রিং আইডি দিয়ে টাকা ইনকাম ২০২১ | লুডু খেলে ফেসবুক একাউন্ট খুলে ঘরে বসে ইনকাম করার উপায়

রিং আইডি দিয়ে টাকা ইনকাম ২০২১ | লুডু খেলে ফেসবুক একাউন্ট খুলে ঘরে বসে ইনকাম করার উপায়

 


টাকা ইনকাম করার উপায়, ঘরে বসে ইনকাম , ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চাই, ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয়, অনলাইনে ইনকাম করার উপায়, লুডু খেলে টাকা ইনকাম , রিং আইডি দিয়ে টাকা ইনকাম ২০২১, রিং আইডি থেকে টাকা ইনকাম

    টাকা ইনকাম করার উপায়  

    টাইম অফ বিডির পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা এবং সালাম আসসালামু আলাইকুম রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। আপনারা সবাই কেমন আছেন ? আশা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভাল আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। আপনারা অনেকেই হয়ত জানেননা ফেসবুক এবং অনলাইন থেকে বিভিন্ন উপায়ে টাকা ইনকাম করা যায়। আর তাই আজকে আমাদের পোস্টে আমরা এগুলো সম্পর্কে আলোচনা করব।আমাদের আজকের এই পোষ্ট টি তৈরি করা হয়েছে কিভাবে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় এর সম্পর্কে । আমাদের আজকের এই পোস্টের যা যা থাকছে সেগুলো হলোটাকা ইনকাম করার উপায়, ঘরে বসে ইনকাম , ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চাই, ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয়, অনলাইনে ইনকাম করার উপায়, লুডু খেলে টাকা ইনকাম , রিং আইডি দিয়ে টাকা ইনকাম ২০২১, রিং আইডি থেকে টাকা ইনকাম  । আশা করছি আপনার পুরো পোস্টটিি ধৈর্য্য্ সহকারে পড়বেন এবং সঠিক তথ্যটিি পাবেন।

    অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

    বর্তমানে পৃথিবীতে হাজার হাজার এবং লাখ লাখ মানুষ অনলাইন থেকে প্রচুর টাকা ইনকাম করছে।এবং অনলাইনে ইনকাম করার জন্য প্রয়োজন একটি ল্যাপটপ কিন্তু কারো যদি ল্যাপটপ না থাকে সে স্মার্ট মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পার। অনলাইনে ইনকাম করার বিভিন্ন ধরনের উপায় আছে যেমন অ্যাপস এর মাধ্যমে ইনকাম করা যায় ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করা যায় ব্লগ সাইট তৈরি করে ইনকাম করা যায় এছাড়া ফেসবুকে নিজের পেজ খুলে সেখানে বিভিন্ন ধরনের তথ্য আপলোড দিয়ে ইনকাম করা যায়। আমরা আজকে আমাদের এই পোস্টটি তৈরি করেছি ফেসবুক এর মাধ্যমে কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায় এর উপর বিশ্লেষণ করে। আশা করছি আপনারা পুরো পোস্টটি ধৈর্য্য সহকারে পড়বেন তাহলে বুঝতে পারবেন কিভাবে ফেসবুকের মাধ্যমে আমরা অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারি।

    ফেসবুকে আয় করার পদ্ধতিঃ

    ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার অনেকগুলো উপায় রয়েছে। আপনি চেষ্টা করলে আপনার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে ফেসবুক হতে টাকা আয় করতে পারবেন। আজকের পোস্টে আমরা ফেসবুক থেকে আয় করার উপায়গুলো পয়েন্ট আকারে আলোচনা করব। ফেসবুক থেকে আয়ের বিষয়ে আপনার কোন ধারনা না থাকলে আজকের পোস্টটি পড়ার পর বিস্তারিত জেনে যাবেন। সেই সাথে একটি ফেসবুক একাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে ফেসবুক থেকে টাকা হাতে পাওয়া অবধি কী কী কাজ করতে হয় সে বিষয় নিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে আলোচনা করব। ফেসবুক আয়ের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিম্নে তুলে ধরছি।

     ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয়ঃ

    প্রথমে বলে রাখছি ফেসবুক একাউন্ট থেকে অর্থাৎ আপানার আমার যে নরমাল ফেসবুক একাউন্ট আছে, যেটি আমরা নিয়মিত ব্যবহার করি, সেই একাউন্টের মাধ্যমে আমরা সরাসরি ফেসবুক থেকে আয় করতে পারব না। কারণ ফেসবুক একটি ইউজার একাউন্ট থেকে সরাসরি টাকা ইনকাম করার কোন উপায় রাখেনি।

    আমরা জানি যে, একটি ফেসবুক একাউন্টে ৫০০০ হাজার এর বেশি ফ্রেন্ড যুক্ত করা যায় না। সেই জন্য মূলত ফেসবুক প্রোফাইল হতে কোন ধরনের মনিটাইজ করার সুযোগ দেয়নি। তবে আপনার কোন ধরনের ব্যক্তিগত ব্লগ থাকলে সেই ব্লগের পোস্টগুলো ফেসবুক একাউন্টে শেয়ার করে ফেসবুক হতে আপনার ব্লগের ভিজিটর বৃদ্ধি করে ব্লগের আয় বাড়িয়ে নিতে পারবেন। তবে অধিকাংশ লোক তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট দিয়ে এ ধরনের কাজ করে না। ফেসবুক থেকে আয় করার জন্য অবশ্যই আপনার একটি ফেসবুক পেজ বা ফেসবুক ফ্যান পেজ থাকতে হবে।

    ফেসবুক ফ্যান পেজ তৈরি করাঃ

    ফেসবুক এর অসাধারন সব ফিচার্স এর মধ্যে অন্যতম হল ফেসবুক ফ্যান পেজ বা লাইক পেজ। ফেসবুক প্রোফাইলে যেভাবে বন্ধু বাড়ানোর জন্য ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠাতে হয় বা ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট রিসিভ করতে হয়, ফেসবুক ফ্যান প্যাজ এর ক্ষেত্রে তেমনটি করতে হয় না। আপনার নিজের নামে একটি ফেসবুক লাইক পেজ থাকলে, যে কেউ আপনার পেজে লাইক করতে পারবে। আপনার একটি ফেসবুক পেজ থাকলে এবং সেটিতে প্রচুর পরিমানে ফলোয়ার বা লাইক থাকলে আপনার ফেসবুক পেজকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন উপায়ে ফেসবুক হতে সহজে টাকা আয় করতে পারবেন।

    কিভাবে ফেসবুক পেজ খুলবেন?

    আপনার যদি একটি ফেসবুক পেজ থাকে এবং সেটি প্রচুর পরিমানে লাইক থাকে, তাহলে আপনান নতুন ফেসবুক পেজ তৈরি করার কোন প্রয়োজন নেই। তবে আপনার ফেসবুক পেজ না থাকলে ফেসবুক থেকে আয় শুরু করার পূর্বে প্রথমে আপনার নিজ নামে অথবা আপনার কোম্পানি কিংবা আপনার ব্লগের নামে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করে নিতে হবে। 

    আপনি যদি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে না জানেন, তাহলেও কোন সমস্যা নেই, কারণ আমাদের ব্লগে এ বিষয়ে একটি পোস্ট রয়েছে। আমাদের ব্লগের পোস্টটি পড়লে আপনি খুব সহজে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করে নিতে পারবেন।

    ফেসবুক পেজ তৈরি করার পর বসে থাকলে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন না। ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার জন্য আপনাকে প্রতিদিন কিছু সময় ব্যয় করতে হবে। কারণ যেকোন উপায়ে টাকা ইনকাম করার জন্য পরিশ্রম ব্যাতীত টাকা আয় করা সম্ভব হয় না। ঠিক একইভাবে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার জন্য প্রথমে আপনার ফেসবুক পেজের লাইক বাড়িয়ে নিতে হবে। ফেসবুক থেকে আয় শুরু করার পূর্বে ফেসবুক পেজের লাইক বৃদ্ধি করে নেওয়া হবে আপনার প্রধান কাজ। ফেসবুকে যেকোন কাজের মাধ্যমে যখন আপনি ফেসবুক পেজের লাইক বাড়িয়ে নিবেন, তখন ফেসবুক থেকে আয়ের পথ আপনার জন্য অনেক সহজ হবে। যখন আপনার ফেসবুক পেজে প্রচুর পরিমানে ফ্যান ফলোয়ার থাকবে তখন ফেসবুক থেকে আয় করার নতুন নতুন উপায় আপনি নিজেই খোজে নিতে পারবেন এবং আয়ের বিভিন্ন উৎস আপনাকে হাতছানি দিয়ে ডাকবে। সুতরাং ফেসবুক পেজের লাইক বৃদ্ধি করাই হবে আপনার প্রথম ও প্রধান কাজ।

     ঘরে বসে ইনকাম  | ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চাই

    আপনি যদি ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে আপনি ফেসবুককে বেছে নিতে পারেন। আমরা অনেকেই প্রতিদিন প্রতি নিয়ত ফেসবুক চালিয়ে অনেক সময় কাটায়। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা যে ফেসবুকের মাধ্যমে ঘরে বসে ইনকাম করা যায়। আমাদের সবারই কমবেশি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে। আরে ফেসবুকের মাধ্যমেই আমরা ঘরে বসে ইনকাম করতে পারব। তার জন্য ফেসবুকে একটি পেজ ক্রিয়েট করতে হবে। আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টটি তৈরি করেছি কিভাবে বাড়িতে বসে টাকা ইনকাম করা যায় তার উপর বিশ্লেষণ করে।আমাদের পুরো পোস্টটি পড়লে আপনারা জানতে পারবেন কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকেই ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যায়। আশা করছি পুরো পোস্টটি ধৈর্য্য সহকারে পড়বেন।

    ফেসবুক লাইক শেয়ার করে আয়ঃ

    আপনার কাছে যখন প্রচুর জনপ্রিয় একটি ফেসবুক পেজ থাকবে এবং আপনার পেজে প্রচুর পরিমানে ফলোয়ার থাকবে, তখন বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটার আপনাকে তাদের পেজে লাইক বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য কিংবা বিভিন্ন ওয়েবসাইটের পোস্ট শেয়ার করে সেটা মানুষের কাছে পৌছে দেওয়ার জন্য অফার করবে। তখন আপনি তাদের নিকট হতে বিভিন্ন অংকের টাকার বিনিময়ে তাদের ফেসবুক পেজ কিংবা ওয়েবসাইটের পোস্ট আপনার ফেসবুক পেজে শেয়ার করার মাধ্যমে ক্লায়ান্টের নিকট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। সাধারণত বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটারগণ ১০০০ লাইকের বিনিময়ে ৫০০-৭০০ টাকা নিয়ে থাকেন। যাদের ফেসবুক পেজে প্রচুর পরিমানে ফলোয়ার আছে, তাদের ক্ষেত্রে ১০০০ লাইক পাইয়ে দেওয়া মাত্র ৫ মিনিটের কাজ।

    ফেসবুক পেইজ বিক্রি করে আয়ঃ

    অনলাইন মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ফেসবুক পেজের অনেক গুরুত্ব রয়েছে। আপনার কাছে ভালোমানের ফেসবুক পেজ থাকলে বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটিং কোম্পানির কাছে আপনার ফেসবুক পেজটি বিক্রি করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারেন। সাধারণ এক লক্ষ Like থাকা একটি ফেসবুক পেজ এক লক্ষ টাকার চাইতে অধিক দামে বিক্রি করা যায়।

    ফেসবুকে পন্য বিক্রয় করে আয়ঃ

    অনলাইন মার্কেটিং এর কাজটি ফেসবুক অনেকাংশে সহজ করে দিয়েছে। আপনার যেকোন ধরনের ছোট খাটো ব্যবসা থাকলে আপনি খুব সহজে সেটির ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে খুব সহজে আপনার পন্য ক্রেতাদের হাতে পৌছে দিতে পারেন। আপনার ফেসবুক পেজে লাইক বেশি থাকলে লোকজন আপনার প্রোডাক্টগুলো দেখতে পাবে এবং কেউ কেউ সেটি কিনতে অবশ্যই আগ্রহ দেখাব। আপনি যদি সততার সাথে পন্য ডেলিভারি দেন, তাহলে প্রশংসা শুনে আরো হাজারো লোক দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আপনার প্রোডাক্ট কিনার জন্য আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

    অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ফেসবুক থেকে আয়ঃ

    অন্যের প্রোডাক্ট বিক্রি করে বিক্রয়ের উপর কমিশন নিয়ে অনলাইন থেকে আয় করাকে সহজ ভাষায় অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলা হয়। অনলাইনে প্রোডাক্ট বিক্রি বলতে এখন শুধুমাত্র ডিজিটাল প্রোডাক্টকে না বুঝিয়ে সব ধরনের প্রোডাক্টকে বুঝায়। আপনি নিশ্চয় দেখে থাকেন যে, Amazone, eBay, Daraz, BD Shop এর মত আরো বিভিন্ন ধরনের অনলাইন মার্কেট থেকে মানুষ এখনো নিয়মিত প্রোডাক্ট কিনে থাকে। আপনি চাইলে এ ধরনের মার্কেটপ্লেসগুলোতে একটি একাউন্ট খোলে খুব সহজে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

    অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য Amazone, eBay, Daraz, BD Shop সহ অন্যান্য ডিজিটাল মার্কেটপ্লেস গুলোতে আপনি প্রথমে একাউন্ট করে নিবেন। তারপর ঐ ডিজিটাল মার্কেটপ্লেস গুলোর প্রোডাক্ট হতে আপনার পছন্দমত বিভিন্ন পন্যের রেফারাল লিংক তৈরি করে সেটি ফেসবুক পেজে শেয়ার করবেন। আপনার রেফাল লিংকে ক্লিক করে যখন কেউ সেই পন্য কিনবেন তখন পন্যটির দাম হতে শতকরা হিসেবে আপনাকে কিছু টাকা দেওয়া হবে। এভাবে আপনি যত বেশি প্রোডাক্ট সেল করে দিতে পারবেন আপনি তত বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। সাধারণত ফেসবুকে যাদের প্রচুর পরিমানে ফলোয়ার আছে তারা এই কাজটি খুব সহজে করতে পারে।

    ফ্রিল্যান্সিং করে ফেসবুক থেকে আয়ঃ

    ফ্রিল্যান্সিং জব পাওয়ার জন্য ফেসবুকে নির্দিষ্ট কিছু ভালোমানের গ্রুপ আছে। আপনি যে বিষয়ে দক্ষ সে বিষয় নিয়েই ফ্রিল্যান্সিং করে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারেন। যেমন: ফ্রিল্যান্স রাইটিং, ফ্রিল্যান্স ডিজাইনিং, ফ্রিল্যান্স ফটোগ্রাফি, ফ্রিল্যান্সিং সোশাল মিডিয়া ইত্যাদি। তবে গ্রুপ নির্বাচনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে অ্যাকটিভ গ্রুপগুলো নির্বাচন করে নিতে হবে। সাধারণত কোন গ্রুপগুলো ভালো সেটা আপনি দেখলে নিজেই বুঝতে পারবেন।

    ফেসবুক গ্রুপ থেকে টাকা আয়ঃ

    অনলাইনে পন্য কেনাকাঠার ক্ষেত্রে ফেসবুক গ্রুপ আরো অধিক জনপ্রিয়। ফেসবুকে এমন হাজারো গ্রুপ রয়েছে যেখানে লক্ষ লক্ষ মেম্বার রয়েছে। আপনার কোন ব্লগ থাকলে ব্লগের পোস্ট বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার করে আপনার ব্লগের আয় সহজে বাড়িয়ে নিতে পারবেন। তাছাড়া ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের কেনাকাঠার গ্রুপ রয়েছে। আপনি সেই গ্রুপগুলোতে জয়েন করে আপনার প্রেডাক্ট বিক্রি করে ফেসবুক থেকে আয় করে নিতে পারেন।

    উদাহরণ স্বরুপ, শুধুমাত্র সিলেটের লোকের জন্য জন্য ফেসবুকে “সিলেটের বেচা-কেনা” নামে একটি বিশাল গ্রুপ রয়েছে। এই গ্রুপে বর্তমানে কয়েক লক্ষ মেম্বার রয়েছে। এখানে সিলেটের লোকজন তাদের বিভন্ন ধরনের প্রোডাক্ট ক্রয় বিক্রয় করছে। আমি নিজেও এই গ্রুপ থেকে বেশ কয়েকবার বিভিন্ন জিনিস ক্রয় করেছি।

     ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে আয়ঃ

    অনলাইন বিজ্ঞাপন বা ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে ফেসবুক বিজ্ঞাপন বর্তমানে খুব জনপ্রিয়। আপনি চাইলে ফেসবুকে বিভিন্ন জিনিসের বিজ্ঞাপন দিয়ে আপনার প্রোডাক্ট বিক্রয় করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারেন। ধরুন আপনার কোন একটি প্রোডাক্ট আছে যেটি আপনি বিক্রি করতে পারছেন না। এ ক্ষেত্রে আপনি খুব সহজে অল্প টাকা খরছ করে পন্যটির বিজ্ঞাপন ফেসবুকে দিয়ে সেটি বিক্রয় করতে পারেন।

    শেষ কথা আসলে বর্তমানে অনলাইন মার্কেটিং তথা ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব এত বেশী বৃদ্ধি পাচ্ছে, যেটা লিখে শেষ করা যাবে না। আপনি চেষ্টা করলে নিজের মেধা কাজে লাগিয়ে উপরের উপায়গুলো ছাড়াও আরো বিভিন্ন উপায়ে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

     ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয়

    ফেসবুক থেকে আয়: আমরা ফেসবুক শুধুমাত্র সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যক হিসেবে ধরে নেই। কিন্তু আপনি জানেন যে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক কাজে লাগিয়ে মানুষ এখন অনলাইন থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। এমনকি ফেসবুক পেজ ও গ্রুপ তৈরি করে ফেসবুকের বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে ফেসবুক থেকে আয় করছে। তাছাড়া ফেসবুক পেজে ভিডিও আপলোড করে ইউটিউবের মত ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা সমম্ভব হচ্ছে।

    তাছাড়াও ফেসবুকে আপনার জনপ্রিয়তা থাকলে আপনি বিভিন্ন উপায়ে ফেসবুক হতে সহজে আয় করতে পারবেন। আমরা আজকের পোস্টে এই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করব। আপনি যদি জানতে চান কিভাবে ফেসবুক হতে টাকা আয় করতে হয়, তাহলে পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়বেন। তাহলে আমার বিশ্বাস আপনিও ফেসবুক থেকে প্রতি মাসে কিছু টাকা আয় করতে পারবেন।

    বর্তমান সময়ের সবচাইতে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া বা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। সেই জন্য ফেসবুক নিয়ে নতুন করে আলোচনা করার কিছু নেই। আমার ৫ বছরের ছেলেও মোবাইল হাতে পেলে ফেসবুক ব্যবহার করা শুরু করে। সে মোবাইল না পেলে তার মাকে এবং আমাকে প্রায় বলে থাকে আব্বু আপনার মোবাইলটা আমাকে দাও, আমি ফেসবুক ব্যবহার করব। প্রথম প্রথম ছেলের মুখে এমন কথা শুনে অবাক হতাম, কিন্তু এখন সেটা আমার জন্য স্বাভাবিক হয়েগেছে।

    এখনকার সময়ে এটা বলতে কোন দ্বিধা নেই যে, ফেসবুক হচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া। পুরো বিশ্ব মানবের একটি বিরাট অংশ ফেসবুক এর সাথে যুক্ত হয়ে আছে। সারা বিশ্বে প্রতি মাসে ২.৪ বিলিয়ন একটিভ ফেসবুক ইউজার রয়েছে। তার মধ্যে প্রতিদিন গড়ে ১.৪৯ বিলিয়ন লোক ফেসবুক ব্যবহার করে। আপনি শুনলে আরো অবাক হবেন যে, প্রতি এক সেনেন্ডে গড়ে ৫ টি নতুন ফেসবুক একাউন্ট তৈরি হয়ে থাকে। এই পুরো কাজ নিয়ন্ত্রন করার জন্য ফেসবুকের ৪৪৪৯২ জন স্পেশালিস্ট প্রতিদিন কাজ করে থাকে (সূত্রঃ উইকিপিডিয়া)।

    আর আপনি অবশ্যই জানেন ফেসবুক পেজের লাইক ঔভিডিওতে লাগানো যায় না। 

    আপনার ফেসবুক পেজে ১০,০০০ লাইক থাকতে হবে।

    গত ৬০ দিনে আপনার ফেসবুক পেজের ভিডিওতে মিনিমাম ৩০,০০০ ভিউস থাকতে হবে এবং প্রত্যেকটি ভিউ মিনিমাম ১ মিনিটের হতে হবে। তাছাড়া আপনার প্রত্যেকটি ভিডিও কমপক্ষে ৩ মিনিট লম্বা হতে হবে। কারণ ৩ মিনিটের ছোট ভিডিওতে ফেসবুক বিজ্ঞাপন শো করে না।

    আপনার বয়স অবশ্যই কপক্ষে ১৮ হতে হবে।

    আপনার ভিডিও এর ভাষা ফেসবুক In-Stream Ads সাপোর্ট করে না, এমন ভিডিও আপলোড করলে ভিডিও মনিটাইজ হবে না। তবে টেনশনের কোন কারণ নেই, ফেসবুক In-Stream Ads বাংলা ভাষা সাপোর্ট করে।

    ফেসবুক এর Partner Monetisation Policies মেনে ভিডিও তৈরি করতে হবে।


     লুডু খেলে টাকা ইনকাম

    প্রিয় পাঠকবৃন্দ আপনারা হয়তো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় কিভাবে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় এইসব বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন আর তাই আমরা আজকে আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের জন্য তৈরি করেছি। আমরা অনেকেই আছি অবসর সময়ে লুডু খেলে সময় কাটায়। কিন্তু আমরা অনেকেই হয়তো জানি না যে অনলাইনের মাধ্যমে লুডু খেলে টাকা ইনকাম করা যায়। আর তাই আমরা আজকে আমাদের এই পোস্টটি তৈরি করেছি অনলাইনের মাধ্যমে কিভাবে লুডু খেলে টাকা ইনকাম করা যায় এর সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে। অনলাইনে লুডু খেলার জন্য প্রথমে আপনার ফোনে এমবি বা ওয়াইফাই এর প্রয়োজন হয়। আমরা আমাদের এই পোস্টে অনলাইন লুডু বাজির বেশ কিছু নিয়ম নিয়ে এসেছি আশা করছি আপনার পুরো পোস্টটি ধৈর্য্য সহকারে পড়বেন।

     অনলাইন লুডু বাজি নিয়মাবলি

    ১। প্রথমত আপনার একটি বিকাশ একাউন্ট থাকতে হবে। 

    ২। মেসেঞ্জারে লুডু খেলার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। 

    ৩। শুধু লুডু ক্লাবে খেলা যাবে।

    ৪। লুডু খেলে জিতলে টাকা পাবেন। 

    ৫। টাকা নেওয়ার জন্য এডমিন কে স্ক্রিনশট দিতে হবে।

    ৬। শুধুমাত্র স্ক্রিনশট পাঠানোর পরেই টাকা পাবেন। 

    ৭। প্রতি ম্যাচে ২ জনের বেশি খেলা যাবে না। 

    ১০ টাকা থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত বাজি খেলতে পারবেন। 


     রিং আইডি দিয়ে টাকা ইনকাম  ২০২১ |  রিং আইডি থেকে টাকা ইনকাম  

    অনলাইনে ইনকাম করার বিভিন্ন মাধ্যমের মধ্যে অ্যাপ একটি.। রিং আইডি অ্যাপ দিয়ে সহজেই আমরা অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারি এর জন্য একটি রেফার কোড দেওয়া হয় এই রেফার কোড টি দিয়ে ক্লিক করলেই আপনারা টাকা পাবেন।. 

    রিং আইডি এপস এ চলছে

    ধামাকা অফার..একাউন্ট করলেই

    পাইতেছেন 200 টাকা যা সাথে

    সাথে বিকাশ অথবা রকেট এ নিতে পারবেন এর জন্য যা যা করতে হবে....

    ১/ প্রথমে আপনারা Play Store থেকে Ring

    id App টা ডাউনলোড করে নেবেন &

    অ্যাপ টা ওপেন করুন

    ২/ তারপর আপনার মোবাইল নাম্বার

    দিন, আপনার সিমে একটা কোড যাবে

    পিন কোড টা বসিয়ে দিবেন

    ৩/ তারপর আপনার নাম দিন

    ৪/ তারপর পাসওয়ার্ড দিতে বলবে SKiP

    করে দিন

    ৫/ তারপর আপনাকে রেফার কোড

    দিতে বলবে Add Reffer এ এইটা 12282393

    দিবেন দিয়ে Refar now click করবেন এবং

    সাথে 200 TK bonus 'পাবেন।

    মনে রাখবেন এই রেফার কোড টা ভুল

    করলে আপনি কিন্তু 200 টাকা পাবেন

    না-।


    Tag:টাকা ইনকাম করার উপায়, ঘরে বসে ইনকাম , ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চাই, ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয়, অনলাইনে ইনকাম করার উপায়, লুডু খেলে টাকা ইনকাম , রিং আইডি দিয়ে টাকা ইনকাম ২০২১, রিং আইডি থেকে টাকা ইনকাম  


    0/Post a Comment/Comments

    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন
    chrome-extension://oilhmgfpengfpkkliokdbjjhiikehfoo/img/semstorm-32.png