অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট | কুইজ খেলে টাকা আয় | freelancing android apps দিয়ে টাকা আয়

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট | কুইজ খেলে টাকা আয় | freelancing android apps দিয়ে টাকা আয়

 

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট , কুইজ খেলে টাকা আয়, অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট, মোবাইল দিয়ে আয় করে বিকাশে টাকা, android apps দিয়ে টাকা আয়, অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট freelancing

    অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট

    টাইম অফ বিডির পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা এবং সালাম আসসালামু আলাইকুম রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। আপনারা সবাই কেমন আছেন ? আশা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভাল আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। আপনারা অনেকেই হয়ত জানেননা ফেসবুক এবং অনলাইন থেকে বিভিন্ন উপায়ে টাকা ইনকাম করা যায়। আর তাই আজকে আমাদের পোস্টে আমরা এগুলো সম্পর্কে আলোচনা করব।আমাদের আজকের এই পোষ্ট টি তৈরি করা হয়েছে কিভাবে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় এর সম্পর্কে । আমাদের আজকের এই পোস্টের যা যা থাকছে সেগুলো হলো অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট , কুইজ খেলে টাকা আয়, অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট, মোবাইল দিয়ে আয় করে বিকাশে টাকা, android apps দিয়ে টাকা আয়, অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট freelancing। আশা করি পুরো পোস্টটি আপনার ধৈর্য সহকারে পড়বেন এবং আপনারা সঠিক তথ্যটি পাবেন।


    অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট

    একটি স্মার্টফোন থাকলে সহজেই এটির মাধ্যমে ভালো ইনকাম করা যায়। অনলাইন থেকে পৃথিবীর হাজার হাজার লাখ লাখ মানুষ ইনকাম করছে।বাংলাদেশের মানুষ অনলাইনে কাজ করে ইনকাম করছে কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের জন্য একটি সমস্যা হল অনলাইনে ইনকাম পেমেন্ট মাধ্যম নিয়ে। অনলাইন ইনকমে বাংলাদেশের একটি সাইট রয়েছে আর সেটি হল জে আইটি। এই সাইট থেকে আপনারা সহজে ইনকাম করতে পারেন।যে সাইট থেকে আপনারা কিভাবে ইনকাম করবেন সেটি আমাদের পোস্টটি পড়লে বুঝতে পারবেন আমাদের পোস্টে আমরা বিস্তারিত তুলে ধরেছি আশা করছি পুরো পোস্টটি আপনার ধৈর্য সহকারে পড়বেন।

    জে আইটি থেকে আয়

    জে আইটি হল একটি বাংলাদেশি অনলাইন ইনকাম রিলেটেড ব্লগ ওয়েবসাইট। এটি বাংলা ব্লগ ওয়েবসাইট হলেও ওয়েবসাইটটি আপনাকে লেখালেখি করে ফ্রি টাকা ইনকাম করার সুযােগ দিচ্ছে। এই ওয়েবসাইটটি থেকে মােবাইল দিয়ে টাকা আয় করে বিকাশে পেমেন্ট নিতে পারবেন।

    টাকা আয় করার উপায়

    জে আইটি থেকে টাকা আয় করার নানা উপায় রয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে

    বাংলা লিখে আয়

    শেয়ার করে আয়

    রেফার করে আয়

    ব্লগ পড়ে আয়

    সহজ টাস্ক পুরন করে আয় 

     কুইজ খেলে টাকা আয়

    অনলাইন ইনকাম

    কুইজ খেলে টাকা ইনকাম করুন পেমেন্ট নিন বিকাশ , রকেট , নগদ ও মোবাইল রিচার্জের মাদ্ধমে

    প্রতিদিন কুইজ খেলে বিকাশে আয় মানে আপনি কি ইনকাম করতে চান? এবং সে টাকা বিকাশ অথবা রকেটের মাধ্যমে উইথড্র করতে চান! আর মিনিমাম যখন হয় ৫০ টাকা উইথড্র তাহলে তো কোন কথাই নেই । আজকে আমি আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে শুধু কুইজ খেলে বিকাশে আপনি প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রথমত বলে রাখি আমি যে আমি একটি অ্যাপ ব্যবহারের জন্য আপনাদেরকে সাজেস্ট করব সেটি সম্পূর্ণ বাংলাদেশি অ্যাপ এবং এই অ্যাপ ব্যবহার করে আপনারা প্রতিনিয়ত কুইজ খেলে বিকাশে পয়েন্ট পাবেন এবং সেই পয়েন্ট কে টাকায় কনভার্ট করে বিকাশ , রকেট , নগদ ও মোবাইল রিচার্জের মাদ্ধমে নিতে পারবেন । 

    এটি আমাদের বাংলাদেশী এপ্স তাই পেমেন্ট নিয়ে কোনো জামেলা হবেনা সহজেই পেমেন্ট পেয়ে যাবেন

    এখানে আপনি বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে কুইজ পাবেন এবং প্রতিদিন নতুন নতুন কুইজ যোগ করা হচ্ছে তাই সহজেই আপনি অনেক বেশি ইনকাম করতে পারবেন

    প্লেস্টোর থেকে এপ্স টি ডাউনলোড করে নিবেন । লিংক

    http://play.google.com/store/apps/details?id=com.bijoymart.quizwithearn


    মাত্র ৫০ টাকা হলেই আপনি এখানে উইথড্র করে নিতে পারবেন এবং পেমেন্ট পাবেন উইথড্র রিকোয়েস্ট দেয়ার ৩/৪ ঘন্টার মাদ্ধমেই ।

    ১০০০ কয়েন = ৫০ টাকা

    পেমেন্ট মেথড : মাত্র ৫০ টাকা আপনার একাউন্ট এ জমা হলেই আপনি বিকাশ রকেট নগদ ও মোবাইল রিচার্জের মাধ্যমে পেমেন্ট নিয়ে নিতে পারবেন আপনি

    আমার রেফার কোড wGX7hT4 করলেই পেয়ে যাবেন সাথে সাথে ১০০ কয়েন ফ্রি রেফার কোড না দিলে ফ্রী কয়েন পাবেননা তাই ১০০ কয়েন পেতে অবশ্যই রেফার কোড ব্যবহার করবেন।


     মোবাইল দিয়ে আয় করে বিকাশে টাকা

    বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগ। এখন আমরা সবাই ঘরে বসেই অনলাইনে টাকা উপার্জন করতে পারি।বর্তমানে আমাদের সবারই কাছে কম বেশি স্মার্ট ফোন আছে আরেকটি স্মার্টফোন থাকলে সহজেই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। আর এই অনলাইনের এই কাজগুলো করে আমরা বিকাশের মাধ্যমে পেমেন্ট পায়।আমরা আজকে আমাদের এই পোস্টে মোবাইল দিয়ে কিভাবে আয় করা যায় এবং কিভাবে আমরা বিকাশে পেমেন্ট পায় সেটি নিয়ে আলোচনা করেছি পুরো পোস্টটি আপনার ধৈর্য সহকারে পড়বেন। আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন।যে যে কাজগুলো করে আমরা অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারি সেগুলো আজকে আমাদের এই পোস্টে তুলে ধরা হয়েছে পুরো পোস্টটি পড়লে আপনারা সেটা বুঝতে পারবেন।

    অনলাইনে টাকা ইনকাম।

    অনলাইন মানে হচ্ছে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেটের সংযোগ।এই সংযোগ আমাদেরকে দূরের দেশের মানুষের সাথেও যোগাযোগ করতে সাহায্য করে। যেমন যোগাযোগ করতে পারি পাশের রুমের মানুষের সাথে।

    ইন্টারনেট এখন শুধু যোগাযোগের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়।এখন ইন্টারনেট ব্যবহার করে আমরা অনলাইনে আয় করতে পারছি।অনেকেই জানেনা অনলাইন আয় কিভাবে কোন সোর্স গুলোতে করা হয়।আজকে সেই সোর্স গুলো নিয়ে লেখবো।

    ফ্রিল্যান্সিংঃ ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে ঘরে বসে কন্ট্রাকে অন্য কোন কোম্পানির কাজ করে দেওয়া এবং কাজের বিনিময়ে অর্থ পাওয়া।

    ওয়েব ডিজাইন ঃ ওয়েবসাইট ডিজাইনের কাজ করেও অনলাইনে অর্থ উপার্জন করা যায়।বড় বড় কোম্পানি গুলো দক্ষ ব্যক্তিদের বায়োডাটা দেখে কাজ দিয়ে থাকে।

    গ্রাফিক্স ডিজাইন ঃ গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমেও অনলাইনে টাকা ইনকাম করা যায়।এর জন্য নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট আছে সেখানে একাউন্ট খোলে ডিজাইন গুলো আপলোড করা হয় এবং যার দরকার তারা কিনে নেয় বা নতুন ডিজাইনের জন্য কাজে নিয়োগ দেয়।আর ঘরে বসেই সব কাজ করে সাবমিট করা যায়।

    ই কমার্সঃ ই কমার্স হচ্ছে ইলেকট্রনিক কমার্স।ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পণ্য সেল করা এবং টাকা পরিশোধের মাধ্যম হিসেবে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করা।

    এফ কমার্স ঃ এফ কমার্স ই কমার্সের মতোই।কিন্তু এটি ফেজবুক পেজ ব্যবহার করে করা হয়।এবং ইলেকট্রনিক লেনদেন এর বদল ক্যাশ অন ডেলিভারি বা বিকাশে টাকা লেনদেন হয়।

    রিসেলার একাউন্ট ঃ কোন ওয়েবসাইটের হয়ে তাদের পণ্য ঘরে বসে ফেজবুক পেজের মাধ্যমে সেল করে টাকা ইনকাম করা যায়।

    উপরোধ অনলাইন সোর্স গুলোর মাধ্যমে খুব সহজে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যায়।যা আমাদেরকে করোনা কালীন সময়ে অনেক বেশি সাহায্য করেছে।আমাদের মতো অনেককেই ইনকাম করে স্বাবলম্বী হতে সাহায্য করেছে।

     android apps দিয়ে টাকা আয়

    অনলাইনে আয় :

    বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। আপনি ইচ্ছা করলে যে কোন একটি প্লাটফর্ম কে কাজে লাগিয়ে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন ঘরে বসেই। আজ আমি যে বিষয় টা নিয়ে আলোচনা করব সেটি হচ্ছে অনলাইন থেকে আয় করার সবচেয়ে সহজ উপায়। সবচেয়ে সহজ উপায়ে কিভাবে অনলাইন থেকে আয় করা যায় সে ব্যাপারে আমার আজকের এই পোষ্ট।  

    যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবো সেটি হলো গুগল এডসেন্স। তো চলুন আমরা জেনে নেই গুগল এডসেন্স টা কি।

     গুগল এডসেন্স কি?

    গুগল এডসেন্স হলো গুগলের একটি এড নেটওয়ার্ক। যেটি 2003 সালের 18 জুন রিলিজ হয়েছে। গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে একজন ব্লগার বা একজন ইউটিউবার অথবা একজন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপার ঘরে বসে ইনকাম করতে পারে হাজার হাজার ডলার। এখন প্রশ্ন হলো গুগল এডসেন্স কিভাবে এবং কেন আমাদেরকে টাকা দেবে? বা আমরা কিভাবে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে পারব? অথবা আমরা কি পরিমানে ইনকাম করতে পারব? তো চলুন আমরা বিস্তারিত আলোচনা করছি।

    গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করতে পারব?

    গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে। সে ওয়েবসাইটি হতে পারে ফ্রী ব্লগার প্ল্যাটফর্ম। আপনি চাইলে ব্লগার ইউজ করে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন এবং সেখান থেকে অ্যাড মনিটাইজ করে গুগল এডসেন্স থেকে আপনি ঘরে বসেই হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারবেন। একটি পেইড ওয়েবসাইট, পেইড ওয়েবসাইট বলতে আমি বোঝাতে চাচ্ছি, যে ওয়েবসাইটটি আপনি কোন ডেভলপার দিয়ে ডিজাইন করে নিয়েছেন এবং আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন এবং হোস্টিং ক্রয় করে সেই নিজস্ব হোস্টিং এ আপনার ওয়েবসাইটটি তৈরি করে আপনি ব্লগিং করছেন। আপনার ওয়েবসাইট দিয়ে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন এবং গুগল আপনার ওয়েব সাইটে এড দেখানোর জন্য অ্যাপ্রোভাল দেবে তখনই আপনি গুগল এডসেন্স থেকে আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

    অথবা আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল আছে সেই চ্যানেল দিয়ে গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং গুগল যখন সেই চ্যানেলটিকে অ্যাড মনিটাইজ করার জন্য অ্যাপ্রভাল দিবে তখন আপনি সেই ইউটিউব চ্যানেল থেকে গুগল এডসেন্স এর এড এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

    অথবা আপনি একজন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভলপার গুগল প্লে স্টোরে আপনার অনেকগুলো অ্যাপস রয়েছে আপনি ইচ্ছা করলে সে সমস্ত অ্যাপসে গুগল এডসেন্সের আরেকটি প্ল্যাটফর্ম ইউজ করে এডমোব ইউজ করে আয় করতে পারবেন।

     অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট freelancing 

    ফ্রিল্যান্সিং করুন, ক্যারিয়ার গড়ুন!!

    আপনি কি ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চান? তাহলে ফ্রিল্যান্সিং পেশাটি আপনার জন্য। 

    ফ্রিল্যান্সিং করে নিজ যোগ্যতা অনুযায়ী আয় করা যায় মাসে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত। আর অনলাইনে আয় রোজগার করার সবচেয়ে সহজ পথ হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। 

    কিন্তু, আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং করে আয় রোজগার করতে চান, তাহলে আপনার প্রয়োজন পড়বে ভালো গাইডলাইন, মার্কেটপ্লেসের উপর টেকনিক, সঠিক সাপোর্টের। 

    এই বিষয়গুলো না থাকলে ফ্রিল্যান্সিং-এর ক্ষেত্রে ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবেন না। ফ্রিল্যান্সিং এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হচ্ছে কাজের দক্ষতা অর্জন করা।

    যারা অনলাইন এর মাধ্যমে বিভিন্ন আউটসোর্সিং এর কাজ করে ইনকাম করতে চায়, তাদেরকে আমরা কম্পিউটার এর কিছু চাহিদা সম্পন্ন কাজ শেখাই , যেমনঃ ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস ।

    এ ধরনের কাজ গুলো শিখিয়ে কিভাবে আউটসোর্সিং বা ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে এই কাজগুলো করে ইনকাম করা যায়, ঐ পদ্ধতিগুলোও শেখানো হয় 

    Tag:অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট , কুইজ খেলে টাকা আয়, অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট, মোবাইল দিয়ে আয় করে বিকাশে টাকা, android apps দিয়ে টাকা আয়, অনলাইনে আয় বিকাশে পেমেন্ট freelancing 


    0/Post a Comment/Comments

    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন
    chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png