কিভাবে আজানের জবাব দিব | আজানের জবাব দেয়ার নিয়ম। আজানের জবাব অর্থ | ফজর নামাজের আজানের জবাব | আজানের জবাব কিভাবে দিব | আজানের উত্তর ও দোয়া | আজান ও জবাব | আজানের দোয়া

কিভাবে আজানের জবাব দিব | আজানের জবাব দেয়ার নিয়ম। আজানের জবাব অর্থ | ফজর নামাজের আজানের জবাব | আজানের জবাব কিভাবে দিব | আজানের উত্তর ও দোয়া | আজান ও জবাব | আজানের দোয়া

কিভাবে আজানের জবাব দিব

উত্তরঃ

মুওয়াযযিন যখন

ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ

“আল্লাহু আকবার, আল্লা-হু আকবার"

বলে তখন আপনি ও আন্তরিকতার সাথে তার জবাবে বলবেনঃ

ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ

"আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার"।

যখন মুওয়াযযিন বলে

কিভাবে আজানের জবাব দিব | আজানের জবাব দেয়ার নিয়ম। আজানের জবাব অর্থ | ফজর নামাজের আজানের জবাব | আজানের জবাব কিভাবে দিব | আজানের উত্তর ও দোয়া | আজান ও জবাব | আজানের দোয়া

ﺃَﺷْﻬَﺪُ ﺃَﻥْ ﻻَ ﺇِﻟَﻪَ ﺇِﻻَّ ﺍﻟﻠَّﻪُ

"আশহাদু আল লা- ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ"

এর জবাবে আপনিও বলবেনঃ

ﺃَﺷْﻬَﺪُ ﺃَﻥْ ﻻَ ﺇِﻟَﻪَ ﺇِﻻَّ ﺍﻟﻠَّﻪُ

"আশহাদু আল লা- ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ"।

অতঃপর মুওয়াযযিন বলেঃ

ﺃَﺷْﻬَﺪُ ﺃَﻥَّ ﻣُﺤَﻤَّﺪًﺍ ﺭَﺳُﻮﻝُ ﺍﻟﻠَّﻪِ

"আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান রসূলুল্ল-হ"

এর জবাবে বলবেনঃ

ﺃَﺷْﻬَﺪُ ﺃَﻥَّ ﻣُﺤَﻤَّﺪًﺍ ﺭَﺳُﻮﻝُ ﺍﻟﻠَّﻪِ

"আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান রসূলুল্ল-হ”।

অতঃপর মুওয়াযযিন বলেঃ

ﺣَﻰَّ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﺼَّﻼَﺓِ

"হাইয়্যা আলাস সলা-হ"

এর জবাবে বলবেনঃ

ﻻَ ﺣَﻮْﻝَ ﻭَﻻَ ﻗُﻮَّﺓَ ﺇِﻻَّ ﺑِﺎﻟﻠَّﻪِ

“লা-হাওলা ওয়ালা- কুওওয়াতা ইল্লা বিল্লা-হ"।

অতঃপর মুওয়াযযিন বলেঃ

ﺣَﻰَّ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟْﻔَﻼَﺡِ

"হাইয়্যা 'আলাল ফালা-হ"

এর জবাবে আপনি বলবেনঃ

ﻻَ ﺣَﻮْﻝَ ﻭَﻻَ ﻗُﻮَّﺓَ ﺇِﻻَّ ﺑِﺎﻟﻠَّﻪِ

“লা- হাওলা ওয়ালা কুওওয়াতা ইল্লা- বিল্লা-হ”।

অতঃপর মুওয়াৰ্যযিন বলেঃ

ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ

"আল্লা-হু আকবার, আল্লাহু আকবার"

এর জবাবে আপনি বলবেনঃ

ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺃَﻛْﺒَﺮُ

"আল্লাহু আকবার, আল্লাহু আকবার"।

অতঃপর মুওয়াযযিন বলেঃ

ﻻَ ﺇِﻟَﻪَ ﺇِﻻَّ ﺍﻟﻠَّﻪُ

“লা-ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ"

এর জবাবে আপনি বলবেনঃ

ﻻَ ﺇِﻟَﻪَ ﺇِﻻَّ ﺍﻟﻠَّﻪُ

“লা- ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ"


আসসালাতু খাইরুম মিনান নাউমের জবাব

ইসলামী ফিকহের বিভিন্ন কিতাবের বর্ণনামতে, ফজরের আজানে ‘আসসালাতু খাইরুম মিনান নাউম’-এর জবাবে ‘সাদাকতা ও বারারতা’ পড়বে। কিন্তু হাদিস ও সুন্নাহে এর কোনো প্রমাণ পাওয়া যায় না। তাই বিশুদ্ধ মতানুসারে এর জবাবেও মুয়াজ্জিনের অনুরূপ ‘আসসালাতু খাইরুম মিনান নাউম’ বলাই উত্তম। কেননা হাদিস শরিফে এসেছে, আজানের জবাবে তোমরাও মুয়াজ্জিনের অনুরূপ বলবে। 

তাকরিরাতে রাফেয়ি : ১/৪৭ আহসানুল ফাতাওয়া : ১০/২০৬)

অতঃপর দুরুদ শরীফ ও আযানের দোয়া পড়বেন।।

যে ব্যক্তি আন্তরিকতার সাথে আযানের জবাব দেয় সে বেহেশতে যাবে।

মুসলিম হাঃ ৩৮৫

আবু দাঊদ হাঃ ৫২৭

সহীহ আল জামি‘ হাঃ ৭১৪

Tag:কিভাবে আজানের জবাব দিব, আজানের জবাব দেয়ার নিয়ম,আজানের জবাব অর্থ,ফজর নামাজের আজানের জবাব, আজানের জবাব কিভাবে দিব, আজানের উত্তর ও দোয়া, আজান ও জবাব, আজানের দোয়া

মিশকাতুল মাসাবীহ হাঃ ৬৫৮

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন
chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png