর।


وَلَوۡلَآ إِذۡ سَمِعۡتُمُوهُ قُلۡتُم مَّا يَكُونُ لَنَآ أَن نَّتَڪَلَّمَ بِہَـٰذَا سُبۡحَـٰنَكَ هَـٰذَا بُہۡتَـٰنٌ عَظِيمٌ۬ ২৪.১৬

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৬) অ লাওলা য় ইয্ সামি’তুমূহু কুল্তুম্ মা-ইয়াকূনু লানা য় আন্না তাকাল্লামা বিহা-যা- সুব্হা-নাকা হাযা- বুহ্তা- নুন্ ‘আজীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৬) আর তোমরা যখন এটা শুনলে, তখন তোমরা কেন বললে না যে, ‘এ নিয়ে কথা বলা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। তুমি অতি পবিত্র মহান, এটা এক গুরুতর অপবাদ’।


يَعِظُكُمُ ٱللَّهُ أَن تَعُودُواْ لِمِثۡلِهِۦۤ أَبَدًا إِن كُنتُم مُّؤۡمِنِينَ ২৪.১৭

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৭) ইয়া‘ইজুকুমুল্লা-হু আন্ তা‘ঊদূ লিমিছ্লিহী য় আবাদান্ ইন্ কুন্তুম্ মুমিনীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৭) আল্লাহ তোমাদেরকে উপদেশ দিচ্ছেন যে, যদি তোমরা মুমিন হও, তাহলে আর কখনো এর পুনরাবৃত্তি করবে না।


وَيُبَيِّنُ ٱللَّهُ لَكُمُ ٱلۡأَيَـٰتِ‌ۚ وَٱللَّهُ عَلِيمٌ حَكِيمٌ ২৪.১৮

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৮) অ ইয়ুবাইয়্যিনুল্লা-হু লাকুমুল্ আ-ইয়া-ত্; অল্লা-হু ‘আলীমুন্ হাকীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৮) আর আল্লাহ তোমাদের জন্য আয়াতসমূহ স্পষ্টভাবে বর্ণনা করছেন এবং আল্লাহ মহাজ্ঞানী, প্রজ্ঞাময়।


إِنَّ ٱلَّذِينَ يُحِبُّونَ أَن تَشِيعَ ٱلۡفَـٰحِشَةُ فِى ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَهُمۡ عَذَابٌ أَلِيمٌ۬ فِى ٱلدُّنۡيَا وَٱلۡأَخِرَةِ‌ۚ وَٱللَّهُ يَعۡلَمُ وَأَنتُمۡ لَا تَعۡلَمُونَ ২৪.১৯

আরবি উচ্চারণ

২৪.১৯) ইন্নাল্লাযীনা ইয়ুহিবুনা আন্ তাশী‘আল্ ফা-হিশাতু ফিল্লাযীনা আ-মানূ লাহুম্ ‘আযা-বুন্ আলীমুন্ ফিদ্দুন্ইয়া-অল্ আ-খিরা-হ; অল্লা-হু ইয়া’লামু অ আন্তুম্ লা-তা’লামূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.১৯) নিশ্চয় যারা এটা পছন্দ করে যে, মুমিনদের মধ্যে অশ্লীলতা ছড়িয়ে পড়–ক, তাদের জন্য দুনিয়া ও আখেরাতে রয়েছে যন্ত্রণাদায়ক আযাব। আর আল্লাহ জানেন এবং তোমরা জান না।


وَلَوۡلَا فَضۡلُ ٱللَّهِ عَلَيۡڪُمۡ وَرَحۡمَتُهُ ۥ وَأَنَّ ٱللَّهَ رَءُوفٌ۬ رَّحِيمٌ۬ ২৪.২০

আরবি উচ্চারণ

২৪.২০) অলাওলা-ফাদ্ব্লু ল্লা-হি ‘আলাইকুম্ অরহ্মাতুহূ অআন্নাল্লা-হা রায়ূর্ফু রহীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২০) আর যদি তোমাদের উপর আল্লাহর অনুগ্রহ ও তাঁর দয়া না থাকত, (তাহলে তোমরা ধ্বংস হয়ে যেতে) আর নিশ্চয় আল্লাহ বড় মেহেরবান, পরম দয়ালু।


۞ يَـٰٓأَيُّہَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَا تَتَّبِعُواْ خُطُوَٲتِ ٱلشَّيۡطَـٰنِ‌ۚ وَمَن يَتَّبِعۡ خُطُوَٲتِ ٱلشَّيۡطَـٰنِ فَإِنَّهُ ۥ يَأۡمُرُ بِٱلۡفَحۡشَآءِ وَٱلۡمُنكَرِ‌ۚ وَلَوۡلَا فَضۡلُ ٱللَّهِ عَلَيۡكُمۡ وَرَحۡمَتُهُ ۥ مَا زَكَىٰ مِنكُم مِّنۡ أَحَدٍ أَبَدً۬ا وَلَـٰكِنَّ ٱللَّهَ يُزَكِّى مَن يَشَآءُ‌ۗ وَٱللَّهُ سَمِيعٌ عَلِيمٌ۬ ২৪.২১

আরবি উচ্চারণ

২৪.২১) ইয়া য় আইয়্যুহা ল্লাযীনা আ-মানূ লা-তাত্তাবিঊ’ খুতুওয়া-তিশ্ শাইত্বোয়া-ন্; অমাইঁ ইয়াত্তাবি’ খুতুওয়া-তিশ্ শাইত্বোয়া-নি ফাইন্নাহূ ইয়ামুরু বিলফাহ্শা-য়ি অল্মুর্ন্কা; অ লাওলা-ফাদ্ব্লু ল্লা-হি ‘আলাইকুম্ অ রহ্মাতুহূ মা-যাকা- মিন্কুম্ মিন্ আহাদিন্ আবাদাঁও অলা-কিন্নাল্লা-হা ইয়ুযাক্কী মাইঁ ইয়াশা-য়্; অল্লা-হু সামী‘ঊন্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২১) হে মুমিনগণ, তোমরা শয়তানের পদাঙ্কসমূহ অনুসরণ করো না। আর যে শয়তানের পদাঙ্কসমূহ অনুসরণ করবে, নিশ্চয় সে অশ্লীলতা ও মন্দ কাজের নির্দেশ দেবে। আর যদি তোমাদের প্রতি আল্লাহর অনুগ্রহ ও তাঁর দয়া না থাকত, তাহলে তোমাদের কেউই কখনো পবিত্র হতে পারত না; কিন্তু আল্লাহ যাকে ইচ্ছা করেন, পবিত্র করেন। আর আল্লাহ সর্বশ্রোতা, মহাজ্ঞানী।


وَلَا يَأۡتَلِ أُوْلُواْ ٱلۡفَضۡلِ مِنكُمۡ وَٱلسَّعَةِ أَن يُؤۡتُوٓاْ أُوْلِى ٱلۡقُرۡبَىٰ وَٱلۡمَسَـٰكِينَ وَٱلۡمُهَـٰجِرِينَ فِى سَبِيلِ ٱللَّهِ‌ۖ وَلۡيَعۡفُواْ وَلۡيَصۡفَحُوٓاْ‌ۗ أَلَا تُحِبُّونَ أَن يَغۡفِرَ ٱللَّهُ لَكُمۡ‌ۗ وَٱللَّهُ غَفُورٌ۬ رَّحِيمٌ ২৪.২২

আরবি উচ্চারণ

২৪.২২) অলা-ইয়াতালি উলুল্ ফাদ্ব্লি মিন্কুম্ অস্সা‘আতি আই ইয়ুতূ য় উলিল ক্বর্ ুবা-অল্ মাসাকীনা অল্ মুহা-জ্বিরীনা ফী সাবীলিল্লা-হি অল্ ইয়া’ফূ অল্ ইয়াছ্ফাহূ; আলা-তুহিবুনা আইঁ ইয়াগ্ফিরল্লা-হু লাকুম্; অল্লা-হু গফূর্রু রহীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২২) আর তো
মাদের মধ্যে যারা মর্যাদা ও প্রাচুর্যের অধিকারী, তারা যেন এমন কসম না করে যে, তারা নিকটাত্মীয়দের, মিসকীনদের ও আল্লাহর পথে হিজরতকারীদের কিছুই দেবে না। আর তারা যেন তাদের ক্ষমা করে এবং তাদের দোষত্র“টি উপেক্ষা করে। তোমরা কি পছন্দ কর না যে, আল্লাহ তোমাদের ক্ষমা করে দেন? আর আল্লাহ বড়ই ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।


إِنَّ ٱلَّذِينَ يَرۡمُونَ ٱلۡمُحۡصَنَـٰتِ ٱلۡغَـٰفِلَـٰتِ ٱلۡمُؤۡمِنَـٰتِ لُعِنُواْ فِى ٱلدُّنۡيَا وَٱلۡأَخِرَةِ وَلَهُمۡ عَذَابٌ عَظِيمٌ۬ ২৪.২৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৩) ইন্নাল্লাযীনা ইর্য়ামূনাল্ মুহ্ছোয়ানা-তিল্ গ-ফিলা-তিল্ মুমিনাতি লু‘ইনূ ফিদ্দুন্ইয়া- অল্ আ-খিরতি অলাহুম্ ‘আযা-বুন্ ‘আজীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৩) যারা সচ্চরিত্রা সরলমনা মুমিন নারীদের প্রতি অপবাদ আরোপ করে, তারা দুনিয়া ও আখিরাতে অভিশপ্ত। আর তাদের জন্য রয়েছে মহাআযাব।


يَوۡمَ تَشۡہَدُ عَلَيۡہِمۡ أَلۡسِنَتُهُمۡ وَأَيۡدِيہِمۡ وَأَرۡجُلُهُم بِمَا كَانُواْ يَعۡمَلُونَ ২৪.২৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৪) ইয়াওমা তাশ্হাদু ‘আলাইহিম্ আল্সিনাতুহুম্ অআইদীহিম্ অর্আজুলুহুম্ বিমা-কানূ ইয়া’মালূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৪) যেদিন তাদের জিহ্বাগুলো, তাদের হাতগুলো ও তাদের পাগুলো তারা যা করত, সে ব্যাপারে তাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেবে।


يَوۡمَٮِٕذٍ۬ يُوَفِّيہِمُ ٱللَّهُ دِينَهُمُ ٱلۡحَقَّ وَيَعۡلَمُونَ أَنَّ ٱللَّهَ هُوَ ٱلۡحَقُّ ٱلۡمُبِينُ ২৪.২৫

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৫) ইয়াওমায়িযিইঁ ইয়ুওয়াফ্ফী হিমু ল্লা-হু দীনাহুমুল্ হাকক্ব অ ইয়া’লামূনা আন্নাল্লা-হা হুওয়াল্ হাককুল্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৫) সেদিন আল্লাহ তাদেরকে তাদের ন্যায্য প্রতিদান পুরোপুরি দিয়ে দেবেন, আর তারা জানবে যে, আল্লাহই সুস্পষ্ট সত্য।


ٱلۡخَبِيثَـٰتُ لِلۡخَبِيثِينَ وَٱلۡخَبِيثُونَ لِلۡخَبِيثَـٰتِ‌ۖ وَٱلطَّيِّبَـٰتُ لِلطَّيِّبِينَ وَٱلطَّيِّبُونَ لِلطَّيِّبَـٰتِ‌ۚ أُوْلَـٰٓٮِٕكَ مُبَرَّءُونَ مِمَّا يَقُولُونَ‌ۖ لَهُم مَّغۡفِرَةٌ۬ وَرِزۡقٌ۬ ڪَرِيمٌ۬ ২৪.২৬

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৬) আল্ খবীছা-তু লিল্খবীছীনা অল্ খবীছূনা লিল্ খবীছা-তি অত্ত্বোয়াইয়্যিবা-তু লিত্ত্বোয়াইয়্যিবীনা অত্ত্বোয়াইয়্যিবূনা লিত্ত্বোয়াইয়্যিবা-তি উলা-য়িকা মুর্বারায়ূনা মিম্মা-ইয়াকু লূন্; লাহুম্ মাগ্ফিরাতুঁও অরিয্কুন্ কারীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৬) দুশ্চরিত্রা নারীরা দুশ্চরিত্র পুরুষদের জন্য এবং দুশ্চরিত্র পুরুষরা দুশ্চরিত্রা নারীদের জন্য। আর সচ্চরিত্রা নারীরা সচ্চরিত্র পুরুষদের জন্য এবং সচ্চরিত্র পুরুষরা সচ্চরিত্রা নারীদের জন্য; লোকেরা যা বলে, তারা তা থেকে মুক্ত। তাদের জন্য রয়েছে ক্ষমা ও সম্মানজনক রিয্ক।


يَـٰٓأَيُّہَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لَا تَدۡخُلُواْ بُيُوتًا غَيۡرَ بُيُوتِڪُمۡ حَتَّىٰ تَسۡتَأۡنِسُواْ وَتُسَلِّمُواْ عَلَىٰٓ أَهۡلِهَا‌ۚ ذَٲلِكُمۡ خَيۡرٌ۬ لَّكُمۡ لَعَلَّكُمۡ تَذَكَّرُونَ ২৪.২৭

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৭) ইয়া য় আইয়্যু হাল্লাযীনা আ-মানূ লা-তাদ্খুলূ বুইয়ূতান্ গইরা বুইয়ূতিকুম্ হাত্তা-তাস্তানিসূ অতুসাল্লিমূ ‘আলা য় আহ্লিহা-; যা-লিকুম্ খইরুল্লাকুম, লা‘আল্লাকুম্ তাযাক্কারূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৭) হে মুমিনগণ, তোমরা নিজদের গৃহ ছাড়া অন্য কারও গৃহে প্রশে করো না, যতক্ষণ না তোমরা অনুমতি নেবে এবং গৃহবাসীদেরকে সালাম দেবে। এটাই তোমাদের জন্য কল্যাণকর, যাতে তোমরা উপদেশ গ্রহণ কর।


فَإِن لَّمۡ تَجِدُواْ فِيهَآ أَحَدً۬ا فَلَا تَدۡخُلُوهَا حَتَّىٰ يُؤۡذَنَ لَكُمۡ‌ۖ وَإِن قِيلَ لَكُمُ ٱرۡجِعُواْ فَٱرۡجِعُواْ‌ۖ هُوَ أَزۡكَىٰ لَكُمۡ‌ۚ وَٱللَّهُ بِمَا تَعۡمَلُونَ عَلِيمٌ۬ ২৪.২৮

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৮) ফাইল্লাম্ তাজ্বিদূ ফীহা য় আহ্দান্ ফালা-তাদ্খুলূহা-হাত্তা-ইয়ূ যানা লাকুম্ অইন্ ক্বীলা লাকুর্মুজ্বি‘ঊ র্ফাজ্বি‘ঊ হুঅ আয্কা-লাকুম্ অল্লা-হু বিমা-তা’মালূনা ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৮) অতঃপর যদি তোমরা সেখানে কাউকে না পাও তাহলে তোমাদেরকে অনুমতি না দেয়া পর্যন্ত তোমরা সেখানে প্রবেশ করো না। আর যদি তোমাদেরকে বলা হয়, ‘ফিরে যাও’ তাহলে ফিরে যাবে। এটাই তোমাদের জন্য অধিক পবিত্র। তোমরা যা কর আল্লাহ সে বিষয়ে সম্যক অবগত।


لَّيۡسَ عَلَيۡكُمۡ جُنَاحٌ أَن تَدۡخُلُواْ بُيُوتًا غَيۡرَ مَسۡكُونَةٍ۬ فِيہَا مَتَـٰعٌ۬ لَّكُمۡ‌ۚ وَٱللَّهُ يَعۡلَمُ مَا تُبۡدُونَ وَمَا تَكۡتُمُونَ ২৪.২৯

আরবি উচ্চারণ

২৪.২৯) লাইসা ‘আলাইকুম্ জুনা-হুন্ আন্ তাদ্খুলূ বুইয়ূতান্ গইর মাস্কূনাতিন্ ফীহা-মাতা-‘উল্ লাকুম্; অল্লা-হু ইয়া’লামু মা-তুব্দূনা অমা- তাক্তুমূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.২৯) যে ঘরে কেউ বাস করে না, তাতে তোমাদের কোন ভোগসামগ্রী থাকলে, সেখানে তোমাদের প্রবেশে কোন পাপ হবে না। আর আল্লাহ জানেন যা তোমরা প্রকাশ কর আর যা তোমরা গোপন কর।


قُل لِّلۡمُؤۡمِنِينَ يَغُضُّواْ مِنۡ أَبۡصَـٰرِهِمۡ وَيَحۡفَظُواْ فُرُوجَهُمۡ‌ۚ ذَٲلِكَ أَزۡكَىٰ لَهُمۡ‌ۗ إِنَّ ٱللَّهَ خَبِيرُۢ بِمَا يَصۡنَعُونَ ২৪.৩০

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩০) কুল্ লিল্মুমিনীনা ইয়াগুদ্ব্দ্বূ মিন্ আব্ছোয়া-রিহিম্ অইয়াহ্ফাজূ ফুরূজ্বাহুম্ যা- লিকা আয্কা-লাহুম্ ইন্নাল্লা-হা খবীরুম্ বিমা-ইয়াছ্নাঊ’ন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩০) মুমিন পুরুষদেরকে বল, তারা তাদের দৃষ্টিকে সংযত রাখবে এবং তাদের লজ্জাস্থানের হিফাযত করবে। এটাই তাদের জন্য অধিক পবিত্র। নিশ্চয় তারা যা করে সে সম্পর্কে আল্লাহ সম্যক অবহিত।


وَقُل لِّلۡمُؤۡمِنَـٰتِ يَغۡضُضۡنَ مِنۡ أَبۡصَـٰرِهِنَّ وَيَحۡفَظۡنَ فُرُوجَهُنَّ وَلَا يُبۡدِينَ زِينَتَهُنَّ إِلَّا مَا ظَهَرَ مِنۡهَا‌ۖ وَلۡيَضۡرِبۡنَ بِخُمُرِهِنَّ عَلَىٰ جُيُوبِہِنَّ‌ۖ وَلَا يُبۡدِينَ زِينَتَهُنَّ إِلَّا لِبُعُولَتِهِنَّ أَوۡ ءَابَآٮِٕهِنَّ أَوۡ ءَابَآءِ بُعُولَتِهِنَّ أَوۡ أَبۡنَآٮِٕهِنَّ أَوۡ أَبۡنَآءِ بُعُولَتِهِنَّ أَوۡ إِخۡوَٲنِهِنَّ أَوۡ بَنِىٓ إِخۡوَٲنِهِنَّ أَوۡ بَنِىٓ أَخَوَٲتِهِنَّ أَوۡ نِسَآٮِٕهِنَّ أَوۡ مَا مَلَكَتۡ أَيۡمَـٰنُهُنَّ أَوِ ٱلتَّـٰبِعِينَ غَيۡرِ أُوْلِى ٱلۡإِرۡبَةِ مِنَ ٱلرِّجَالِ أَوِ ٱلطِّفۡلِ ٱلَّذِينَ لَمۡ يَظۡهَرُواْ عَلَىٰ عَوۡرَٲتِ ٱلنِّسَآءِ‌ۖ وَلَا يَضۡرِبۡنَ بِأَرۡجُلِهِنَّ لِيُعۡلَمَ مَا يُخۡفِينَ مِن زِينَتِهِنَّ‌ۚ وَتُوبُوٓاْ إِلَى ٱللَّهِ جَمِيعًا أَيُّهَ ٱلۡمُؤۡمِنُونَ لَعَلَّكُمۡ تُفۡلِحُونَ ২৪.৩১

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩১) অকুল্ লিল্মুমিনা-তি ইয়াগ্দ্বুদ্ব্না মিন্ আব্ছোয়া- রিহিন্না অইয়াহ্ফাজ্না ফুরূজ্বাহুন্না অলা-ইয়ুব্দীনা যীনাতাহুন্না ইল্লা-মা- জোয়াহারা মিন্হা-অল্ইয়াদ্ব্রিব্না বিখুমুরিহিন্না ‘আলা-জুইয়ূবিহিন্না অলা-ইয়ুব্দীনা যীনাতাহুন্না ইল্লা-লিবু‘ঊলাতিহিন্না আও আ-বা-য়ি হিন্না আও আ-বা-য়ি বু‘ঊলাতিহিন্না আও আব্না- য়িহিন্না আও আব্না-য়ি বু‘ঊ লাতিহিন্না আও ইখ্ওয়া-নিহিন্না আও বানীয় ইখ্ওয়ানিহিন্না আও বানী য় আখাওয়া-তিহিন্না আও নিসা-য়িহিন্না আও মা-মালাকাত্ আইমা-নুহুন্না আওয়িত্তা-বি‘ঈনা গইরি উলিল্ র্ইবাতি মির্না রিজ্বা-লি আওয়িত্ত্বিফ্লি ল্লাযীনা লাম্ ইয়াজ্ হারূ ‘আলা-‘আওরা-তিন নিসা-য়ি অলা- ইয়াদ্ব্রিব্না বির্আজুলিহিন্না লিইয়ু’লামা মা-ইয়ুখ্ফীনা মিন্ যীনাতিহিন্না; অতূবূ য় ইলা ল্লা-হি জ্বামী‘আন্ আইইয়ুহাল্ মুমিনূনা লা‘আল্লাকুম্ তুফ্লিহূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩১) আর মুমিন নারীদেরকে বল, তারা তাদের দৃষ্টিকে সংযত রাখবে এবং তাদের লজ্জাস্থানের হিফাযত করবে। আর যা সাধারণত প্রকাশ পায় তা ছাড়া তাদের সৌন্দর্য তারা প্রকাশ করবে না। তারা যেন তাদের ওড়না দিয়ে বক্ষদেশকে আবৃত করে রাখে। আর তারা যেন তাদের স্বামী, পিতা, শ্বশুর, নিজদের ছেলে, স্বামীর ছেলে, ভাই, ভাই এর ছেলে, বোনের ছেলে, আপন নারীগণ, তাদের ডান হাত যার মালিক হয়েছে, অধীনস্থ যৌনকামনামুক্ত পুরুষ অথবা নারীদের গোপন অঙ্গ সম্পর্কে অজ্ঞ বালক ছাড়া কারো কাছে নিজদের সৌন্দর্য প্রকাশ না করে। আর তারা যেন নিজদের গোপন সৌন্দর্য প্রকাশ করার জন্য সজোরে পদচারণা না করে। হে মুমিনগণ, তোমরা সকলেই আল্লাহর নিকট তাওবা কর, যাতে তোমরা সফলকাম হতে পার।


وَأَنكِحُواْ ٱلۡأَيَـٰمَىٰ مِنكُمۡ وَٱلصَّـٰلِحِينَ مِنۡ عِبَادِكُمۡ وَإِمَآٮِٕڪُمۡ‌ۚ إِن يَكُونُواْ فُقَرَآءَ يُغۡنِهِمُ ٱللَّهُ مِن فَضۡلِهِۦ‌ۗ وَٱللَّهُ وَٲسِعٌ عَلِيمٌ۬ ২৪.৩২

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩২) অআন্কিহুল্ আইয়া-মা-মিন্কুম্ অছ্ছোয়া-লিহীনা মিন্ ‘ইবা-দিকুম্ অইমা-য়িকুম্; ইঁ ইয়াকূনূ ফুক্বার-য়া ইয়ুগ্নিহিমুল্লা-হু মিন্ ফাদ্ব্লিহ্; অল্লা-হু ওয়া-সি‘উন্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩২) আর তোমরা তোমাদের মধ্যকার অবিবাহিত নারী-পুরুষ ও সৎকর্মশীল দাস দাসীদের বিবাহ দাও। তারা অভাবী হলে আল্লাহ নিজ অনুগ্রহে তাদেরকে অভাবমুক্ত করে দেবেন। আল্লাহ প্রাচুর্যময় ও মহাজ্ঞানী।


وَلۡيَسۡتَعۡفِفِ ٱلَّذِينَ لَا يَجِدُونَ نِكَاحًا حَتَّىٰ يُغۡنِيَہُمُ ٱللَّهُ مِن فَضۡلِهِۦ‌ۗ وَٱلَّذِينَ يَبۡتَغُونَ ٱلۡكِتَـٰبَ مِمَّا مَلَكَتۡ أَيۡمَـٰنُكُمۡ فَكَاتِبُوهُمۡ إِنۡ عَلِمۡتُمۡ فِيہِمۡ خَيۡرً۬ا‌ۖ وَءَاتُوهُم مِّن مَّالِ ٱللَّهِ ٱلَّذِىٓ ءَاتَٮٰكُمۡ‌ۚ وَلَا تُكۡرِهُواْ فَتَيَـٰتِكُمۡ عَلَى ٱلۡبِغَآءِ إِنۡ أَرَدۡنَ تَحَصُّنً۬ا لِّتَبۡتَغُواْ عَرَضَ ٱلۡحَيَوٰةِ ٱلدُّنۡيَا‌ۚ وَمَن يُكۡرِههُّنَّ فَإِنَّ ٱللَّهَ مِنۢ بَعۡدِ إِكۡرَٲهِهِنَّ غَفُورٌ۬ رَّحِيمٌ۬ ২৪.৩৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৩) অল্ ইয়াস্তা’ ফিফিল্লাযীনা লা-ইয়াজ্বিদূনা নিকা-হান্ হাত্তা-ইয়ুগ্নিয়াহুমুল্ লা-হু মিন্ ফাদ্ব্লিহ্; অল্লাযীনা ইয়াব্তাগূনাল্ কিতা-বা মিম্মা-মালাকাত্ আইমা-নুকুম্ ফাকা-তিবূহুম্ ইন্ ‘আলিম্তুম্ ফীহিম্ খইরঁও অ আ-তূহুম্ মিম্মা-লিল্লা-হিল্লাযী য় আ-তা-কুম্; অলা-তুক্রিহূ ফাতাইয়া-তিকুম্ ‘আলাল্ বিগা-য়ি ইন্ আরাদ্না তাহাছ্ছুনাল্লি তাব্তাগূ ‘আরাদ্বোয়াল্ হাইয়া-তি দ্দুন্ইয়া-; অ মাইঁ ইয়ুক্রিহ্ হুন্না ফাইন্না ল্লা-হা মিম্ বা’দি ইক্র-হিহিন্না গফূর্রু রহীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৩) আর যাদের বিবাহের সামর্থ্য নেই আল্লাহ তাদেরকে নিজ অনুগ্রহে অভাবমুক্ত না করা পর্যন্ত তারা যেন সংযম অবলম্বন করে। আর তোমাদের মালিকানাধীন দাস-দাসীদের মধ্যে যারা মুক্তির জন্য লিখিত চুক্তি করতে চায় তাদের সাথে তোমরা লিখিত চুক্তি কর, যদি তোমরা তাদের মধ্যে কল্যাণ আছে বলে জানতে পার এবং আল্লাহ তোমাদেরকে যে সম্পদ দিয়েছেন তা থেকে তোমরা তাদেরকে দাও। তোমাদের দাসীরা সতীত্ব রক্ষা করতে চাইলে তোমরা পার্থিব জীবনের সম্পদের কামনায় তাদেরকে ব্যভিচারে বাধ্য করো না। আর যারা তাদেরকে বাধ্য করবে, নিশ্চয় তাদেরকে বাধ্য করার পর আল্লাহ তাদের প্রতি অত্যন্ত ক্ষমাশীল পরম দয়ালু।


وَلَقَدۡ أَنزَلۡنَآ إِلَيۡكُمۡ ءَايَـٰتٍ۬ مُّبَيِّنَـٰتٍ۬ وَمَثَلاً۬ مِّنَ ٱلَّذِينَ خَلَوۡاْ مِن قَبۡلِكُمۡ وَمَوۡعِظَةً۬ لِّلۡمُتَّقِينَ ২৪.৩৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৪) অলাক্বদ্ আন্যাল্না য় ইলাইকুম্ আ-ইয়া-তিম্ মুবাইয়্যিনা-তিঁও অমাছালাম্ মিনাল্লাযীনা খলাও মিন্ ক্বব্লিকুম্ অমাও‘ইজোয়াতাল্লিল্ মুত্তাক্বীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৪) আর নিশ্চয় আমি তোমাদের কাছে নাযিল করেছি সুস্পষ্ট আয়াতসমূহ এবং তোমাদের পূর্বে যারা চলে গেছে তাদের দৃষ্টান্ত ও মুত্তাকীদের জন্য উপদেশ।


 ٱللَّهُ نُورُ ٱلسَّمَـٰوَٲتِ وَٱلۡأَرۡضِ‌ۚ مَثَلُ نُورِهِۦ كَمِشۡكَوٰةٍ۬ فِيہَا مِصۡبَاحٌ‌ۖ ٱلۡمِصۡبَاحُ فِى زُجَاجَةٍ‌ۖ ٱلزُّجَاجَةُ كَأَنَّہَا كَوۡكَبٌ۬ دُرِّىٌّ۬ يُوقَدُ مِن شَجَرَةٍ۬ مُّبَـٰرَڪَةٍ۬ زَيۡتُونَةٍ۬ لَّا شَرۡقِيَّةٍ۬ وَلَا غَرۡبِيَّةٍ۬ يَكَادُ زَيۡتُہَا يُضِىٓءُ وَلَوۡ لَمۡ تَمۡسَسۡهُ نَارٌ۬‌ۚ نُّورٌ عَلَىٰ نُورٍ۬‌ۗ يَہۡدِى ٱللَّهُ لِنُورِهِۦ مَن يَشَآءُ‌ۚ وَيَضۡرِبُ ٱللَّهُ ٱلۡأَمۡثَـٰلَ لِلنَّاسِ‌ۗ وَٱللَّهُ بِكُلِّ شَىۡءٍ عَلِيمٌ۬ ২৪.৩৫

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৫) আল্লা-হু নূরুস্ সামা-ওয়া-তি অল্র্আদ্ব্; মাছালু নূরিহী কামিশ্কা-তিন্ ফীহা-মিছ্বাহ্; আল্ মিছ্বা-হু ফী যুজ্বা-জ্বাহ্; আয্যুজ্বা-জ্বাতু কাআন্নাহা-কাওকাবুন্ র্দুরিইয়ুঁই ইয়ূক্বদু মিন্ শাজারতিম্ মুবা-রকাতিন্ ইতূনাতিল্লা-র্শাক্বিয়্যাতিঁও অলা-র্গবিয়াতিঁ ইয়াকা-দু যাইতুহা-ইয়ুদ্বী-য়ু অলাও লাম্ তাম্সাস্হু নার্-; নূরুন্ ‘আলা র্নূ; ইয়াহ্দিল্লা-হু লিনূরিহী মাই ইঁয়াশা-য়্; অইয়াদ্ব্রিবুল্লা-হুল্ আম্ছা-লা লিন্না-স্; অল্লা-হু বিকুল্লি শাইয়িন্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৫) আল্লাহ আসমানসমূহ ও যমীনের নূর। তাঁর নূরের উপমা একটি তাকের মতই। তাতে রয়েছে একটি প্রদীপ, প্রদীপটি রয়েছে একটি চিমনির মধ্যে। চিমনিটি উজ্জ্বল তারকার মতই। প্রদীপটি বরকতময় যাইতূন গাছের তেল দ্বারা জ্বালানো হয়, যা পূর্ব দিকেরও নয় এবং পশ্চিম দিকেরও নয়। এর তেল যেন আলো বিকিরণ করে, যদিও তাতে আগুন স্পর্শ না করে। নূরের উপর নূর। আল্লাহ যাকে ইচ্ছা হিদায়াত করেন তাঁর নূরের দিকে। আর আল্লাহ মানুষের জন্য উপমাসমূহ উপস্থাপন করেন। আর আল্লাহ প্রতিটি বস্তু সম্পর্কে সম্যক জ্ঞাত।


فِى بُيُوتٍ أَذِنَ ٱللَّهُ أَن تُرۡفَعَ وَيُذۡڪَرَ فِيہَا ٱسۡمُهُ ۥ يُسَبِّحُ لَهُ ۥ فِيہَا بِٱلۡغُدُوِّ وَٱلۡأَصَالِ ২৪.৩৬

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৬) ফী বুইয়ূতিন্ আযিনাল্লা-হু আন্ তুরফা‘আ অ ইয়ুয্কারা ফীহাস্মুহূ ইয়ুসাব্বিহু লাহূ ফীহা-বিল্গুদুওয়্যি অল্ আ-ছোয়া-ল্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৬) সেসব ঘরে যাকে সমুন্নত করতে এবং যেখানে আল্লাহর নাম যিক্র করতে আল্লাহই অনুমতি দিয়েছেন। সেখানে সকাল ও সন্ধ্যায় তাঁর তাসবীহ পাঠ করে-


رِجَالٌ۬ لَّا تُلۡهِيہِمۡ تِجَـٰرَةٌ۬ وَلَا بَيۡعٌ عَن ذِكۡرِ ٱللَّهِ وَإِقَامِ ٱلصَّلَوٰةِ وَإِيتَآءِ ٱلزَّكَوٰةِ‌ۙ يَخَافُونَ يَوۡمً۬ا تَتَقَلَّبُ فِيهِ ٱلۡقُلُوبُ وَٱلۡأَبۡصَـٰرُ ২৪.৩৭

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৭) রিজ্বা-লু ল্লা-তুল্হীহিম্ তিজ্বা-রতুঁও অলা-বাই‘উন্ ‘আন্ যিক্রিল্লা-হি অইক্বা-মিছ্ ছলা-তি অই-তা-য়িয্ যাকা- তি ইয়াখা ফূনা ইয়াওমান্ তাতাক্বাল্লাবু ফীহিল্ কুলূবু অল্ আব্ছোয়ার্-।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৭) সেসব লোক, যাদেরকে ব্যবসা-বাণিজ্য ও ক্রয়-বিক্রয় আল্লাহর যিক্র, সালাত কায়েম করা ও যাকাত প্রদান করা থেকে বিরত রাখে না। তারা সেদিনকে ভয় করে, যেদিন অন্তর ও দৃষ্টিসমূহ উল্টে যাবে।


لِيَجۡزِيَہُمُ ٱللَّهُ أَحۡسَنَ مَا عَمِلُواْ وَيَزِيدَهُم مِّن فَضۡلِهِۦ‌ۗ وَٱللَّهُ يَرۡزُقُ مَن يَشَآءُ بِغَيۡرِ حِسَابٍ۬ ২৪.৩৮

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৮) লিইয়াজ যিয়াহুমুল্লা-হু আহ্সানা মা-‘আমিলূ অ ইয়াযীদাহুম্ মিন্ ফাদ্ব্লিহ্; অল্লা-হু ইর্য়াযুকু মাইঁ ইয়াশা-য়ু বিগাইরি হিসা-ব্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৮) যাতে তাদের কৃত উত্তম আমলের জন্য আল্লাহ তাদেরকে প্রতিদান দেন এবং তিনি স্বীয় অনুগ্রহে তাদেরকে আরো বাড়িয়ে দেন। আর আল্লাহ যাকে ইচ্ছা করেন অপরিমিত রিয্ক দান করেন।


وَٱلَّذِينَ ڪَفَرُوٓاْ أَعۡمَـٰلُهُمۡ كَسَرَابِۭ بِقِيعَةٍ۬ يَحۡسَبُهُ ٱلظَّمۡـَٔانُ مَآءً حَتَّىٰٓ إِذَا جَآءَهُ ۥ لَمۡ يَجِدۡهُ شَيۡـًٔ۬ا وَوَجَدَ ٱللَّهَ عِندَهُ ۥ فَوَفَّٮٰهُ حِسَابَهُ ۥ‌ۗ وَٱللَّهُ سَرِيعُ ٱلۡحِسَابِ ২৪.৩৯

আরবি উচ্চারণ

২৪.৩৯) অল্লাযীনা কাফারূ য় আ’মা-লুহুম্ কাসার-বিম্ বিক্বীআতিঁ ইয়াহ্সাবুহুজ্ জোয়াম্য়া-নু মা-য়্; হাত্তা য় ইযা-জ্বা-য়াহূ লাম্ ইয়াজিদ্হু শাইয়াঁও অঅজ্বাদা ল্লা-হা ‘ইন্দাহূ ফাওয়াফ্ফা-হু হিসা-বাহ্; অল্লাহু সারীউ’ল্ হিসাব্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৩৯) আর যারা কুফরী করে, তাদের আমলসমূহ মরুভূমির মরিচিকার মত, পিপাসিত ব্যক্তি যাকে পানি মনে করে। অবশেষে যখন সে তার কাছে আসবে, তখন সে দেখবে সেটা কিছুই নয়। আর সে সেখানে আল্লাহকে দেখতে পাবে। অতঃপর তিনি তাকে তার হিসাব পরিপূর্ণ করে দেবেন। আর আল্লাহ অতি দ্রুত হিসাব গ্রহণকারী।


أَوۡ كَظُلُمَـٰتٍ۬ فِى بَحۡرٍ۬ لُّجِّىٍّ۬ يَغۡشَٮٰهُ مَوۡجٌ۬ مِّن فَوۡقِهِۦ مَوۡجٌ۬ مِّن فَوۡقِهِۦ سَحَابٌ۬‌ۚ ظُلُمَـٰتُۢ بَعۡضُہَا فَوۡقَ بَعۡضٍ إِذَآ أَخۡرَجَ يَدَهُ ۥ لَمۡ يَكَدۡ يَرَٮٰهَا‌ۗ وَمَن لَّمۡ يَجۡعَلِ ٱللَّهُ لَهُ ۥ نُورً۬ا فَمَا لَهُ ۥ مِن نُّورٍ ২৪.৪০

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪০) আও কাজুলুমা-তিন্ ফী বাহ্রিল্লুজ্জ্বিয়্যিইঁ ইয়াগ্শাহু মাওজুম্ মিন্ ফাওক্বিহী মাওজ্বুম্ মিন্ ফাওক্বিহী সাহা-ব্; জুলুমা-তুম্ বা’দ্বুহা-ফাওক্ব বা’দ্ব্; ইযা য় আখ্রজ্বা ইয়াদাহূ লাম্ ইয়াক্বাদ্ ইয়ার-হা-; অমাল্ লাম্ইয়াজ্ব্ ‘আলিল্লা-হু লাহূ নূরান্ ফামা লাহূ মিন্ র্নূ।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪০) অথবা (তাদের আমলসমূহ) গভীর সমূদ্রে ঘনিভূত অন্ধকারের মত, যাকে আচ্ছন্ন করে ঢেউয়ের উপরে ঢেউ, তার উপরে মেঘমালা। অনেক অন্ধকার; এক স্তরের উপর অপর স্তর। কেউ হাত বের করলে আদৌ তা দেখতে পায় না। আর আল্লাহ যাকে নূর দেন না তার জন্য কোন নূর নেই।


أَلَمۡ تَرَ أَنَّ ٱللَّهَ يُسَبِّحُ لَهُ ۥ مَن فِى ٱلسَّمَـٰوَٲتِ وَٱلۡأَرۡضِ وَٱلطَّيۡرُ صَـٰٓفَّـٰتٍ۬‌ۖ كُلٌّ۬ قَدۡ عَلِمَ صَلَاتَهُ ۥ وَتَسۡبِيحَهُ ۥ‌ۗ وَٱللَّهُ عَلِيمُۢ بِمَا يَفۡعَلُونَ ২৪.৪১

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪১) আলাম্ তারা আন্নাল্লা-হা ইয়ুসাব্বিহু লাহূ মান্ ফিস্ সামা-ওয়া-তি অল্র্আদ্বি অত্ব ্ত্বোয়াইরু ছোয়া-ফ্ ফা-ত্; কুল্লুন্ ক্বাদ্ ‘আলিমা ছলা-তাহূ অ তাস্বীহাহ্; অল্লা-হু ‘আলীমুম্ বিমা-ইয়াফ্‘আলূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪১) তুমি কি দেখনি যে, আসমান ও যমীনে যারা আছে তারা এবং সারিবদ্ধ হয়ে উড়ন্ত পাখিরা আল্লাহর তাসবীহ পাঠ করে? প্রত্যেকেই তাঁর সালাত ও তাসবীহ জানে। তারা যা করে সে সম্পর্কে আল্লাহ সম্যক অবগত।


وَلِلَّهِ مُلۡكُ ٱلسَّمَـٰوَٲتِ وَٱلۡأَرۡضِ‌ۖ وَإِلَى ٱللَّهِ ٱلۡمَصِيرُ ২৪.৪২

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪২) অ লিল্লা-হি মুল্কুস্ সামা-ওয়া-তি অল্র্আদ্বি অ ইলাল্ লা-হিল্ মার্ছী।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪২) আর আসমান ও যমীনের মালিকানা আল্লাহর জন্যই। আর আল্লাহর দিকেই প্রত্যাবর্তন।


أَلَمۡ تَرَ أَنَّ ٱللَّهَ يُزۡجِى سَحَابً۬ا ثُمَّ يُؤَلِّفُ بَيۡنَهُ ۥ ثُمَّ يَجۡعَلُهُ ۥ رُكَامً۬ا فَتَرَى ٱلۡوَدۡقَ يَخۡرُجُ مِنۡ خِلَـٰلِهِۦ وَيُنَزِّلُ مِنَ ٱلسَّمَآءِ مِن جِبَالٍ۬ فِيہَا مِنۢ بَرَدٍ۬ فَيُصِيبُ بِهِۦ مَن يَشَآءُ وَيَصۡرِفُهُ ۥ عَن مَّن يَشَآءُ‌ۖ يَكَادُ سَنَا بَرۡقِهِۦ يَذۡهَبُ بِٱلۡأَبۡصَـٰرِ ২৪.৪৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৩) আলাম্ তার আন্নাল্লা-হা ইয়ুয্জ্বী সাহা-বান্ ছুম্মা ইয়ুআল্লিফু বাইনাহূ ছুম্মা ইয়াজ‘আলুহূ রুকা-মান্ ফাতারল্ অদ্ক ইয়াখ্রুজুমিন্ খিলা-লিহী অইয়ুনায্যিলু মিনাস্ সামা-য়ি মিন্ জ্বিবা-লিন্ ফীহা- মিম্ বারদিন্ ফাইয়ুছীবু বিহী মাইঁ ইয়াশা-য়ু অইয়াছ্রিফুহূ ‘আঁম্ মাইঁ ইয়াশা-য়্; ইয়াকা-দু সানা-র্বাক্বিহী ইয়ায্হাবু বিল্ আব্ছোয়ার্-।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৩) তুমি কি দেখনি যে, আল্লাহ মেঘমালাকে পরিচালিত করেন, তারপর তিনি সেগুলোকে একত্রে জুড়ে দেন, তারপর সেগুলো স্তুপীকৃত করেন, তারপর তুমি দেখতে পাও তার মধ্য থেকে বৃষ্টির ফোঁটা বের হয়। আর তিনি আকাশে স্থিত মেঘমালার পাহাড় থেকে শিলা বর্ষণ করেন। তারপর তা দ্বারা যাকে ইচ্ছা আঘাত করেন। আর যার কাছ থেকে ইচ্ছা তা সরিয়ে দেন। এর বিদ্যুতের ঝলক দৃষ্টিশক্তি প্রায় কেড়ে নেয়।


يُقَلِّبُ ٱللَّهُ ٱلَّيۡلَ وَٱلنَّهَارَ‌ۚ إِنَّ فِى ذَٲلِكَ لَعِبۡرَةً۬ لِّأُوْلِى ٱلۡأَبۡصَـٰرِ ২৪.৪৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৪) ইয়ুক্বল্লিবু ল্লা-হুল্ লাইলা অন্নাহার্-; ইন্না ফী যা-লিকা লা-‘ইব্রতাল্লি উলিল্ আব্ছোয়ার্-।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৪) আল্লাহ দিন ও রাতের আবর্তন ঘটান, নিশ্চয়ই এতে অন্তরদৃষ্টিসম্পন্নদের জন্য শিক্ষা রয়েছে।


وَٱللَّهُ خَلَقَ كُلَّ دَآبَّةٍ۬ مِّن مَّآءٍ۬‌ۖ فَمِنۡہُم مَّن يَمۡشِى عَلَىٰ بَطۡنِهِۦ وَمِنۡہُم مَّن يَمۡشِى عَلَىٰ رِجۡلَيۡنِ وَمِنۡہُم مَّن يَمۡشِى عَلَىٰٓ أَرۡبَعٍ۬‌ۚ يَخۡلُقُ ٱللَّهُ مَا يَشَآءُ‌ۚ إِنَّ ٱللَّهَ عَلَىٰ ڪُلِّ شَىۡءٍ۬ قَدِيرٌ۬ ২৪.৪৫

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৫) অল্লা-হু খলাক্ব কুল্লা-দা-ব্বাতিম্ মিম্ মা-য়িন্ ফামিন্হুম্ মাইঁ ইয়াম্শী ‘আলা য় বাত্ব্্িনহী অ মিন্হুম্ মাইঁ ইয়াম্শী ‘আলা-রিজলাইনি অ মিন্হুম্ মাইঁ ইয়াম্শী ‘আলা য় র্আবা’; ইয়াখ্লুকুল্লা-হু মা- ইয়াশা-য়্; ইন্নাল্লা-হা ‘আলা-কুল্লি শাইয়িন্ ক্বর্দী।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৫) আর আল্লাহ প্রত্যেক জীবকে পানি থেকে সৃষ্টি করেছেন। অতঃপর তাদের কোনটি পেটে ভর দিয়ে চলে, কোনটি চলে দু’পায়ের উপর, আবার কোনটি চার পায়ের উপর চলে। আল্লাহ যা ইচ্ছা সৃষ্টি করেন। নিশ্চয় আল্লাহ সব কিছুর উপর সর্বশক্তিমান।


لَّقَدۡ أَنزَلۡنَآ ءَايَـٰتٍ۬ مُّبَيِّنَـٰتٍ۬‌ۚ وَٱللَّهُ يَہۡدِى مَن يَشَآءُ إِلَىٰ صِرَٲطٍ۬ مُّسۡتَقِيمٍ۬ ২৪.৪৬

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৬) লাক্বদ্ আন্যাল্না য় আ-ইয়া-তিম্ মুবাইয়্যিনা-ত্; অল্লা-হু ইয়াহ্দী মাই ঁইয়াশা-য়ু ইলা-ছির-ত্বিম্ মুস্তাক্বীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৬) অবশ্যই আমি সুস্পষ্ট আয়াতসমূহ নাযিল করেছি। আর আল্লাহ যাকে ইচ্ছা সরল সঠিক পথ দেখান।


وَيَقُولُونَ ءَامَنَّا بِٱللَّهِ وَبِٱلرَّسُولِ وَأَطَعۡنَا ثُمَّ يَتَوَلَّىٰ فَرِيقٌ۬ مِّنۡہُم مِّنۢ بَعۡدِ ذَٲلِكَ‌ۚ وَمَآ أُوْلَـٰٓٮِٕكَ بِٱلۡمُؤۡمِنِينَ ২৪.৪৭

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৭) অ ইয়াকুলূনা আ-মান্না-বিল্লা-হি অর্বিরসূলি অ আত্বোয়া’না ছুম্মা ইয়াতাওয়াল্লা-ফারীক¦ ুম্ মিন্হুম্ মিম্ বা’দি যা-লিক্; অমা য় উলা-য়িকা বিল্ মুমিনীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৭) তারা বলে, ‘আমরা আল্লাহ ও রাসূলের প্রতি ঈমান এনেছি এবং আমরা আনুগত্য করেছি’, তারপর তাদের একটি দল এর পরে মুখ ফিরিয়ে নেয়। আর তারা সত্যিকার মুমিন নয়।


وَإِذَا دُعُوٓاْ إِلَى ٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ لِيَحۡكُمَ بَيۡنَہُمۡ إِذَا فَرِيقٌ۬ مِّنۡہُم مُّعۡرِضُونَ ২৪.৪৮

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৮) অ ইযা-দু‘ঊ য় ইলাল্লা-হি অরসূলিহী লিইয়াহ্কুমা বাইনাহুম্ ইযা-ফারীকুম্ মিন্হুম্ মু’রিদ্বূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৮) আর যখন তাদেরকে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের প্রতি এ মর্মে আহ্বান করা হয় যে, তিনি তাদের মধ্যে বিচারমীমাংসা করবেন, তখন তাদের একটি দল মুখ ফিরিয়ে নেয়।


وَإِن يَكُن لَّهُمُ ٱلۡحَقُّ يَأۡتُوٓاْ إِلَيۡهِ مُذۡعِنِينَ ২৪.৪৯

আরবি উচ্চারণ

২৪.৪৯) অ ইঁ ইয়াকু ল্লাহুমুল্ হাককু ইয়াতূ য় ইলাইহি মুয্‘ঈনীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৪৯) কিন্তু যদি সত্য তাদের পক্ষে থাকে, তাহলে তারা তার কাছে একান্ত বিনীতভাবে ছুটে আসে।


أَفِى قُلُوبِہِم مَّرَضٌ أَمِ ٱرۡتَابُوٓاْ أَمۡ يَخَافُونَ أَن يَحِيفَ ٱللَّهُ عَلَيۡہِمۡ وَرَسُولُهُ ۥ‌ۚ بَلۡ أُوْلَـٰٓٮِٕكَ هُمُ ٱلظَّـٰلِمُونَ ২৪.৫০

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫০) আ ফী কুলূবিহিম্ মারাদ্ব ুন্ আর্মি তাবূ য় আম্ ইয়াখ-ফূনা আইঁ ইয়াহীফাল্লা-হু ‘আলাইহিম্ অ রসূলুহ্; বাল্ উলা-য়িকা হুমুজ্ জোয়া-লিমূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫০) তাদের অন্তরে কি ব্যাধি রয়েছে? নাকি তারা সন্দেহ পোষণ করে, না তারা ভয় করে যে, আল্লাহ ও তাঁর রাসূল তাদের উপর যুলম করবেন? বরং তারাই তো যালিম।


إِنَّمَا كَانَ قَوۡلَ ٱلۡمُؤۡمِنِينَ إِذَا دُعُوٓاْ إِلَى ٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ لِيَحۡكُمَ بَيۡنَهُمۡ أَن يَقُولُواْ سَمِعۡنَا وَأَطَعۡنَا‌ۚ وَأُوْلَـٰٓٮِٕكَ هُمُ ٱلۡمُفۡلِحُونَ ২৪.৫১

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫১) ইন্নামা-কা-না ক্বওলাল্ মুমিনীনা ইযা-দু‘ঊ য় ইলাল্লা-হি অরসূলিহী লিইয়াহ্কুমা বাইনাহুম্ আইঁ ইয়াকু লূ সামি’না- অ‘আত্বোয়া’না-; অউলা-য়িকা হুমুল্ মুফ্লিহূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫১) মুমিনদেরকে যখন আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের প্রতি এ মর্মে আহ্বান করা হয় যে, তিনি তাদের মধ্যে বিচার, মীমাংসা করবেন, তাদের কথা তো এই হয় যে, তখন তারা বলে: ‘আমরা শুনলাম ও আনুগত্য করলাম।’ আর তারাই সফলকাম।


وَمَن يُطِعِ ٱللَّهَ وَرَسُولَهُ ۥ وَيَخۡشَ ٱللَّهَ وَيَتَّقۡهِ فَأُوْلَـٰٓٮِٕكَ هُمُ ٱلۡفَآٮِٕزُونَ ২৪.৫২

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫২) অ মাইঁ ইউত্বি‘ঈল্লা-হা অ রসূলাহূ অ ইয়াখ্শাল্লা-হা অ ইয়াত্তাকহি ফাউলা-য়িকা হুমুল্ ফা-য়িযূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫২) আর যে কেউ আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করে, আল্লাহকে ভয় করে এবং তাঁর তাকওয়া অবলম্বন করে, তারাই কৃতকার্য।


۞ وَأَقۡسَمُواْ بِٱللَّهِ جَهۡدَ أَيۡمَـٰنِہِمۡ لَٮِٕنۡ أَمَرۡتَہُمۡ لَيَخۡرُجُنَّ‌ۖ قُل لَّا تُقۡسِمُواْ‌ۖ طَاعَةٌ۬ مَّعۡرُوفَةٌ‌ۚ إِنَّ ٱللَّهَ خَبِيرُۢ بِمَا تَعۡمَلُونَ ২৪.৫৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৩) অ আক্ব্সামূ বিল্লাহি জ্বাহ্দা আইমা-নিহিম্ লায়িন্ আর্মাতাহুম্ লাইয়াখ্রুজুন্; কুল্ লা-তুকসিমূ ত্বোয়া-আ’তুম্ মা’রূফাহ্; ইন্নাল্লা-হা খবীরুম্ বিমা-তা’মালূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৩) আর তারা তাদের সুদৃঢ় শপথের মাধ্যমে আল্লাহর নামে কসম করে বলে যে, ‘তুমি যদি তাদের আদেশ কর তবে তারা বের হবেই। তুমি বল, ‘তোমরা কসম করো না। [তোমাদের] আনুগত্য তো জানাই আছে। তোমরা যা কিছু কর, নিশ্চয় আল্লাহ সে বিষয়ে সবিশেষ অবহিত’।


قُلۡ أَطِيعُواْ ٱللَّهَ وَأَطِيعُواْ ٱلرَّسُولَ‌ۖ فَإِن تَوَلَّوۡاْ فَإِنَّمَا عَلَيۡهِ مَا حُمِّلَ وَعَلَيۡڪُم مَّا حُمِّلۡتُمۡ‌ۖ وَإِن تُطِيعُوهُ تَهۡتَدُواْ‌ۚ وَمَا عَلَى ٱلرَّسُولِ إِلَّا ٱلۡبَلَـٰغُ ٱلۡمُبِينُ ২৪.৫৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৪) কুল্ আত্বী ‘উল্লা-হা অ আত্বী‘র্উ রসূলা ফাইন্ তাওল্লাও ফাইন্নামা- ‘আলাইহি মা-হুম্মিলা অ ‘আলাইকুম্ মা-হুম্মিল্তুম্; অইন্ তুত্বী‘ঊহু তাহ্তাদূ; অমা-‘আর্লা রসূলি ইল্লাল্ বালা-গুল্ মুবীন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৪) বল, ‘তোমরা আল্লাহর আনুগত্য কর এবং রাসূলের আনুগত্য কর।’ তারপর যদি তোমরা মুখ ফিরিয়ে নাও, তবে সে শুধু তার উপর অর্পিত দায়িত্বের জন্য দায়ী এবং তোমাদের উপর অর্পিত দায়িত্বের জন্য তোমরাই দায়ী। আর যদি তোমরা তার আনুগত্য কর তবে তোমরা হিদায়াতপ্রাপ্ত হবে। আর রাসূলের দায়িত্ব শুধু স্পষ্টভাবে পৌঁছে দেয়া।


وَعَدَ ٱللَّهُ ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ مِنكُمۡ وَعَمِلُواْ ٱلصَّـٰلِحَـٰتِ لَيَسۡتَخۡلِفَنَّهُمۡ فِى ٱلۡأَرۡضِ ڪَمَا ٱسۡتَخۡلَفَ ٱلَّذِينَ مِن قَبۡلِهِمۡ وَلَيُمَكِّنَنَّ لَهُمۡ دِينَہُمُ ٱلَّذِى ٱرۡتَضَىٰ لَهُمۡ وَلَيُبَدِّلَنَّہُم مِّنۢ بَعۡدِ خَوۡفِهِمۡ أَمۡنً۬ا‌ۚ يَعۡبُدُونَنِى لَا يُشۡرِكُونَ بِى شَيۡـًٔ۬ا‌ۚ وَمَن ڪَفَرَ بَعۡدَ ذَٲلِكَ فَأُوْلَـٰٓٮِٕكَ هُمُ ٱلۡفَـٰسِقُونَ ২৪.৫৫

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৫) অ‘আদাল্লা-হু ল্লাযীনা আ-মানূ মিন্কুম্ অ ‘আমিলুছ্ ছোয়া-লিহা-তি লাইয়াস্তাখ্লিফান্নাহুম্ ফিল্ র্আদ্বি কামাস্ তাখ্লাফাল্লাযীনা মিন্ ক্বব্লিহিম্ অলা ইয়ুমাক্কিনান্না লাহুম্ দীনা হুমু ল্লার্যী তাদ্বোয়া-লাহুম্ অলাইয়ুবাদ্দি লান্নাহুম্ মিম্ বা’দি খাওফিহিম্ আম্না-; ইয়া’বুদূ নানী লা- ইয়ুশ্রিকূনা বী শাইয়া-; অমান্ কাফারা বা’দা যা-লিকা ফাউলা-য়িকা হুমুল্ ফা-সিকুন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৫) তোমাদের মধ্যে যারা ঈমান আনে এবং সৎকর্ম করে আল্লাহ তাদেরকে এ মর্মে ওয়াদা দিয়েছেন যে, তিনি নিশ্চিতভাবে তাদেরকে যমীনের প্রতিনিধিত্ব প্রদান করবেন, যেমন তিনি প্রতিনিধিত্ব প্রদান করেছিলেন তাদের পূর্ববর্তীদের এবং তিনি অবশ্যই তাদের জন্য শক্তিশালী ও সুপ্রতিষ্ঠিত করবেন তাদের দীনকে, যা তিনি তাদের জন্য পছন্দ করেছেন এবং তিনি তাদের ভয়-ভীতি শান্তি-নিরাপত্তায় পরিবর্তিত করে দেবেন। তারা আমারই ইবাদাত করবে, আমার সাথে কোন কিছুকে শরীক করবে না। আর এরপর যারা কুফরী করবে তারাই ফাসিক।


وَأَقِيمُواْ ٱلصَّلَوٰةَ وَءَاتُواْ ٱلزَّكَوٰةَ وَأَطِيعُواْ ٱلرَّسُولَ لَعَلَّڪُمۡ تُرۡحَمُونَ ২৪.৫৬

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৬) অআক্বীমুছ্ ছলা-তা অআ-তুয্ যাকা-তা-অ আত্বী‘র্ঊ রসূলা-লা‘আল্লাকুম্ র্তুহামূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৬) আর তোমরা সালাত কায়েম কর, যাকাত দাও এবং রাসূলের আনুগত্য কর, যাতে তোমরা রহমতপ্রাপ্ত হতে পার।


لَا تَحۡسَبَنَّ ٱلَّذِينَ كَفَرُواْ مُعۡجِزِينَ فِى ٱلۡأَرۡضِ‌ۚ وَمَأۡوَٮٰهُمُ ٱلنَّارُ‌ۖ وَلَبِئۡسَ ٱلۡمَصِيرُ ২৪.৫৭

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৭) লা-তাহ্সাবান্নাল্লাযীনা কাফারূ মু’জ্বিযীনা ফিল্ র্আদ্বি অমাওয়া হুমুন্নার্-; অলাবিসাল্ মার্ছী।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৭) তুমি কাফিরদেরকে যমীনে অপারগকারী মনে করো না; তাদের আশ্রয়স্থল আগুন। আর কতই না নিকৃষ্ট এই প্রত্যাবর্তনস্থল!


يَـٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ لِيَسۡتَـٔۡذِنكُمُ ٱلَّذِينَ مَلَكَتۡ أَيۡمَـٰنُكُمۡ وَٱلَّذِينَ لَمۡ يَبۡلُغُواْ ٱلۡحُلُمَ مِنكُمۡ ثَلَـٰثَ مَرَّٲتٍ۬‌ۚ مِّن قَبۡلِ صَلَوٰةِ ٱلۡفَجۡرِ وَحِينَ تَضَعُونَ ثِيَابَكُم مِّنَ ٱلظَّهِيرَةِ وَمِنۢ بَعۡدِ صَلَوٰةِ ٱلۡعِشَآءِ‌ۚ ثَلَـٰثُ عَوۡرَٲتٍ۬ لَّكُمۡ‌ۚ لَيۡسَ عَلَيۡكُمۡ وَلَا عَلَيۡهِمۡ جُنَاحُۢ بَعۡدَهُنَّ‌ۚ طَوَّٲفُونَ عَلَيۡكُم بَعۡضُڪُمۡ عَلَىٰ بَعۡضٍ۬‌ۚ كَذَٲلِكَ يُبَيِّنُ ٱللَّهُ لَكُمُ ٱلۡأَيَـٰتِ‌ۗ وَٱللَّهُ عَلِيمٌ حَكِيمٌ۬ ২৪.৫৮

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৮) ইয়া য় আইয়্যুহাল্লাযীনা আ-মানূ লিইয়াস্তা যিন্কুমুল্ লাযীনা মালাকাত্ আইমা-নুকুম্ অল্লাযীনা লাম্ ইয়াব্লুগুল্ হুলুমা মিন্কুম্ ছালা-ছা র্মার-ত্; মিন্ ক্বব্লি ছলা-তিল্ ফাজ¦্রি অ হীনা তাদ্বোয়া‘ঊনা ছিয়া-বাকুম্ মিনাজ্ জোয়াহীরতি অমিম্ বা’দি ছলা-তিল্ ইশা-য়্; ছালা-ছু ‘আওরা-তিল্লাকুম্; লাইসা ‘আলাইকুম্ অলা-‘আলাইহিম্ জুনা হুম্ বা’দা হুন্; ত্বোয়াওয়া- ফূনা ‘আলাইকুম্ বা’দ্বুকুম্ ‘আলা-বা’দ্ব্ কাযা-লিকা ইয়ুবাইয়্যিনু ল্লা-হু লাকুমুল্ আ-ইয়া-ত্; অল্লা-হু আ’লীমুন্ হাকীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৮) হে মুমিনগণ, তোমাদের ডানহাত যার মালিক হয়েছে এবং তোমাদের মধ্যে যারা প্রাপ্তবয়স্ক হয়নি তারা যেন অবশ্যই তিন সময়ে অনুমতি গ্রহণ করে। ফজরের সালাতের পূর্বে, দুপুরে যখন তোমরা তোমাদের পোশাক খুলে রাখ, এবং ‘ইশার সালাতের পর; এই তিনটি তোমাদের [গোপনীয়তার] সময়। এই তিন সময়ের পর [অন্য কোন সময়ে বিনা অনুমতিতে আসলে] তোমাদের এবং তাদের কোন দোষ নেই। তোমাদের একে অন্যের কাছে যাতায়াত করতেই হয়। এভাবে আল্লাহ তোমাদের উদ্দেশ্যে তাঁর আয়াতসমূহ বর্ণনা করেন। আল্লাহ মহাজ্ঞানী, প্রজ্ঞাময়।


وَإِذَا بَلَغَ ٱلۡأَطۡفَـٰلُ مِنكُمُ ٱلۡحُلُمَ فَلۡيَسۡتَـٔۡذِنُواْ ڪَمَا ٱسۡتَـٔۡذَنَ ٱلَّذِينَ مِن قَبۡلِهِمۡ‌ۚ كَذَٲلِكَ يُبَيِّنُ ٱللَّهُ لَڪُمۡ ءَايَـٰتِهِۦ‌ۗ وَٱللَّهُ عَلِيمٌ حَڪِيمٌ۬ ২৪.৫৯

আরবি উচ্চারণ

২৪.৫৯) অ ইযা-বালাগাল্ আত্ব ফা-লূ মিন্কুমুল্ হুলুমা ফাল্ইয়াস্তাযিনূ কামাস্তাযানাল্লাযীনা মিন্ ক্বব্লিহিম্; কাযা-লিকা ইয়ুবাইয়্যিনুল্লা-হু লাকুম্ আ-ইয়া-তিহ্; অল্লা-হু ‘আলীমুন্ হাকীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৫৯) আর তোমাদের সন্তান-সন্ততি যখন প্রাপ্তবয়স্ক হয়, তখন তারাও যেন অনুমতি প্রার্থনা করে যেমনিভাবে তাদের অগ্রজরা অনুমতি প্রার্থনা করত। এভাবে আল্লাহ তোমাদের জন্য তাঁর আয়াতসমূহ বর্ণনা করেন। আর আল্লাহ মহাজ্ঞানী, প্রজ্ঞাময়।


وَٱلۡقَوَٲعِدُ مِنَ ٱلنِّسَآءِ ٱلَّـٰتِى لَا يَرۡجُونَ نِكَاحً۬ا فَلَيۡسَ عَلَيۡهِنَّ جُنَاحٌ أَن يَضَعۡنَ ثِيَابَهُنَّ غَيۡرَ مُتَبَرِّجَـٰتِۭ بِزِينَةٍ۬‌ۖ وَأَن يَسۡتَعۡفِفۡنَ خَيۡرٌ۬ لَّهُنَّ‌ۗ وَٱللَّهُ سَمِيعٌ عَلِيمٌ۬ ২৪.৬০

আরবি উচ্চারণ

২৪.৬০) অল্ ক্বওয়া-‘ইদু মিনান্নিসা-য়িল্লা-তী লা-ইর্য়া জু না নিকা-হান্ ফালাইসা ‘আলাইহিন্না জুনা-হুন্ আইঁ ইয়াদ্বোয়া’না ছিয়া-বা হুন্না গইর মুতার্বারিজ্বা-তিম্ বিযীনাহ্; অআইঁ ইয়াস্তাফিফ্না খইরুল্লাহুন্; অল্লা-হু সামী‘উন্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৬০) আর বৃদ্ধা নারীরা, যারা বিয়ের প্রত্যাশা করে না, তাদের জন্য কোন দোষ নেই, যদি তারা তাদের সৌন্দর্য প্রদর্শন না করে তাদের কিছু পোশাক খুলে রাখে এবং এ থেকে বিরত থাকাই তাদের জন্য উত্তম। আর আল্লাহ সর্বশ্রোতা, মহাজ্ঞানী।


لَّيۡسَ عَلَى ٱلۡأَعۡمَىٰ حَرَجٌ۬ وَلَا عَلَى ٱلۡأَعۡرَجِ حَرَجٌ۬ وَلَا عَلَى ٱلۡمَرِيضِ حَرَجٌ۬ وَلَا عَلَىٰٓ أَنفُسِڪُمۡ أَن تَأۡكُلُواْ مِنۢ بُيُوتِڪُمۡ أَوۡ بُيُوتِ ءَابَآٮِٕڪُمۡ أَوۡ بُيُوتِ أُمَّهَـٰتِكُمۡ أَوۡ بُيُوتِ إِخۡوَٲنِڪُمۡ أَوۡ بُيُوتِ أَخَوَٲتِڪُمۡ أَوۡ بُيُوتِ أَعۡمَـٰمِڪُمۡ أَوۡ بُيُوتِ عَمَّـٰتِڪُمۡ أَوۡ بُيُوتِ أَخۡوَٲلِكُمۡ أَوۡ بُيُوتِ خَـٰلَـٰتِڪُمۡ أَوۡ مَا مَلَڪۡتُم مَّفَاتِحَهُ ۥۤ أَوۡ صَدِيقِڪُمۡ‌ۚ لَيۡسَ عَلَيۡڪُمۡ جُنَاحٌ أَن تَأۡڪُلُواْ جَمِيعًا أَوۡ أَشۡتَاتً۬ا‌ۚ فَإِذَا دَخَلۡتُم بُيُوتً۬ا فَسَلِّمُواْ عَلَىٰٓ أَنفُسِكُمۡ تَحِيَّةً۬ مِّنۡ عِندِ ٱللَّهِ مُبَـٰرَڪَةً۬ طَيِّبَةً۬‌ۚ ڪَذَٲلِكَ يُبَيِّنُ ٱللَّهُ لَڪُمُ ٱلۡأَيَـٰتِ لَعَلَّڪُمۡ تَعۡقِلُونَ২৪.৬১

আরবি উচ্চারণ

২৪.৬১) লাইসা ‘আলাল্ ‘আমা-হারাজ্বঁও অলা- ‘আলাল্ আ’রজ্বি হারজঁও অলা- ‘আলাল্ মারীদ্বি হারজুও অলা- ‘আলা য় আন্ফুসিকুম্ আন্ তাকুলূ মিম্ বুইয়ূতিকুম্ আও বুইয়ূতি আ-বা-য়িকুম্ আও বুইয়ূতি উম্মাহা-তিকুম্ আও বুইয়ূতি ইখ্ওয়া-নিকুম্ আও বুইয়ূতি আখাওয়া-তিকুম্ আও বুইয়ূতি আ’মা-মিকুম্ আও বুইয়ূতি ‘আম্মা-তিকুম্ আও বুইয়ূতি আখ্ওয়া-লিকুম্ আও বুইয়ূতি খ-লা-তিকুম্ আও মা-মালাক্তুম্ মাফা-তিহাহূ য় আও ছোয়াদ্বীক্বিকুম্; লাইসা ‘আলাইকুম্ জুনা-হুন্ আন্ তাকুলূ জ্বামী‘আন্ আও আশ্তা-তা-; ফাইযা-দাখল্তুম্ বুইয়ূতান্ ফাসাল্লিমূ ‘আলা য় আন্ফুসিকুম্ তাহিয়্যাতাম্ মিন্ ‘ইন্দিল্লা-হি মুবা-রাকাতান্ ত্বোয়াইয়্যিবাহ্; কাযা-লিকা ইয়্যুবাইয়্যিনুল্লা-হু লাকুমুল্ আ-ইয়া-তি লা‘আল্লাকুম্ তা’ক্বিলূন্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৬১) অন্ধের জন্য কোন দোষ নেই, পঙ্গুর জন্য কোন দোষ নেই, রোগাক্রান্তের জন্য কোন দোষ নেই এবং তোমাদের নিজদের জন্যও কোন দোষ নেই যে তোমরা খাবে তোমাদের নিজদের ঘরে, অথবা তোমাদের পিতাদের ঘরে, অথবা তোমাদের মায়েদের ঘরে, অথবা তোমাদের ভাইদের ঘরে, অথবা তোমাদের বোনদের ঘরে, অথবা তোমাদের চাচাদের ঘরে, অথবা তোমাদের ফুফুদের ঘরে, অথবা তোমাদের মামাদের ঘরে, অথবা তোমাদের খালাদের ঘরে, অথবা সেসব ঘরে যার চাবি তোমাদের অধিকারে রয়েছে, অথবা তোমাদের বন্ধুদের ঘরে। তোমরা একত্রে খাও অথবা আলাদা আলাদা খাও তাতে কোনও দোষ নেই। তবে তোমরা যখন কোন ঘরে প্রবেশ করবে তখন তোমরা নিজদের উপর সালাম করবে, আল্লাহর পক্ষ থেকে বরকতপূর্ণ ও পবিত্র অভিবাদনস্বরূপ। এভাবে আল্লাহ তোমাদের উদ্দেশ্যে তাঁর আয়াতসমূহ বর্ণনা করেন যাতে তোমরা বুঝতে পার।


إِنَّمَا ٱلۡمُؤۡمِنُونَ ٱلَّذِينَ ءَامَنُواْ بِٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ وَإِذَا ڪَانُواْ مَعَهُ ۥ عَلَىٰٓ أَمۡرٍ۬ جَامِعٍ۬ لَّمۡ يَذۡهَبُواْ حَتَّىٰ يَسۡتَـٔۡذِنُوهُ‌ۚ إِنَّ ٱلَّذِينَ يَسۡتَـٔۡذِنُونَكَ أُوْلَـٰٓٮِٕكَ ٱلَّذِينَ يُؤۡمِنُونَ بِٱللَّهِ وَرَسُولِهِۦ‌ۚ فَإِذَا ٱسۡتَـٔۡذَنُوكَ لِبَعۡضِ شَأۡنِهِمۡ فَأۡذَن لِّمَن شِئۡتَ مِنۡهُمۡ وَٱسۡتَغۡفِرۡ لَهُمُ ٱللَّهَ‌ۚ إِنَّ ٱللَّهَ غَفُورٌ۬ رَّحِيمٌ۬ ২৪.৬২

আরবি উচ্চারণ

২৪.৬২) ইন্নামাল্ মুমিনুনাল্লাযীনা আ-মানূ বিল্লা-হি অরসূলিহী অইযা-কা-নূ মা‘আহূ ‘আলা য় আম্রিন্ জ্বা-মি‘ইল্ লাম্ ইয়ায্হাবূ হাত্তা-ইয়াস্তাযিনূহ্; ইন্নাল্লাযীনা ইয়াস্তাযিনূনাকা উলা-য়িকাল্ লাযীনা ইয়ুমিনূনা বিল্লা-হি অ রসূলিহী ফাইয়াস্ তা’যানূকা লিবা’দ্বি শা’নিহিম্ ফা’যা ল্লিমান্ শি’তা মিন্হুম্ অস্তাগ্ র্ফিলাহুমুল্লা-হ্; ইন্নাল্লা-হা গফূর্রু রহীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৬২) মুমিন শুধু তারাই যারা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের ওপর ঈমান আনে এবং তাঁর সাথে কোন সমষ্টিগত কাজে থাকলে অনুমতি না নিয়ে চলে যায় না। নিশ্চয় তোমার কাছে যারা অনুমতি চায় তারাই কেবল আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের উপর ঈমান আনে; সুতরাং কোন প্রয়োজনে তারা তোমার কাছে বাইরে যাওয়ার অনুমতি চাইলে তাদের মধ্যে তোমার যাকে ইচ্ছা তুমি অনুমতি দেবে এবং তাদের জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা কর। নিশ্চয় আল্লাহ পরম ক্ষমাশীল ও পরম দয়ালু।


لَّا تَجۡعَلُواْ دُعَآءَ ٱلرَّسُولِ بَيۡنَڪُمۡ كَدُعَآءِ بَعۡضِكُم بَعۡضً۬ا‌ۚ قَدۡ يَعۡلَمُ ٱللَّهُ ٱلَّذِينَ يَتَسَلَّلُونَ مِنكُمۡ لِوَاذً۬ا‌ۚ فَلۡيَحۡذَرِ ٱلَّذِينَ يُخَالِفُونَ عَنۡ أَمۡرِهِۦۤ أَن تُصِيبَہُمۡ فِتۡنَةٌ أَوۡ يُصِيبَہُمۡ عَذَابٌ أَلِيمٌ ২৪.৬৩

আরবি উচ্চারণ

২৪.৬৩) লাতাজ‘আলূ দু‘আ-র্য়া রসূলি বাইনাকুম্ কাদু‘আ-য়ি বা’দ্বিকুম্ বা’দ্বোয়া-; ক্বাদ্ ইয়া’লামুল্লা-হুল্ লাযীনা ইয়াতাসাল্লালূনা মিন্কুম্ লিওয়া-যান্ ফাল্ইয়াহ্যারি ল্লাযীনা ইয়ুখা-লিফূনা ‘আন্ আম্রিহী য় আন্ তুছীবাহুম্ ফিত্নাতুন্ আও ইয়ুছীবাহুম্ ‘আযা-বুন্ আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৬৩) তোমরা পরস্পরকে যেভাবে ডাকো রাসূলকে সেভাবে ডেকো না; তোমাদের মধ্যে যারা চুপিসারে সরে পড়ে আল্লাহ অবশ্যই তাদেরকে জানেন। অতএব যারা তাঁর নির্দেশের বিরুদ্ধাচরণ করে তারা যেন তাদের ওপর বিপর্যয় নেমে আসা অথবা যন্ত্রণাদায়ক আযাব পৌঁছার ভয় করে।


أَلَآ إِنَّ لِلَّهِ مَا فِى ٱلسَّمَـٰوَٲتِ وَٱلۡأَرۡضِ‌ۖ قَدۡ يَعۡلَمُ مَآ أَنتُمۡ عَلَيۡهِ وَيَوۡمَ يُرۡجَعُونَ إِلَيۡهِ فَيُنَبِّئُهُم بِمَا عَمِلُواْ‌ۗ وَٱللَّهُ بِكُلِّ شَىۡءٍ عَلِيمُۢ ২৪.৬৪

আরবি উচ্চারণ

২৪.৬৪) আলা য় ইন্না লিল্লা-হি মা-ফিস্ সামা-ওয়া-তি অল্ র্আদ্ব্; ক্বদ্ ইয়া’লামু মা য় আনতুম্ ‘আলাইহ্; অইয়াওমা ইর্য়ুজ্বা‘ঊনা ইলাইহি ফাইয়ুনাব্বিয়ুহুম্ বিমা-‘আমিলূ; অল্লা-হু বিকুল্লি শাইয়িন্ ‘আলীম্।

বাংলা অনুবাদ

২৪.৬৪) সাবধান, আসমানসমূহ ও যমীনে যা কিছু আছে তা আল্লাহরই; তোমরা যে অবস্থায় আছ তা তিনি অবশ্যই জানেন এবং যেদিন তাদেরকে তাঁর  কাছে ফিরিয়ে নেয়া হবে সেদিন তারা যা করত তিনি তাদেরকে তা জানিয়ে দেবেন। আল্লাহ সব কিছু সম্পর্কে সম্যক জ্ঞাত।



Tag: সূরাতুল কাফিরুন, সূরাতুল বুরুজ, সূরাতুল দোহা, সূরাতুল হাশর, সূরাতুল ফিল, সূরাতুল কদর, সূরাতুল ইয়াসিন, সূরাতুল নূর।

0/Post a Comment/Comments

chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png