সমান্তরাল movie review | Shomantoral movie review

সমান্তরাল movie review | Shomantoral movie review

 
সমান্তরাল movie review | Shomantoral movie review

সমান্তরাল movie review 


Segment Name : Movie Review

Movie Name : "সমান্তরাল (পার্থ চক্রবর্তী)"

★পরিচালক : পার্থ চক্রবর্তী

★প্রযােজক  : তারক নাথ সাহা

★চিত্রনাট্যকার : পদ্মনাভ দাশগুপ্ত

★সুরকার : ইন্দ্রদ্বী‌প দাশগুপ্ত

★চিত্রগ্রাহক : সুপ্রিয় দত্ত

★সম্পাদক : সুজয় দত্ত রায়


★মুক্তির তারিখ : ২৪ নভেম্বর,২০১৭

★দৈর্ঘ্য : ১ ঘণ্টা ৫০ মিনিট

★দেশ : ভারত

★ভাষা : বাংলা


★আইএমডিবি রেটিং : ৭.৬/১০

★পারসোনাল রেটিং : ১০/১০


★প্রধান অভিনেতা-অভিনেত্রী(চরিত্রের নাম) :-

১)পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় (সুমন)

২)ঋদ্ধি সেন (অর্ক)

৩)সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (সুজনের বাবা)

৪)সুরঙ্গনা বন্দ্যোপাধ্যায় (তিতলি;অর্কর বান্ধবী)

৫)কুশল চক্রবর্তী (সুপ্রিয়;বড় ছেলে)

৬)অপরাজিতা আঢ্য (বড় কন্যা)

৭)অনিন্দ্য ব্যানার্জী (কৌশিক;ছোট ছেলে)

৮)তনুশ্রী চক্রবর্তী (ছোট বউ)

৯)সায়ন্তনী গুহঠাকুরতা (ছোট মেয়ে)


★শ্রেষ্ঠাংশে :-

১)পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়

২)সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

৩)ঋদ্ধি সেন

৪)অপরাজিতা আঢ্য

৫)তনুশ্রী চক্রবর্তী


★মুভির অন্তর্ভুক্ত গান :-

১)তুই চুনলি যখন

২)দেখা হবে বলে


মুভি রিভিউ :-

★ছোটবেলায় একটি দুর্ঘটনায় বাবা-মা’কে হারানোর পর হোস্টেলে থেকে পড়াশুনা করত অর্ক (ঋদ্ধি)। স্কুলের গণ্ডি পেরিয়ে দাদুর অনুরোধে অর্ক আসে কলকাতায়। মামাবাড়িতে থেকেই শুরু হয় কলেজ পর্ব। তিন বছরের ভার্চুয়াল প্রেমিকার সঙ্গে প্রেম, পারিবারিক ঝামেলা, পড়াশুনো, গানবাজনা সব কিছুই চলে একসঙ্গে। এর মধ্যে অর্কর আগ্রহ তৈরি হয় ওর মেজমামাকে (পরমব্রত) নিয়ে। কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন, মুহূর্তে মনে হয় শিশু, আবার পর মুহূর্তে পারভার্ট। অন্য দিকে দুর্দান্ত ভায়োলিন বাদক, সুন্দর গান গায়, কবিতা পড়ে। পর পর কয়েকটি ঘটনার পর অর্কর মনে খটকা জন্মায়। এর পরই সুজনের অতীত খুঁজে বের করার চেষ্টা করে। এই কাজে তাকে সাহায্য করে সহপাঠী প্রেমিকা তিতলি (সুরঙ্গনা)। কথা হয় এক মনোরোগ বিশেষজ্ঞের সঙ্গেও। কিন্তু মেজমামার ঘরে এক দিন এক মহিলার অস্তিত্ব, একা ছদে তিতলিকে ছুঁয়ে দেখার চেষ্টা, কুমোরটুলির অসমাপ্ত প্রতিমার গায়ে হাত বুলনো— এই ঘটনাগুলি তাকে অন্য রকম ভাবে ভাবায়। শেষে এক দিন মেয়ের সাজে সুজনকে দেখে তার ধারণা সত্যি হয়, এবং দাদুর কাছে সুজনের ছোটবেলার গল্প শুনে সেই ধারণা আরও স্পষ্ট হয়। ছবির শেষ দৃশ্যে দেখানো হয়, এই সমাজ সুজনের মত ‘প্রান্তিক’ মানুষদের চায় না। তাই তাকে বেছে নিতে হয় আত্মহত্যার পথ।


★ছবির নামকরণ এবং বিষয়বস্তু থেকে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন উঠে আসে। প্রথমত, শেষ পর্যন্ত যদি একজন রূপান্তরকামীর গল্প বলতে চাওয়া হয়, তা হলে কেন প্রথম থেকে তাকে বাড়িতে আটকে রেখে মানসিক ভারসাম্যহীন রোগী বানিয়ে অদ্ভুত আচরণ করে আলাদা খেতে দেওয়া হয়! ভোটার লিস্টেও নাম থাকে না। এমনকী মেরে ফেলার চেষ্টাও করা হয়। তখন কিন্তু বাড়ির অন্য সদস্যদের কোনও প্রতিবাদ থাকে না, একমাত্র বড়বৌদি (অপরাজিত আঢ্য) ছাড়া। এ তো আর কোনও ছোঁয়াচে রোগ নয় যে সংক্রমণের ভয় থাকে। দ্বিতীয়ত, বার বার প্রায় খোঁচা মেরে বলা হয়, এরা সাধারণ মানুষদের থেকে ব্যতিক্রমী, সুন্দর মন এবং গুণের অধিকারী। সমাজে এদের প্রয়োজনীয়তা প্রায় নেই বললেই চলে। অতএব দাও ঠেলে অন্য গ্রহে। সুতরাং সমস্যার সমাধান হয় না। এক প্রকার জোর করেই সুজনেরা ‘প্রান্তিক’ মানুষের তকমাধারী হয়। শেষ পর্যন্ত সুজনের আনন্দের মুক্তি কিন্তু হয় না। হয় শান্তির মুক্তি।


★এই ধরনের চরিত্রে প্রথম অভিনয় করলেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। সুজন হয়ে ওঠার আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন।

চরিত্র অনুযায়ী যথাযথ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপরাজিতা আঢ্য, অনিন্দ্য বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সুরঙ্গনার অভিনয়। কিছু দৃশ্যে বেশ সাবলীল অর্ক-তিতলির অভিনয়।


রূপঙ্কর বাগচীর কণ্ঠে শুনতে মন্দ লাগে না "দেখা হবে বলে" গানটি। তবে এই সব কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে ভায়োলিনের মায়াবী জাদু, যা সিনেমার একমাত্র উপভোগ্য।


★অর্জন : "সমান্তরাল" সেরা চলচ্চিত্র (সমালোচকদের মতে) ২০১৮ ফিল্মফেয়ার পুরষ্কারে মনোনীত হয়েছিল। পরমব্রত শ্রেষ্ঠ অভিনেতার মনোনয়ন পেয়েছেন শীর্ষস্থানীয় ভূমিকা (পুরুষ) - শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (পুরুষ) জনপ্রিয় এবং সমালোচক পুরস্কারের জন্য।

Tag:সমান্তরাল movie review, Shomantoral movie review 

   

0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post
আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন
chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png