অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে ভাবসম্প্রসারণ | অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে তব ঘৃণা যেন তারে তৃণসম দহে ভাবসম্প্রসারণ

অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে
 তব ঘৃণা যেন তারে তৃণসম দহে 

 ভাব - সম্প্রসারণ : অন্যায়কারী ও অন্যায়ের সাহায্যকারী বা সহ্যকারী উভয়েই সমান দোষী । মানুষের যেমন মানুষ হিসেবে কতকগুলাে অধিকার আছে তেমনি মানুষ হিসেবে তার কতকগুলাে দায়িত্বও রয়েছে । প্রকৃতপক্ষে দায়িত্ব পালনের মধ্যদিয়েই অধিকার অর্জিত হয় । দুই - ই মনুষ্যত্বের অপরিহার্য অঙ্গ । অন্যায় না করা ও অন্যায় না সহ , এ দুটিই মনুষ্যত্বের দায়িত্ব । আমার অধিকার ততক্ষণ , যতক্ষণ অন্যেরও ঠিক সেই অধিকারে আমি হস্তক্ষেপ না করি , করলে তা অন্যায় হবে । অন্যায় কাজের দ্বারা মানুষের ক্ষতি সাধিত হয় । তাই অন্যায়কারী শাস্তির যােগ্য অপরাধী । ক্ষমা মহৎ গুণ হলেও সবধরনের অন্যায়ের ক্ষেত্রে ক্ষমা প্রদর্শন সমীচীন নয় । কারণ অন্যায়কারী

অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে  তব ঘৃণা যেন তারে তৃণসম দহে

র উপযুক্ত বিচার না হলে সমাজে অন্যায় কাজের প্রভাব বেড়ে গিয়ে সমাজকে অপরাধের আখড়ায় পরিণত করবে । ফলে সমাজ হয়ে উঠবে অন্যায় , অপরাধের লীলাক্ষেত্র এবং মানুষ বসবাসের অনুপযােগী । তাই সর্বজনীন কল্যাণ নিশ্চিত করার স্বার্থে অন্যায়কারীকে সাজা দেওয়া উচিত । কোনাে অবস্থাতেই বিনা বিচারে তাকে ক্ষমা করা উচিত নয় । যে ক্ষমা দুর্বলতার পরিচায়ক , অন্যায়ের শামিল , অনুরূপ ক্ষমা বাঞ্ছনীয় নয় । তাই যে অন্যায় করে এবং যে সহ্য করে উভয়েই ঘৃণাযােগ্য । প্রতিবাদ , প্রতিরােধের মাধ্যমে অন্যায়কে রুখতে হবে । তবেই সমাজে সুস্থ পরিবেশ ফিরে আসবে । অন্যায়কারী ও অন্যায় সহ্যকারী উভয়কে তাই শাস্তি দেওয়া প্রয়ােজন । অন্যায়ের প্রতিকার করতে শুধু অন্যায়কারীকে শাস্তি দিলেই হবে না । তাকে প্ররােচনাকারী ও অন্যায় সহ্যকারী সকলকেই একই সাথে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া প্রয়ােজন ।

টাগঃ অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে ভাবসম্প্রসারণ, অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে  তব ঘৃণা যেন তারে তৃণসম দহে ভাবসম্প্রসারণ 

0/Post a Comment/Comments

chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png